সীমান্ত টপকে গরু চুরি করতে এসে আর ফেরা হল না বাড়ি, পড়ে গিয়ে গুরুতর আঘাতে মৃত্যু যুবকের

গত ১৪ জুন ওই যুবক তাঁর তিন সঙ্গীকে নিয়ে ত্রিপুরার কদমতলা এলাকায় এক ব্যক্তির বাড়িতে প্রবেশ করে। সেখান থেকে গরু চুরি করে পালানোর আগেই স্থানীয় বাসিন্দারা টের পেয়ে যান এবং ওই যুবকদের তাড়া করেন।

সীমান্ত টপকে গরু চুরি করতে এসে আর ফেরা হল না বাড়ি, পড়ে গিয়ে গুরুতর আঘাতে মৃত্যু যুবকের
প্রতীকী চিত্র।

আগরতলা: পাঁচদিন আগেই রাতের অন্ধকারে সীমান্ত টপকে গরু চুরি করতে বন্ধুদের সঙ্গে ভারতে প্রবেশ করেছিল বছর ২৭-র এক যুবক। স্থানীয় বাসিন্দারা টের পেয়ে যেতেই তড়িঘড়ি পালানোর চেষ্টা করে সবাই। বাকিরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও মাঝপথেই মুখ থুবড়ে পড়ে ওই যুবক, গুরুতর চোট লাগে বুকে। তিনদিন লড়াই চালালেও অবশেষে হার মানতে বাধ্য হল ওই যুবক।

বাংলাদেশের সঙ্গে ৮৫৬ কিমি আন্তর্জাতিক সীমান্তে বিভাজিত ত্রিপুরা। এরমধ্যে অধিকাংশ অংশই আবার কাঁটাতারবিহীন। রাতের অন্ধকারে আন্তর্জাতিক সীমান্ত টপকিয়ে ভারতে প্রবেশ ও গরুপাচারের সমস্যাও দীর্ঘদিনের। গত ১৪ জুন ওই যুবক তাঁর তিন সঙ্গীকে নিয়ে ত্রিপুরার কদমতলা এলাকায় এক ব্যক্তির বাড়িতে প্রবেশ করে। সেখান থেকে গরু চুরি করে পালানোর আগেই স্থানীয় বাসিন্দারা টের পেয়ে যান এবং ওই যুবকদের তাড়া করেন।

বাকি তিন যুবক পালিয়ে গেলেও সুমন মুন্ডা নামক ওই যুবক পড়ে যায় এবং ধারালো কোনও বস্তুতে ধাক্কা লেগে বুকে গুরুতর চোট লাগে। পুলিশে খবর দেওয়া হলে প্রথমে ওই যুবককে একটি স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে ধর্মনগর জেলা হাসপাতালে তাঁকে স্থানান্তরিত করা হয়। কদমতলা পুলিশ স্টেশনে তাঁর বিরুদ্ধে গরু চুরির অভিযোগও দায়ের করা হয়।

শনিবার আচমকাই ওই যুবকের শারীরিক অবস্থার অবনতি হয় এবং রাতেই তাঁর মৃত্যু হয়। উত্তর ত্রিপুরার পুলিশ সুপার ভানুপদ চক্রবর্তী বলেন, “আমাদের সন্দেহ ওই যুবক বাংলাদেশের বাসিন্দা। ওই যুবকের বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জানতে বাংলাদেশ কর্তৃপক্ষকে যোগাযোগ করা হবে। তারা যদি জানান ওই যুবকের নাগরিকত্ব স্বীকার করে নেন, তবে ওই দেশের হাতেই যুবকের মৃতদেহ তুলে দেওয়া হবে। নাহলে আমরাই এখানে তাঁর দেহ সৎকার করব।”

আরও পড়ুন: ‘সার্টিফিকেটে উল্লেখ থাকতেই হবে করোনায় মৃত্যু’, হিসাবে গরমিল রুখতে কঠোর কেন্দ্র

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla