Shruti Das: চিরাচরিত প্রথা ভাঙলেন শ্রুতি, ‘মিমি ভাত’ খাওয়ালেন বোনপোকে

মামাভাতের প্রথাকে বুড়ো আঙুল দেখালেন অভিনেত্রী শ্রুতি দাস ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা। শ্রুতি তাঁর বোনপোর মুখে প্রথম ভাত তুলে দিয়েছেন সম্প্রতি।

Shruti Das: চিরাচরিত প্রথা ভাঙলেন শ্রুতি, 'মিমি ভাত' খাওয়ালেন বোনপোকে
শ্রুতি দাস।

সমাজের কিছু নিয়ম পুরুষদের কেন্দ্র করেই তৈরি হয়েছে। কেন হয়েছে, সেই ব্যাখ্যা কেউ দিতে পারেন না। যেমন ধরুন, ভাইফোঁটা, জামাইষষ্ঠী, মামা ভাত কিংবা পৌরহিত্য। কিন্তু সময় পালটেছে। মহিলারাই এগিয়ে এসে পালটে দিচ্ছেন সব নিয়ম। তৈরি করছেন নিজেদের নতুন নতুন প্রথা। ঠিক যেমনটা করলেন বাংলার সিরিয়াল জগতের অভিনেত্রী শ্রুতি দাস। কেবল মুখে নয়, কাজে করে দেখিয়েছেন শ্রুতি। সম্প্রতি দিদির ছেলের মুখেভাত ছিল। এই প্রথাকে সমাজ আরও একটি নামে চেনে – মামা খাত। কেননা মামারাই বোনপো কিংবা বোনজিদের কোলে বসিয়ে জীবনের প্রথম ভাত খাওয়ান। মামা না থাকলে, সেই কাজ করেন দাদু (মায়ের বাবা)। কিন্তু কখনও কি শুনেছেন, মাসি কিংবা দিদা শিশুর মুখে প্রথম ভাত তুলে দিয়েছেন?

সেই প্রথাকেই এবার বুড়ো আঙুল দেখালেন অভিনেত্রী শ্রুতি দাস ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা। শ্রুতি তাঁর বোনপোর মুখে প্রথম ভাত তুলে দিয়েছেন সম্প্রতি। আনন্দের সঙ্গে ও গর্বের সঙ্গে ক্যাপশনে তিনি লিখেওছেন, “নিজের বোনপোকে ‘মিমি (পড়ুন মাসি) ভাত’ খাওয়ানোর মজাই আলাদা… সঙ্গে সাক্সেস ও প্রথা ভাঙার আলাদাই আনন্দ। কেন সবসময় মামাভাত? মা-মাসিরাই তো খাওয়ায় রোজ বাচ্চাদের। বাবা-মেসোরা কদাচিৎ।”

সেই সঙ্গে শ্রুতি আরও একটি প্রশ্ন তুলে ধরেছেন সমাজের সামনে। তিনি বলতে চেয়েছেন, সারা বছর মা, মাসি, কাকিমা, পিসিরাই হাজার লড়াই ও যুদ্ধ করে বাচ্চাকে খাওয়াতে সক্ষম হন। বাবা ও পরিবারের অন্যান্য পুরুষরা কতজনই বা সেই কাজ করেন সারাবছর!
টেলিপাড়ার স্পষ্টবাদী অভিনেত্রী হিসেবে জনপ্রিয় শ্রুতি। তিনি প্রতিভাময়ী। গায়ের রং নিয়ে দীর্ঘদিন কটাক্ষ সহ্য করেছেন একটা সময়। তবে চুপ করে থাকেননি। মুখ খুলেছেন। প্রতিবাদ করে আইনি ব্যবস্থাও নিয়েছেন। তাঁর আন্দোলনে পাশে পেয়েছেন অনেককেই। সকলেই তাঁকে বাহবা জানিয়েছেন।

Published On - 3:42 pm, Thu, 13 January 22

Related News

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla