শীতলকুচিকাণ্ডে ফের সিআইডি-তলব এড়াল ৬ কেন্দ্রীয় জওয়ান, সময় চাইল সাতদিন

Sitalkuchi Case: এর আগেও সাক্ষী হিসাবে ছয় জওয়ানকে ডাকা হয়েছিল। অভিযোগ, সকলেই সিআইডির জিজ্ঞাসাবাদ এড়িয়ে যান।

শীতলকুচিকাণ্ডে ফের সিআইডি-তলব এড়াল ৬ কেন্দ্রীয় জওয়ান, সময় চাইল সাতদিন
ফাইল ছবি

কলকাতা: শীতলকুচি কাণ্ডে সাতদিন সময় চাইল সিআইএসএফ। ৩ অগস্ট মঙ্গলবার ভবানী ভবনে হাজিরা দেওয়ার কথা ছিল তাদের। কিন্তু ইমেল মারফৎ তারা সিআইডিকে জানিয়েছে, তাদের সাতদিন সময় দেওয়া হোক।

শীতলকুচিকাণ্ডে ৬ কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানকে নথি নিয়ে তলব করা হয়েছিল ভবানী ভবনে। ২ ও ৩ অগস্ট তিনজন করে মোট ছ’জন জওয়ানকে সিআইডি ডেকে পাঠায়। এই তালিকায় দু’জন অফিসার এবং চারজন কনস্টেবল রয়েছেন। সিআইডি সূত্রের খবর, ঘটনার দিন কোন অস্ত্র ব্যবহার হয়েছে সেই সংক্রান্ত নথি দেখতে চেয়েছে তদন্তকারীরা। একই সঙ্গে তারা জানতে চেয়েছে, ঘটনার দিন এই ছ’জনের কে কোথায় কোন দায়িত্বে ছিলেন। নথি নিয়ে হাজির হতে বলা হয়েছে।

ভোট চতুর্থীর সকাল থেকেই শিরোনামে ছিল শীতলকুচি। রাত থেকে কড়া প্রহরা ছিল কেন্দ্রীয় বাহিনী, পুলিশের। নজর ছিল কমিশনেরও। তবুও রোখা সম্ভব হয়নি হিংসা। সকালেই পাঠানটুলিতে আনন্দ বর্মন নামে তেইশ বছরের এক তরুণের মৃত্যু হয়। তার ঘণ্টা খানেকের খবর আসে মাথাভাঙা ও শীতলকুচির মধ্যবর্তী এলাকা জোরপাটকিতে গুলি চালিয়েছে কেন্দ্রীয় বাহিনী। তাতে চার জনের মৃত্যু হয়। ঘটনার গোটা বাংলায় শোরগোল পড়ে যায়।

এর আগেও সাক্ষী হিসাবে ছয় জওয়ানকে ডাকা হয়েছিল। অভিযোগ, সকলেই ভবানী ভবনের এই তলব এড়িয়ে যান। এরই মধ্যে দ্বিতীয়বার তথ্য চাওয়ার জন্য কেন্দ্রীয় বাহিনীকে তলব করা হলেও হাজির হল না কেউ। তৃতীয়বার মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে যেদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শপথ গ্রহণ করেন, সেদিনই শীতলকুচিকাণ্ডের তদন্তে বিশেষ তদন্তকারী দল গঠনের নির্দেশ দেন। সিট তদন্তের শুরুতেই কেন্দ্রীয় বাহিনীর ছয় জওয়ান ও দু’জন অফিসারকে তলব করা হয়। ডাকা হয় মাথাভাঙা থানার সাব ইন্সপেক্টরকেও। একইসঙ্গে কোচবিহারের প্রাক্তন এসপিকেও ডেকে পাঠানো হয়। আরও পড়ুন: কয়লা ও গরুকাণ্ডে বিনয় মিশ্রকে দেশে ফেরাতে মরিয়া সিবিআই! জারি হতে চলেছে দ্বিতীয় রেড কর্নার নোটিস

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla