‘করোনা টিকার ঘাটতি গুরুতর বিষয়, উৎসব নয়’ নমোকে চিঠি লিখে রফতানি বন্ধের আর্জি রাহুলের

প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখে টিকা রফতানি বন্ধ করে দ্রুত দেশবাসীদের টিকা দেওয়ার আর্জিও জানিয়েছেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী।

  • TV9 Bangla
  • Published On - 13:12 PM, 9 Apr 2021
'করোনা টিকার ঘাটতি গুরুতর বিষয়, উৎসব নয়' নমোকে চিঠি লিখে রফতানি বন্ধের আর্জি রাহুলের
ফাইল চিত্র।

নয়া দিল্লি: টিকা ভাণ্ডারে আকাল নিয়ে অভিযোগ তুলেছে দেশের একাধিক রাজ্য, এ দিকে দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে পর্যালোচনা বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী টিকাকরণে গতি আনতে উল্লেখ করেছেন “টিকা উৎসব”-র। ভ্যাকসিনের ঘাটতির মাঝেও প্রধানমন্ত্রীর উৎসবের কথায় এ বার এক হাত নিলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। ইতিমধ্যেই প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখে করোনা টিকার রফতানি বন্ধের আর্জি জানিয়েছেন তিনি।

দেশে করোনা ভ্যাকসিনের আকাল দেখা দিলেও কেন্দ্র কেন বিদেশে টিকা রপ্তানি করছে, এই প্রশ্ন তুলে রাহুল গান্ধী বলেন, “যেভাবে করোনা সঙ্কট বৃদ্ধি পাচ্ছে, সেখানে টিকার আকাল অত্যন্ত গুরুতর একটি বিষয়। দেশের বাসিন্দাদের জীবনের তোয়াক্কা না করে বিদেশে টিকা রপ্তানি কী সঠিক? কেন্দ্রীয় সরকারের উচিত সব রাজ্যকে সাহায্য করা। আমাদের সবাইকে একসঙ্গে মিলিত হয়ে কাজ করা উচিত।”

একইসঙ্গে তিনি প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখে টিকা রপ্তানি বন্ধ করে দ্রুত দেশবাসীদের টিকা দেওয়ার আর্জিও জানিয়েছেন তিনি। রাহুলের বক্তব্য, বর্তমানে দেশে ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করেছে করোনাভাইরাস। এই পরিস্থিতিতে বিদেশে রফতানির বদলে প্রথমে দেশবাসীকে টিকা দেওয়া উচিত।

আরও পড়ুন: ব্রেকিং: স্কুলে একের পর এক তলা গ্রাস করছে রাক্ষুসে আগুন, ভিতরে তখন আটকে ৫ পড়ুয়া

দেশে করোনা সংক্রমণ ফের একবার ভয়াবহ রূপ ধারণ করতেই গতকাল সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেখানেই তিনি ভ্যাকসিনের লভ্যতা নিয়ে কেন্দ্র বনাম মহারাষ্ট্র সরকারের যে বিরোধ শুরু হয়েছে, তা উল্লেখ করে বলেন, “এই পরিস্থিতিতে সকলকে একসঙ্গে মিলিতভাবে কাজ করতে হবে। একে অপরকে দোষ না দিয়ে মিলিতভাবে কাজ করলেই করোনা সংক্রমণকে হার মানানো সম্ভব।”

করোনা সংক্রমণ নিয়েও তিনি বলেন, “মনে হচ্ছে রাজ্যগুলির মধ্যে প্রতিযোগিতা চলছে যে কার রাজ্যে কত বেশি আক্রান্ত। পরিস্থিতি খুবই খারাপ।” দ্রুত টিকাকরণের জন্য তিনি টিকা উৎসব পালনের অআর্জি জানান। আগামী ১১ এপ্রিল থেকে ১৪ এপ্রিল সর্বাধিক টিকাকরণের মাধ্যমে এই উৎসব পালনের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

উল্লেখ্য, মহারাষ্ট্র, যেখানে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা সর্বাধিক, সেখানে ভ্যাকসিনের ঘাটতির কারণে একাধিক টিকাকেন্দ্র বন্ধ হয়ে গিয়েছে। ওড়িশার স্বাস্থ্যমন্ত্রীও জানিয়েছেন যে আর মাত্র দুদিনের টিকা মজুত রয়েছে। এদিকে, কেন্দ্রকে লেখা মহারাষ্ট্র সরকারের চিঠির জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন বলেন, “সংক্রমণ রুখতে নিজেদের গাফিলতি ঢাকতেই টিকার আকালের ভুয়ো অভিযোগ আনা হচ্ছে।” এরপরই কেন্দ্র বনাম রাজ্যের বিরোধ চরমে ওঠে।

আরও পড়ুন: পাঁচদিন পর ছেলের মুক্তির খবরে ‘দিওয়ালি’ পালন করলেন নিখোঁজ জওয়ানের মা