Bear: ডুয়ার্সে চা-বাগানে ভালুক-আতঙ্ক! ঘুমপাড়ানি গুলিতে তিনি কাবু হতেই স্বস্তি

Dooars: ফের ডুয়ার্সের লোকালয়ে ভালুকের (Bear) আতঙ্ক। এবার ডুয়ার্সের (Dooars) ভগৎপুর চা বাগানে ভালুক ভয়ে হুলুস্থুল এলাকায়। গত বুধবারই ভালুকের হামলায় মৃত্যু হয়েছে এক কিশোরের।

Bear: ডুয়ার্সে চা-বাগানে ভালুক-আতঙ্ক! ঘুমপাড়ানি গুলিতে তিনি কাবু হতেই স্বস্তি
ফের দেখা মিলল ভালুকের। নিজস্ব চিত্র।

জলপাইগুড়ি: ফের ডুয়ার্সের লোকালয়ে ভালুকের (Bear) আতঙ্ক। এবার ডুয়ার্সের (Dooars) ভগৎপুর চা বাগানে ভালুক ভয়ে হুলুস্থুল এলাকায়। গত বুধবারই ভালুকের হামলায় মৃত্যু হয়েছে এক কিশোরের। তার পর সেই ভালুককেও পিটিয়ে মেরে ফেলে স্থানীয়রা। শনিবার ফের চা-বাগান এলাকায় ভালুক দেখে তীব্র আতঙ্ক ছড়ায়। জানা যায়, চা-বাগানে কাজ করতে গিয়ে ভালুক দেখেন কয়েকজন। তাঁদের তেড়ে আসে ভালুকটি।

এর পর ভালুক ধরতে প্রথমে আসরে নামেন জলপাইগুড়ি ও গরুমারা বন্যপ্রাণী বিভাগের বনকর্মীরা। পরিস্থিতি সামাল দিতে নামানো হয় র‍্যাফ ও বনকর্মীদের। তার পর দিনভর চেষ্টা চালানোর পর অবশেষে ঘুমপাড়ানি গুলিতে কাবু হল ভালুক বাবাজি।

বুধবারের পর শনিবার মেটেলি চা বাগানের পর জগতপুর চা বাগানে ফের ভালুকের দেখা পাওয়া যায়। স্বাভাবিক ভাবেই চিন্তা বাড়ে বনকর্মীদের। কারণ কয়েক দিন আগের মেটলির ঘটনা রীতিমতো আতঙ্ক তৈরি করেছিল কর্মীদের মধ্যে। এবার যাতে ভালুক কাউকে আক্রমণ না করে, আবার কোনও ভাবে তাকে যাতে পিটিয়ে হত্যা করতে না পারে গ্রামবাসীরা, তার জন্য আগে থেকে প্রস্তুত ছিল বনকর্মীরা।

এবার নাগরাকাটা ব্লকের সুলকাপাড়া গ্রামপঞ্চায়েত এলাকার ছাড়টন্ডু বস্তির কাছে ভগতপুর চা-বাগানে ভালুকটি ঢুকে পড়ে। শনিবার সকালে বেশ কয়েকজন চা-বাগানে স্প্রে করতে গিয়ে ভালুকের মুখোমুখি হয়। তাঁদের বক্তব্য, ভালুকটি তাদের হামলা করার চেষ্টা করতেই তাঁরা স্প্রে-এর মেশিনপত্র ফেলে ভয়ে দৌড় লাগান। এর পর খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে চলে আসে খুনিয়া, ডায়না, মালবাজার, বিন্নাগুড়ি, রামসাই, বীরপাড়া-সহ বিভিন্ন এলাকার রেঞ্জের বনকর্মিরা। পৌঁছে যায় নাগরাকাটা থানার পুলিসও। প্রশাসন ওই চা-বাগানে নজরদারি শুরু করেছিল সকাল থেকে। এদিকে এই ভালুকের জন্য গোটা ছাড়টন্ডু বস্তি এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

খুনিয়া রেঞ্জের রেঞ্জার রাজকুমার লায়েক জানান, বিস্তর খোঁজাখুঁজির পর ভালুকটিকে খুঁজে পাওয়া যায় বিকাল ৪ টা নাগাদ। তার পর বনকর্মীদের ঘুমপাড়ানি গুলিতে কাবু হয় ভালুকটি। তাকে উদ্ধার করে প্রথমে নিয়ে যাওয়া হয় গরুমারা জাতীয় উদ্যানের প্রকৃতি পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে। সেখান থেকে বিকেলের পর ভালুকটিকে নেওড়াভ্যালি জাতীয় উদ্যানে নিয়ে যাওয়া হয়। সুস্থ করে সেখানেই ছেড়ে দেওয়া হয় তাকে।

আরও পড়ুন: Diamond Harbour Child Recover: ‘মা কই?’, ফুল-ফুল জামা পরে ফুলের মতন মেয়েটা শুধু আঙুল উঁচিয়ে দেখাচ্ছিল চলন্ত ট্রেন…রহস্য সেখানেই

ভালুকটিকে ঘুমপাড়ানি গুলি করে ট্রান্কুলাইস করে গরুমারা জাতীয় উদ্যানের লাটাগুড়ি প্রকৃত পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয় এবং পরে সেখান থেকে নেওরাভ্যালি জাতীয় উদ্যানে নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়।

আরও পড়ুন: Sundarban: মন খারাপের দিন শেষ! সুন্দরবনে পর্যটকদের বাঘ,কুমির, হরিণ দেখানোর গ্যারান্টি বনদফতরের

আরও পড়ুন: TMC: তৃণমূল নেতার পুকুর ছোট হয়ে যাবে, তাই রাস্তায় ‘না’ পুরসভার! কোমর জলে পারাপার বাসিন্দাদের

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla