স্বামী বাইরে থাকেন, অন্য যুবকের সঙ্গে ‘লিভ ইন’ করেছিলেন স্ত্রী! ভিডিয়ো করে ফেসবুকে ছড়ালেন বৌদি

দাসপুরের (Paschim Medinipur) পাঁচবেড়িয়া করুণাচকের এই ঘটনা প্রশ্ন তুলেছে সমাজের বুকে।

স্বামী বাইরে থাকেন, অন্য যুবকের সঙ্গে 'লিভ ইন' করেছিলেন স্ত্রী! ভিডিয়ো করে ফেসবুকে ছড়ালেন বৌদি
নিজস্ব চিত্র

পশ্চিম মেদিনীপুর: রীতিমতো খাপ পঞ্চায়েত (kangaroo court)! বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের অভিযোগে তালিবানি শাস্তি দিয়ে দড়ি দিয়ে খুঁটিতে বাঁধা হল যুবককে। বধূর জুটল গণধোলাই। শুধু তাই নয়, শাস্তির ভিডিয়ো তুলে ছড়িয়েও দেওয়া হল সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে দাসপুরের (Paschim Medinipur) পাঁচবেড়িয়া করুণাচকে।

স্বামীর অনুপস্থিতির সুযোগে ওই যুবকের সঙ্গে একত্রে বসবাস করছেন বধূ- এমনই অভিযোগ এলাকাবাসীর। তাতেই বসেছিল গণ-আদালত। যুগলের হেনস্থার খবর পেয়ে দাসপুর থানার পুলিশ গিয়ে তাঁদের উদ্ধার করে। প্রতিবেশীদের অভিযোগ, কুমারীচক গ্রামের ঘাঁটা পাড়ার ওই গৃহবধূর স্বামী কর্মসূত্রে ভিনরাজ্যে থাকেন।

পরিবারের নতুন পাকাবাড়িতে একাই থাকছিলেন ওই গৃহবধূ। প্রতিবেশীদের সন্দেহ হয়, ওই বাড়িতে গৃহবধূর সঙ্গে এক যুবকও থাকত। তাদের এক সঙ্গে বসবাসের ক্ষেত্রে আপত্তি তুলছিলেন বাসিন্দারা। মঙ্গলবার রাতেও ওই বাড়িতে যুবকের দেখা পেয়েই হেনস্থার শুরু।

প্রতিবেশীদের দাবি, দীর্ঘদিন ধরেই তাঁদের সন্দেহ হত। ওই গৃহবধূ যখনই বাড়ি থেকে বেরোত, তখনই দরজায় শিকল দিয়ে যেত। মঙ্গলবার বাড়ি থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর শিকল দিতে ভুলে যায় গৃহবধূ। সে সময় পাড়ারই এক মহিলা তাঁকে ডাকতে ভিতরে যান। ওই যুবককে খাটে শুয়ে থাকতে দেখেন তিনি।

আরও পড়ুন: উত্তপ্ত লাভপুর, তৃণমূল কর্মীর স্ত্রী ও মাকে ‘মারধর’

সঙ্গে সঙ্গে ওই মহিলা বাড়ি থেকে বেরিয়ে বাইরে থেকে দরজায় শিকল দিয়ে দেন। পাড়া প্রতিবেশীদের ডেকে আনেন তিনি। ওই গৃহবধূ ও যুবককে বেঁধে মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। ফোনে সমস্ত বিষয় জানানো হয় ভিনরাজ্যে কর্মরত তাঁর স্বামীকে। প্রতিবেশীদের দাবি, গৃহবধূর স্বামী ওই যুবকের সঙ্গেই তাঁর স্ত্রীর বিয়ে দিয়ে দেওয়ার প্রস্তাব দেন। দাসপুর পুলিশ গিয়ে যুবককে উদ্ধার করে নিয়ে যায়। অন্যদিকে, ওই গৃহবধূকে তাঁর বাপেরবাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।