‘মানাতে পারছে না বিজেপি,’ দিলীপ-শুভেন্দুতে অভিমানী সুনীলের ‘ঘরওয়াপসি’?

সুনীলের (Sunil Mandal) কথায়, "আমার সঙ্গে যে প্রতিজ্ঞা করেছিল, যে কথোপকথন হয়েছিল, তার একটা অক্ষর মানেনি শুভেন্দু। শুধু আমার সঙ্গে নয় অনেকেরই কথা রাখেনি। ওঁর কথা বলতেই চাই না।''

'মানাতে পারছে না বিজেপি,' দিলীপ-শুভেন্দুতে অভিমানী সুনীলের 'ঘরওয়াপসি'?
ফাইল চিত্র

পূর্ব বর্ধমান: দিলীপ ঘোষ, তথাগত রায়, শুভেন্দু অধিকারী থেকে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা, সবার উদ্দেশে তোপ দাগলেন বর্ধমান পূর্বের সাংসদ সুনীল মণ্ডল (Sunil Mandal)। ঘরওয়াপসির মরসুমে দিলেন ফেরার ইঙ্গিত।

মঙ্গলবার বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ থেকে যে শুভেন্দুর সঙ্গে তিনি বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন, সবাইকেই এক পঙক্তিতে ফেলে আক্রমণ করলেন সুনীল মণ্ডল। কিন্তু কী অভিযোগ তাঁর? সুনীলের কথায় “যারা তৃণমূল থেকে বিজেপিতে এসেছে, তাদের বিজেপি মানিয়ে নিতে পারছে না। তাদের কাজেও লাগানো হচ্ছে না।”

দলবদলুদের নিয়ে দিলীপ ঘোষ ও তথাগত রায়ের মতো বিজেপি নেতাদের কথায় তিনি ব্যথিত বলে জানান সুনীল। তিনি বলেন, “যারা তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে গিয়েছে তাদের মানিয়ে নিতে পারছে না। মানে সহ্য করতে পারছে না বলব…” এদিন সাংবাদিক বৈঠক করে সাংসদ আরও বলেন, “যাঁরা তৃণমূল থেকে বিজেপিতে এসেছিলেন, তাঁদের অনেকেই বিচক্ষণ রাজনীতিবিদ। বিজেপি মনে করছে এদের বিশ্বাস করাটা ঠিক নয়।”

তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে গেলেও এখনও সাংসদ পদ ছাড়েননি সুনীল। তাঁর সাংসদ পদ খারিজের আবেদন জানিয়ে স্পিকারকে চিঠি দিয়েছেন সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়। যার প্রেক্ষিতে ‘বীরের মত ইস্তফা দিয়ে ফের জিতে আসব’ মন্তব্য করা সুনীল এদিন বলেন, বিজেপিতে এসেছিলেন সংগঠন দেখে। কিন্তু সেখানে গিয়ে তিনি আশাহত। তাঁদের বিশ্বাস করা হচ্ছে না বলে দাবি তাঁর।

পাশাপাশি একুশের ভোটে বিজেপির ভরাডুবির জন্য কেন্দ্রীয় নেতাদের জোর সমালোচনা করেন সুনীল। বলেন, ” বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতাদের রাজনৈতিক জ্ঞান, ভাষা অন্তরায় হয়ে দাঁড়িয়েছিল। ব্লক ও পঞ্চায়েত স্তরের কর্মীদের কাছে পৌঁছতে পারিনি আমরা। খালি মিটিং-মিছিল করলে তো হবে না।” এর পর শুভেন্দু প্রসঙ্গে তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করেন সুনীল।

শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে বাড়িতে বৈঠক করে গত ডিসেম্বরের ঠান্ডায় তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যাওয়া সুনীলের কথায়, “আমার সঙ্গে যে প্রতিজ্ঞা করেছিল, যে কথোপকথন হয়েছিল, তার একটা অক্ষর মানেনি শুভেন্দু। শুধু আমার সঙ্গে নয়, অনেকেরই কথা রাখেনি। ওঁর কথা বলতেই চাই না।” যদিও কী প্রতিজ্ঞা হয়েছিল তা বিস্তারিত করতে চাননি তিনি।

আরও পড়ুন: ‘বেসুরো’তেই বিড়ম্বনা! আরও চাপ বাড়ল রাজীবের 

তবে এখন কি তৃণমূলে? সাংসদের দাবি, তৃণমূলের কারও সঙ্গে তাঁর যোগাযোগ হয়নি। তবে বিজেপি ছেড়ে কোথায় যাবেন সে ভাবনা-চিন্তা চলছে বলে জানান বর্ধমান পূর্বের সাংসদ।

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla