Pushpa: ‘পুষ্পা’য় অনুপ্রাণিত হয়ে মদের চোরাচালান, তবে ‘ঝুঁকতে’ হল পুলিশের কাছে

Delhi Police: জানা গিয়েছে, মদ পাচার গ্যাঙের সদস্যরা দক্ষিণ ভারতীয় ছবি ‘পুষ্পা’ দেখে অনুপ্রাণিত হয়েছিলেন। সেই ছবি দেখে অনুপ্রাণিত হয়েই পাচারে নামেন।

Pushpa: ‘পুষ্পা’য় অনুপ্রাণিত হয়ে মদের চোরাচালান, তবে 'ঝুঁকতে' হল পুলিশের কাছে
তবে থেকেই তিনি লাইমলাইটে। কবে শুরু হবে পুষ্পা ছবির শুটিং, সেদিকেই ছিল নজর। এবার অভিনেতার জন্মদিনে মুক্তি পেয়ে গেল তাঁর আগামী ছবির লুক থেকে শুরু করে টিজ়ার।
Follow Us:
| Edited By: | Updated on: Jan 26, 2023 | 3:24 PM

নয়াদিল্লি: মদের চোরাচালানকারী এক গ্যাং ফাঁস করল দিল্লি পুলিশ। দিল্লির সঞ্জয় গান্ধী ট্রান্সপোর্ট নগরে ২৫টি প্লাস্টিকের ড্রাম উদ্ধার হয়েছে। ওই প্লাস্টিকের ড্রামের মধ্যেই ছিল মদের বোতল। সেখান থেকে প্রায় ৬২৬টি মদের বোতল উদ্ধার হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। দিল্লিতে পাকড়াও হওয়া মদ বিহারে পাচারের পরিকল্পনা ছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ। যদিও বিহারে মদ নিষিদ্ধ। অভিযোগ, সেখানেই মদের অবৈধ চোরাচালানের চেষ্টা চালাচ্ছিল ওই গ্যাং। দিল্লি পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, হরিয়ানায় ওই মদ তৈরি হয়েছিল ট্রান্সপোর্ট কোম্পানির মাধ্যমে পাচারের জন্য দিল্লিতে আনা হয়েছিল। জানা গিয়েছে, মদ পাচার গ্যাঙের সদস্যরা দক্ষিণ ভারতীয় ছবি ‘পুষ্পা’ দেখে অনুপ্রাণিত হয়েছিলেন। সেই ছবি দেখে অনুপ্রাণিত হয়েই পাচারে নামেন।

‘পুষ্পা’ দক্ষিণ ভারতীয় ছবি। অল্লু অর্জুন অভিনীত এই ছবির কাহিনি নির্মীত হয়েছিল লাল চন্দন কাঠের চোরাচালান ঘিরে। এই ছবি দেখেই বিহারে মদ চালানের পরিকল্পনা করে ওই গ্যাং। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, দুই রিক্সাওয়ালা বেশ কয়েকটি প্লাস্টিকের ড্রাম নিয়ে এসেছিলেন এসজিটি নগরে এক ট্রান্সপোর্ট সংস্থার অফিসে। তাঁরা জানিয়েছিলেন বিহারের এক সংস্থায় এই ড্রাম পাঠানো হবে। ওই ড্রামের ভিতর থাকা জিনিসের যে বিল দেওয়া হয়েছিল তাও ভুয়ো বলে জানা গিয়েছে। ট্রান্সপোর্টের লোকেদের সন্দেহ হওয়ায় তাঁরা প্লাস্টিকের ড্রামে থাকা মালের ব্যাপারে বিস্তারিত জানতে চান। অভিযোগ, সে ব্যাপারে কিছু জানাতে চাইছিলেন না ওই রিক্সাচালকরা। তাঁরা কোনও তথ্য না বলেই রিক্সা নিয়ে পালিয়ে যান।

এর পর ওই ট্রান্সপোর্ট সংস্থার মালিক ফোন করেন সময়পুর বাদলি থানায়। পুলিশ এসে উদ্ধার করে ওই প্লাস্টিকের ড্রামগুলি। পুলিশ জানিয়েছে, প্লাস্টিকের ড্রামের ভিতর ভর্তি ছিল কাঠ গুঁড়োয়। তার মধ্যে লোকানো ছিল মদের বোতল। ওই মদ হরিয়ানায় তৈরি করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। বিহারের মুজফ্ফরপুরে ওই মদ পাচারের পরিকল্পনা ছিল বলে জানতে পেরেছে পুলিশ। এ নিয়ে ইতিমধ্যেই অভিযোগ দায়ের করে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।