করোনায় অভিভাবকহীন শিশুদের শিক্ষার খরচ বহন সহ একাধিক সুবিধা ঘোষণা করল ত্রিপুরা সরকার

১৮ বছর বয়স অবধি অনাথ শিশুদের দায়িত্বভার গ্রহণের জন্য মুখ্যমন্ত্রী বাল্য সেবা প্রকল্পের ঘোষণা করেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। তিনি জানান, করোনা সংক্রমণে অবিভাবকহীন হয়ে পড়া সমস্ত শিশুর শিক্ষার খরচ বহন করবে রাজ্য সরকার।

করোনায় অভিভাবকহীন শিশুদের শিক্ষার খরচ বহন সহ একাধিক সুবিধা ঘোষণা করল ত্রিপুরা সরকার
ফাইল চিত্র।

আগরতলা: করোনা সংক্রমণের জেরে অভিভাবকহীন শিশুদের শিক্ষার সমস্ত খরচ বহন করবে রাজ্য সরকার, শনিবার এ কথা ঘোষণা করলেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব (Biplab Kumar Deb)। একইসঙ্গে, যাঁরা অনাথ আশ্রমে থাকছেন না, ১৮ বছর বয়স অবধি তাঁদের প্রতি মাসে সাড়ে তিন হাজার টাকা করে দেওয়া হবে বলেও জানান মুখ্যমন্ত্রী।

রাজ্যের শীর্ষ আধিকারিকদের সঙ্গে বিশেষ বৈঠকের পরই শনিবার এই সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। ১৮ বছর বয়স অবধি অনাথ শিশুদের দায়িত্বভার গ্রহণের জন্য “মুখ্যমন্ত্রী বাল্য সেবা প্রকল্প” (Mukhyamantri Balya Seva Prakalpa)-র ঘোষণা করে তিনি বলেন, “করোনা মহামারীতে মা-বাবাকে হারিয়ে কোনও শিশু যেন অসহায় পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে না যায়, সেই কামনাই করছি। কিন্তু কেউ যদি এই কঠিন পরিস্থিতির মুখে পড়ে, তবে রাজ্য সরকার তাঁদের কাছে সাহায্য পৌঁছে দিতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।”

মুখ্যমন্ত্রী জানান, এই নতুন প্রকল্প অনুযায়ী রাজ্য সরকার সেই সমস্ত শিশুর শিক্ষাভার গ্রহণ করবে, যাঁরা করোনা সংক্রমণে অবিভাবকহীন হয়ে পড়েছে। যাঁরা অনাথ আশ্রমে থাকছে, তাঁদের পড়াশোনার সমস্ত খরচ বহন করবে রাজ্য সরকার। এছাড়া যাঁরা অন্য কোনও অভিভাবকের সঙ্গে থাকছে, তাঁদের ১৮ বছর বয়স অবধি মাসিক ৩ হাজার ৫০০ টাকার আর্থিক সহায়তাও প্রদান করা হবে।

মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের গণ্ডি অতিক্রম করার পর এই প্রকল্পের অধীনে সকলকে বিনামূল্যে ল্যাপটপ বা ট্যাবলেট দেওয়া হবে বলেও জানান মুখ্যমন্ত্রী। মেয়েদের ক্ষেত্রে, বিয়ের সময় এককালীন ৫০ হাজার টাকার আর্থিক সাহায্যের ঘোষণাও করেন তিনি। এছাড়া স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সমস্ত জনকল্যাণ পরিষেবাও অনাথ শিশুদের দেওয়ার কথা উল্লেখ করেন বিপ্লব দেব।

আরও পড়ুন: Mann ki Baat: ‘১০ গুণ উৎপাদন বেড়েছে অক্সিজেনের’, সরকারের সপ্তম বর্ষপূর্তিতে কী বার্তা দিলেন নমো?

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla