Cancer Prevention: বিশেষজ্ঞরা জানালেন এই ফল খেলে ক্যানসারের সম্ভাবনা অনেকটাই কমে যায়, জেনে নিন অন্যান্য উপকারিতাও…

বর্তমানে ভারতে ড্রাগন ফ্রুটের চাহিদা ক্রমশই বৃদ্ধি পাচ্ছে। এই ফলটিকে দুই ভাগে কেটে, খুব সহজেই চামচ দিয়ে ভিতরের শাঁস খাওয়া যেতে পারে। তাছাড়া মিল্কশেক, কিংবা স্মুদি তৈরি করেও ড্রাগন ফ্রুট উপভোগ করা যেতে পারে।

Cancer Prevention: বিশেষজ্ঞরা জানালেন এই ফল খেলে ক্যানসারের সম্ভাবনা অনেকটাই কমে যায়, জেনে নিন অন্যান্য উপকারিতাও...

ক্যানসারের সমস্যা সমাধানের জন্য অনেক রকমের উপায়ই নেওয়া হয়েছে। এখনও অনেক আলোচনার মধ্যে দিয়ে চলেছে ক্যানসার নিরাময়ের চেষ্টা। কিন্তু এসবের মাঝে সম্প্রতিকালে বিশেষজ্ঞরা এমন এক ধরনের ফলের কথা বলেছেন যেটা খেলে ক্যানসারের সম্ভাবনা অনেকটাই কমে যায়। এই ফলের যদিও ক্যানসার প্রতিরোধী বৈশিষ্ট্য ছাড়াও অন্যান্য আরও নানান ধরনের বৈশিষ্ট্যই আছে। আজ আমরা ড্রাগন ফ্রুটের নানান উপকারি দিক সম্বন্ধে বিস্তারিত জেনে নেব। এই ফল যেমন ক্যানসার প্রতিরোধী তেমনই অন্যান্য নানান ধরনের রোগ প্রতিরোধী ক্ষমতা এর মধ্যে আছে।

ড্রাগণ ফ্রুট এক ধরনের ক্যাকটাস ভিত্তিক ফল। এটি আমাদের স্বাস্থ্যের ক্ষেত্রে অত্যন্ত উপকারি। ভিটামিন, খনিজ এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ ড্রাগন ফ্রুট, হজমে সাহায্য করা এবং রক্তে শর্করা মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখার পাশাপাশি, ক্যানসারের ঝুঁকি কমাতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। বর্তমানে ভারতে ড্রাগন ফ্রুটের চাহিদা ক্রমশই বৃদ্ধি পাচ্ছে। এই ফলটিকে দুই ভাগে কেটে, খুব সহজেই চামচ দিয়ে ভিতরের শাঁস খাওয়া যেতে পারে। তাছাড়া মিল্কশেক, কিংবা স্মুদি তৈরি করেও ড্রাগন ফ্রুট উপভোগ করা যেতে পারে।

১) উচ্চ পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ:

ড্রাগন ফ্রুট প্রয়োজনীয় ভিটামিন এবং খনিজ সমৃদ্ধ একটি ফল। এর ক্যালরি মাত্রাও তুলনামূলক অনেকটাই কম। এতে যথেষ্ট পরিমাণে ডায়েটরি ফাইবার রয়েছে। এক কাপ (২২৭ গ্রাম) ড্রাগন ফ্রুটে, ক্যালোরির মাত্রা ১৩৬, প্রোটিনের মাত্রা ৩ গ্রাম, ফ্যাটের মাত্রা শূন্য, ফাইবারের মাত্রা ৭ গ্রাম, আয়রনের মাত্রা ৮ শতাংশ, ম্যাগনেসিয়ামের মাত্রা ১৮ শতাংশ, ভিটামিন-সি এর মাত্রা ৯ শতাংশ, ভিটামিন-ই এর মাত্রা ৪ শতাংশ।

Benefits of Dragon Fruit

২) অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ:

এটি ফ্ল্যাভোনয়েড, ফেনোলিক অ্যাসিড এবং বিটাসায়ানিন-এর মতো অ্যান্টিঅক্সিডেন্টে সমৃদ্ধ। এই প্রাকৃতিক পদার্থগুলি আপনার কোষগুলিকে ফ্রি ব়্যাডিক্যালের হাত থেকে রক্ষা করে। এটি এক প্রকার অণু, যা ক্যান্সার এবং অকাল বার্ধক্যের মতো রোগের কারণ হতে পারে।

৩) ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমায়:

এটি ফাইবার সমৃদ্ধ হওয়ায় রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। এই ফলের নিয়মিত সেবন রক্তে শর্করার ভারসাম্যতা বজায় রাখে।

৪) ক্যানসারের ঝুঁকি কমায়:

এই ফলের মধ্যে ক্যানসার বিরোধী বৈশিষ্ট্য থাকে। এটি কোলন ক্যানসারের ঝুঁকি কমাতে অত্যন্ত উপকারি। তাছাড়া এই ফল ভিটামিন সি সমৃদ্ধ হওয়ায় শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে শক্তিশালী করে তুলতেও সাহায্য করে। এটি বিভিন্ন দীর্ঘস্থায়ী রোগ যেমন ক্যানসার, ডায়াবেটিস, অ্যালজাইমার এবং পারকিনসনের মতো রোগের ঝুঁকি কমাতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

৫) হজমের জন্য ভাল এই ফল:

অল্গিওস্যাকারাইডসের দুর্দান্ত উৎস এই ফল। এটি শরীরে ভাল ব্যাকটেরিয়া বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। যার ফলে হজম ক্ষমতাও ভাল হয়। তাছাড়া এটি ফাইবার সমৃদ্ধ হওয়ায় হজমের স্বাস্থ্যকেও ভাল রাখতে পারে।

৬) হার্টের জন্য উপকারি:

ড্রাগন ফ্রুটের ছোট ছোট কালো বীজগুলি ওমেগা-৩ এবং ওমেগা-৯ ফ্যাটি অ্যাসিড সমৃদ্ধ। এগুলি হার্টের জন্য খুবই ভাল এবং কার্ডিওভাসকুলার রোগের ঝুঁকি কমায়। তাই ড্রাগন ফ্রুটের সেবন হার্টের স্বাস্থ্যের ক্ষেত্রে অত্যন্ত উপকারি। এটি হার্ট ভাল রাখার পাশাপাশি রক্তচাপ আর ওজন নিয়ন্ত্রণেও সাহায্য করে।

আরও পড়ুন: International Men’s Day: Erectile Dysfunction: বিশেষজ্ঞের থেকে জেনে নিন ১৬ থেকে ২৬ বছর বয়সী যুবকের ইরেক্টাইল ডিসফাংশনের সমস্যায় কী করণীয়…

আরও পড়ুন: World Toilet Day 2021: মহিলারা ইউরিনের বেগ চেপে রাখছেন! বাড়ছে ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশনের ভয়!

আরও পড়ুন: Eye Problems: ডিজিটাল স্ট্রেন আর কাজের চাপ থেকে চোখকে সুরক্ষিত রাখবেন কীভাবে?

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla