‘লকডাউনে বাড়ি থেকে শুটের নামে ভাড়া বাড়ি, হোটেলে শুট হচ্ছে’, ফের বিস্ফোরক ফেডারেশন

প্রসঙ্গত, গত রবিবার আর্টিস্ট ফোরামের তরফে শুট ফ্রম হোমকে সমর্থন জানিয়ে যে বিবৃতি প্রকাশ করা হয়েছিল সেখানে বলা হয়েছিল, গত বছর লকডাউনের সময় টেকনিশিয়ানদের আর্টিস্ট ফোরামের তরফে অর্থসাহায্যের কথা।

'লকডাউনে বাড়ি থেকে শুটের নামে ভাড়া বাড়ি, হোটেলে শুট হচ্ছে', ফের বিস্ফোরক ফেডারেশন
প্রতীকী ছবি।
বিহঙ্গী বিশ্বাস

|

Jun 01, 2021 | 10:49 PM

জট  কাটছে না কিছুতেই…

বাড়ি থেকে শুট নিয়ে ফেডারেশন এবং প্রোডিউসারস গিল্ডের তর্জা অব্যাহত আজও। আজ অর্থাৎ মঙ্গলবার বিকেলে আবারও এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে প্রোডিউসারস গিল্ডের উপর আবারও ক্ষোভ উগরে দিল সিনে ফেডারেশন। একই সঙ্গে ওই সংগঠনের বিস্ফোরক অভিযোগ, লকডাউন বিধি অমান্য করে বাড়ি থেকে শুটের নামে ভাড়া বাড়ি, এমনকি অতিথিশালাতেও শুট চালিয়েছে প্রযোজনা সংস্থাগুলি।

১৫ পাতার ওই প্রেস বিবৃতিতে ফেডারেশনের তরফে প্রযোজকদের উদ্দেশ্যে বেশ কয়েকটি প্রশ্ন তোলা হয়েছে। একই সঙ্গে টলিপাড়ার নামজাদা প্রযোজক স্নেহাশিষ চক্রবর্তী এবং সুশান্ত দাসের নাম উল্লেখ করে ফেডারেশের পক্ষ থেকে লেখা হয়েছে, “নতুন পদ্ধতিটিকে ওয়ার্ক ফ্রম হোম বলা হলেও আমরা দেখতে পাচ্ছি, এমন বেশ কিছু দৃশ্য সম্প্রচারিত হয়েছে ও হচ্ছে যা যারও বসতবাড়িতে শুটিং নয়…দৃশ্যপট দেখেই বোঝা যাচ্ছে… ভাড়া বাড়ি, হোটেল বা অতিথিশালা ইত্যাদি জায়গায় গৃহীত হয়েছে…”। তাঁদের আরও অভিযোগ, দ্বিচারিতা করেছেন কিছু প্রযোজক যা মানসিক ভাবে আঘাত করেছে কলাকুশলীদের।

আরও পড়ুন, শুটিং জট: প্রযোজকদের পাশে আর্টিস্ট ফোরাম, অসহযোগিতার হুঁশিয়ারি ফেডারেশনের

এর আগে প্রোডিউসারস গিল্ডের তরফে জানানো হয়েছিল কলাকুশলীদের নিয়েই কাজ করতে চান তাঁরা। যে সমস্ত কলাকুশলী এই সময়ে কাজ করতে পারছেন তাঁদের প্রাপ্য সাম্মানিকও দেওয়া হবে। আর এই সাম্মানিক নিয়েই এ দিনের এই প্রেস বিবৃতিতে প্রশ্ন তুলেছে ফেডারেশন। তাঁরা লিখেছেন, “আজ আপনারা যদি এই সাম্মানিক মজুরি দেন, কাল আপনারাই বলে বসতে পারেন, কলাকুশলীরা কাজ না করেই জোর করে মজুরি আদায় করেছেন…”।

আরও পড়ুন, ‘প্রতিশ্রুতিই সার, টেকনিশিয়ানদের মাত্র ৩০% টাকা দেওয়া হয়েছে’, আবারও ক্ষোভ উগরে দিল ফেডারেশন

প্রসঙ্গত, গত রবিবার আর্টিস্ট ফোরামের তরফে শুট ফ্রম হোমকে সমর্থন জানিয়ে যে বিবৃতি প্রকাশ করা হয়েছিল সেখানে বলা হয়েছিল, গত বছর লকডাউনের সময় টেকনিশিয়ানদের আর্টিস্ট ফোরামের তরফে অর্থসাহায্যের কথা। এ দিনের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে ফেডারেশনের দাবি কলাকুশলীরা যাতে অন্য প্রযোজনায় না চলে যান সেই কারণেই পূর্ণ মজুরি না দিয়ে রিটেইনিং অ্যালাউন্স দিয়েছিল প্রযোজক-ফোরাম..। এ প্রসঙ্গে টিভিনাইন বাংলার তরফে ফেডারেশনের সভাপতি স্বরূপ বিশ্বাসের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, “সবার সামনে এই বিষয়টি টেনে আনা আমাদের অসম্মানেরই সামিল। আত্মসম্মান বিকিয়ে কিছু নয়। প্রয়োজনে ওই অর্থ আমরা ফিরিয়ে দিতে পারি।”

এই বিবৃতির পরিপ্রেক্ষিতে প্রোডিউসারস গিল্ডের দুই প্রযোজক সুশান্ত দাস এবং স্নেহাশিষ চক্রবর্তীর সঙ্গে যোগাযোগ করেছিল টিভিনাইন বাংলা। স্নেহাশিষবাবু এ দিনই করোনায় হারিয়েছেন তাঁর প্রিয়জনকে। তাই এই মুহূর্তে এই ব্যাপারে কিছু মন্তব্য করার অবস্থায় তিনি নেই বলেই জানিয়েছেন। অন্যদিকে সুশান্ত দাসের বক্তব্য, “নিয়ম ভঙ্গ করে আমরা কিছু করিনি। যে যে অভিযোগ ওরা তুলেছে তার প্রত্যেকটির উত্তর আমাদের রয়েছে। খুব শীঘ্রই প্রেস বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে ওই বক্তব্যের উত্তর আমরা দেব। আজ আর এর চেয়ে বেশি কিছু বলতে চাই না।” তবে ফেডারেশনের সভাপতির কার্যকারিতা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন সুশান্ত।

একদিকে যখন তর্জা জারি, অন্যদিকে একে একে প্রতিটি ধারাবাহিকেরই শেষ হয়ে যাচ্ছে ব্যাঙ্কিং। বেশ কিছু ধারাবাহিকের ব্যাঙ্কিংয়ের ঘাটতির কারণে ইতিমধ্যে সম্প্রচারিত হচ্ছে বাড়ি থেকেই শুট করা এপিসোড। একে বাড়ি থেকে শুটের চাপ, এরই মধ্যে ফেডারেশন এবং প্রযোজকদের এই প্রকাশ্য বিরোধিতায় উত্তেজনা বাড়ছে ইন্ডাস্ট্রির অন্দরেও, কান পাতলেই শোনা যাচ্ছে ফিসফাস…গুঞ্জন… ।

Latest News Updates

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla