Mumbai Rape: শরীর জুড়ে দগদগে ক্ষত, ভেন্টিলেটরে ৩৩ ঘণ্টার লড়াই শেষ মুম্বইয়ের নির্ভয়ার

Mumbai rape case: প্রাথমিক সার্জরি করেও কোনও লাভ হল না। ভেন্টিলেটনে শেষ শক্তিটুকু দিয়ে চলছিল লড়াই। শনিবার সকালে হাসপাতালে মৃত্যু হল মুম্বইয়ের নির্যাতিতার।

Mumbai Rape: শরীর জুড়ে দগদগে ক্ষত, ভেন্টিলেটরে ৩৩ ঘণ্টার লড়াই শেষ মুম্বইয়ের নির্ভয়ার
মুম্বই ধর্ষণ কাণ্ডের নির্যাতিতার পরিবারের সঙ্গে দেখা করল জাতীয় মহিলা কমিশন।

নয়া দিল্লি: আবারও ধর্ষণ ও নারকীয় অত্যাচারের শিকার হয়ে মৃত্যুর ঘটনা ঘটল। হাসপাতালে বেশ কয়েক ঘণ্টার লড়াই চালিয়ে হার মানলেন মুম্বই ধর্ষণ কাণ্ডের (Mumbai Rape Case) নির্যাতিতা মহিলা। শনিবার সকালে হাসপাতালেই মৃত্যু হয়েছে তাঁর। টেম্পোর মধ্যে ধর্ষণ করা হয় বছর ৩২-এর ওই মহিলাকে। যৌনাঙ্গে রড ঢুকিয়ে নৃশংস অত্যাচারও করা হয় তাঁর ওপর। পুলিশ নির্যাতিতাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছিল। চিকিৎসকরাও তড়িঘড়ি তাঁর চিকিৎসা শুরু করেন। কিন্তু শরীরে ক্ষত এত বেশি ছিল আর যে ভাবে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছিল, তাতে শেষ রক্ষা হয়নি।

মুম্বইয়ের রাজওয়াড়ি হাসপাতালে তাঁকে ভর্তি করেছিল পুলিশ। চিকিৎসা শুরু হলেও ক্রমশ তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হচ্ছিল। ভেন্টিলেটরে তাঁর চিকিৎসা চলছিল বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকেরা। একটা সার্জারিও করা হয়েছে তাঁর শরীরে। কিন্তু চিকিৎসকেরা নজর রাখছিলেন নির্যাতিতা মহিলার শরীর চিকিৎসায় কী ভাবে সাড়া দেয়। ক্রমেই খারাপ হতে শুরু করে শারীরিক অবস্থা। সারা শরীরে ক্ষত থেকে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছিল বলেও জানা গিয়েছে।

মুম্বইয়ের এই ভয়াবহ ধর্ষণের ঘটনা একদিকে যেমন নির্ভয়া-কাণ্ডের স্মৃতি ফিরিয়ে দিয়েছে। অন্যদিকে তেমনই মুম্বইয়ের নিরাপত্তা নিয়েও প্রশ্ন তুলে দিয়েছে। ইতিমধ্যেই অভিযুক্ত এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঘটনাস্থলের সিসিটিভি ফুটেজও এসেছে পুলিশের হাতে। নির্যাতিতা মহিলার শারীরিক পরীক্ষায় ধর্ষণের প্রমাণ মিলেছে। পাশাপাশি, যৌনাঙ্গে লোহার রড ঢুকিয়ে অত্যাচার করা হয়েছিল, সেই প্রমাণও পাওয়া গিয়েছে। আগেই ধর্ষণের পাশাপাশি খুনের চেষ্টার মামলা রুজু করা হয়েছে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে। তবে এ বার খুনের মামলাও রুজু করতে চলেছে পুলিশ। শনিবার সকাল থেকে অনে রাজনৈতিক নেতা-নেত্রীকেও দেখা গিয়েছে রাজওয়াড়ি হাসপাতালের বাইরে।

ঘটনাটি ঘটে গণেশ পুজোর ঠিক আগের রাতে অর্থাৎ বৃহস্পতিবার রাত ৩ টে নাগাদ। পুলিশ জানিয়েছে, ৩ টে থেকে সাড়ে ৩ টের মধ্যে পুলিশকে কেউ বা কারা খবর দেয় যে একটি টেম্পোর ভিতর এক মহিলা ও এক ব্যক্তির মধ্যে তীব্র বচসা চলছে। এ কথা শুনেই সন্দেহ হয় পুলিশের। মুম্বইয়ের সাকি নাকা এলাকায় পৌঁছে পুলিশ দেখে টেম্পোর ভিতরটা রক্তে ভেসে যাচ্ছে। সেখানেই অচৈতন্য অবস্থায় পড়ে রয়েছেন ওই মহিলা। রক্তাক্ত অবস্থায় ওই মহিলাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করে পুলিশ। কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই মোহন চৌহান নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়। তবে এই ঘটনায় আরও অনেকে জড়িত বলেই সন্দেহ পুলিশের। তাদের খোঁজে তল্লাশি চালানো হচ্ছে।

মুম্বইয়ের এই ঘটনা ফের একবার নির্ভয়া-কাণ্ডের স্মৃতি ফেরাল দেশে। এ ভাবেই নৃশংস অত্যাচার ও গণধর্ষণের শিকার হতে হয়েছিল দিল্লির এক যুবতীকে। দিল্লিতে ফাঁকা বাসের মধ্যে গণধর্ষণ করা হয়েছিল ওই যুবতীকে। ঘটনার দিন কয়েক পর হাসপাতালেই মৃত্যু ওই তাঁর। হাসপাতালে তাঁর শেষ কয়েকদিনের লড়াইলে সম্মান জানাতে ‘নির্ভয়া’ বলে সম্বোধন করা হয় তাঁকে। তবে শুধু নির্ভয়াই নয়, এমন অনেক নৃশংস, নারকীয় ধর্ষণের ঘটনা প্রায়শই আসে সংবাদ শিরোনামে। কিছুদিন আগে দিল্লিতে এক দলিত কিশোরীকে ধর্ষণে করে খুন করে দেহ লোপাট করে দেওয়া হয়। সেই ঘটনায় উত্তাল হয়েছিল জাতীয় রাজনীতি।

আরও পড়ুন: ঠিক ৯/১১-র ধাঁচেই উড়িয়ে দেওয়া হবে এয়ার ইন্ডিয়ার বিমান, হুমকি ফোনেই নিরাপত্তা বাড়ল রাজধানীতে

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla