রবীন্দ্রনাথের কবিতা পড়বেন দানিশ, সঙ্গী গুলশনারা, ত্রাণ সংগ্রহে ভার্চুয়াল অনুষ্ঠান

শিল্পীরা সকলেই বিনা পারিশ্রমিকে পারফর্ম করছেন। টিকিট কেটে দেখতে হচ্ছে এই অনুষ্ঠান। টিকিট থেকে প্রাপ্ত সমস্ত অর্থ যাবে সুন্দরবনের মানুষের সাহায্যার্থে ঐক্যলিপির ‘রিবিন্ড সুন্দরবন’ প্রজেক্টে। আজ সেই প্ল্যাটফর্মে দানিশের অনুষ্ঠান। সঙ্গী শিল্পী গুলশনারা খাতুন।

রবীন্দ্রনাথের কবিতা পড়বেন দানিশ, সঙ্গী গুলশনারা, ত্রাণ সংগ্রহে ভার্চুয়াল অনুষ্ঠান
দানিশ এবং গুলশনারা।
স্বরলিপি ভট্টাচার্য

|

Jun 06, 2021 | 2:17 PM


দানিশ হুসেন (Danish Husain)। তাঁর অভিনয়ে মুগ্ধ দর্শক। একই সঙ্গে তিনি নাট্য পরিচালক, কবি এবং লেখক। এ হেন শিল্পী সুন্দরবনের মানুষের পাশে দাঁড়ানোর উদ্যোগ নিলেন। ইয়াস পরবর্তী সুন্দরবনকে সাহায্য করার জন্য ‘ঐক্যলিপি’ সংগঠনের উদ্যোগে দু’দিন ব্যাপী ভার্চুয়াল অনুষ্ঠান চলছে। শিল্পীরা সকলেই বিনা পারিশ্রমিকে পারফর্ম করছেন। টিকিট কেটে দেখতে হচ্ছে এই অনুষ্ঠান। টিকিট থেকে প্রাপ্ত সমস্ত অর্থ যাবে সুন্দরবনের মানুষের সাহায্যার্থে ঐক্যলিপির ‘রিবিন্ড সুন্দরবন’ প্রজেক্টে। আজ সেই প্ল্যাটফর্মে দানিশের অনুষ্ঠান। সঙ্গী শিল্পী গুলশনারা খাতুন (Gulshanara Khatun)।

এ প্রসঙ্গে TV9 বাংলাকে দানিশ বললেন, “আজকের অনুষ্ঠানের জন্য রবীন্দ্রনাথের ‘শিশু’ কাব্যগ্রন্থের কবিতা বেছে নিয়েছি। ছোটদের কবিতা আসলে বোধহয় ছোটদের পাশাপাশি বড়দের জন্যও লিখেছিলেন রবীন্দ্রনাথ। গুলজার কিছু কবিতার হিন্দি ট্রান্সলেশন করেছেন। কিছু ইংরেজিও রয়েছে। আর গুলজারের কিছু উর্দু কবিতা। আমি হিন্দি এবং উর্দুতে পাঠ করব। গুলশনারা বাংলায় পড়বেন। রবীন্দ্রনাথের থেকে বড় কে আর আছেন? আমি এই দুঃসময়ে এভাবেই কন্ট্রিবিউট করতে পারি। আমার সংস্কৃতির মাধ্যমে বাকিদের পাশে থাকতে পারি। মানুষকে সাহায্য করার এটাই তো পথ। যদি এই কাজের মাধ্যমে সাহায্য করতে পারি, আশা করি ভাল লাগবে সকলের।”

গুলশনারা জানালেন, গত বছর আমফানের পর থেকেই সুন্দরবনে কমিউনিটি কিচেন চালু করেছিলেন ঐক্যলিপি কর্তৃপক্ষ। গত বছরও বিভিন্ন শিল্পীদের নিয়ে ফান্ড রেজিং ইভেন্ট হয়েছিল। চলতি বছর ইয়াসের পর তাঁদের তরফে গুলশনারার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। গতকাল থেকে শুরু হয়েছে এই ভার্চুয়াল অনুষ্ঠান। গতকাল বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘তুচ্ছ’ গল্পটি পাঠ করেছিলেন তিনি। আজ রয়েছে দানিশের সঙ্গে তাঁর পারফরম্যান্স।

দানিশের মতো শিল্পীর সঙ্গে প্রথমবার কাজ। নতুন অনেক কিছু শিখছেন গুলশনারা। তাঁর কথায়, “ঘুম ভাঙল, ফোনে কথা হচ্ছে দানিশের সঙ্গে। আমরা ফোনে পড়লাম কবিতাগুলো। ভার্চুয়াল রিহার্সাল হল। কবিতা পাঠের মধ্যেও তো দু’জন মানুষের মধ্যে একটা টেক্সট তৈরি হয়। যেমন, আমি এই পর্যন্ত পড়ে থেমে যাব, তারপর তুমি শুরু করবে…। এই অভিজ্ঞতাটা মজার। এটাই হয়তো নিউ নর্মাল।”

গুলশনারা আরও জানান, দানিশ কবিতা পড়বেন উর্দু, হিন্দি বা ইংরেজি ভাষায়। কিন্তু তাঁর মনে হয়েছিল, যেহেতু এই অনুষ্ঠানের ৭৫ শতাংশ দর্শক বাঙালি, সেহেতু বাংলায় কবিতা পড়ার প্রয়োজন রয়েছে। সে কারণেই গুলশনরার কাছে দানিশের সঙ্গে যৌথ পারফরম্যান্সের অফার আসে।

এই অনুষ্ঠানের টিকিটের অর্থ মূল্য ৫০ টাকা। কেউ চাইলে তার থেকে বেশি অর্থও দান করতে পারেন। রবিবার সন্ধে ছ’টা থেকে শুরু হয়ে ন’টা পর্যন্ত অনুষ্ঠান চলবে। দানিশ এবং গুলশনরার পারফরম্যান্স দেখা যাবে সন্ধে সাতটায়। যাঁরা টিকিট কেটেছেন, ঐক্যলিপির ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে নির্দিষ্টি লিঙ্কের মাধ্যমে দেখতে পারবেন এই অনুষ্ঠান।

আরও পড়ুন, ‘কাউকে জোর করছি না, যিনি পারবেন এগিয়ে আসুন’, ত্রাণকার্যে সামিল ঐন্দ্রিলা

Latest News Updates

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla