অভিষেকের শ্যালিকার বাড়িতে সিবিআই, তিন ঘণ্টা ধরে জিজ্ঞাসাবাদ

এদিন দুপুর ১২টা নাগাদ মেনকার আবাসনে পৌঁছন উমেশ কুমারের নেতৃত্বে তদন্তকারীদের (CBI) একটি দল। সেখানে ছিলেন দু'জন মহিলা প্রতিনিধিও। আড়াই ঘণ্টার বেশি সময় ধরে চলে জিজ্ঞাসাবাদ।

  • TV9 Bangla
  • Published On - 14:08 PM, 22 Feb 2021
অভিষেকের শ্যালিকার বাড়িতে সিবিআই,  তিন ঘণ্টা ধরে জিজ্ঞাসাবাদ
মেনকা গম্ভীরের আবাসনের সামনে সিবিআইয়ের গাড়ি।

কলকাতা: অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Abhishek Banerjee) শ্যালিকার বাড়িতে গেলেন সিবিআই (CBI) আধিকারিকরা। পঞ্চসায়রের আবাসনে সোমবার জিজ্ঞাসাবাদ করতে পৌঁছন তদন্তকারীরা। কয়লাকাণ্ডে রবিবারই তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী রুজিরা বন্দ্যোপাধ্যায় নারুলা ও রুজিরার বোন মেনকা গম্ভীরকে নোটিস পাঠায় সিবিআই। সেদিনই সিবিআইয়ের সঙ্গে কথা বলার বিষয়টি জানান মেনকা। সেইমতই এদিন দুপুর ১২টা নাগাদ তাঁর আবাসনে পৌঁছন উমেশ কুমারের নেতৃত্বে তদন্তকারীদের একটি দল। সেখানে ছিলেন দু’জন মহিলা প্রতিনিধিও।

এদিন মেনকা গম্ভীরের আবাসনের ভিতর গাড়ি ঢোকার মুখেই তা আটকে দেন নিরাপত্তা রক্ষী। আবাসনের সামনে গাড়ি দাঁড় করিয়ে হেঁটেই ভিতরে যেতে হয় তদন্তকারীদের। এদিন সকাল থেকেই প্রচুর সাংবাদিকের ভিড় ছিল হাইল্যান্ড পার্কের এই আবাসনের সামনে। অনুমান, কোনওভাবে সাংবাদিকরা যাতে ভিতরে প্রবেশ করতে না পারেন, সে কারণেই এই কড়াকড়ি।

সোমবার সকালেই সিবিআইকে জবাবি-চিঠি দিয়েছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী রুজিরা। জানিয়েছেন, মঙ্গলবারই তদন্তকারীদের সঙ্গে কথা বলবেন তিনি। তবে এই সাক্ষাৎ যে শান্তিনিকেতনে নিজের আবাসনেই হবে, সে বার্তাও রুজিরার চিঠিতে স্পষ্ট।

আরও পড়ুন: অবশেষে জবাব পেল সিবিআই! আগামিকাল দেখা করবেন, চিঠিতে জানালেন অভিষেকের স্ত্রী

চিঠিতে অভিষেক-জায়া লিখেছেন, “২১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ তারিখে আমি আপনাদের একটি চিঠি পেয়েছি। দুপুর ২টোয় নাগাদ চিঠিটি আসে। যদিও সে সময় আমি বাড়িতে ছিলাম না। কেন আমাকে এই বিষয়ের তদন্তে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চাওয়া হয়েছে সেটা আমার কাছে স্পষ্ট নয়। তবে আপনারা ২৩ ফেব্রুয়ারি সকাল ১১টা থেকে বেলা ৩টের মধ্যে যে কোনও সময়ে আসতে পারেন। দয়া করে আমাকে আপনাদের আসার সময়টা জানাবেন।”

অন্যদিকে সিবিআই সূত্রে খবর, এদিন মেনকার বয়ান রেকর্ড করতে পারেন তদন্তকারীরা। রুজিরার সঙ্গেও কথা বলবেন মঙ্গলবার। দু’জনের বয়ানের সঙ্গতিও মিলিয়ে দেখা হতে পারে। তার উপর নির্ভর করবে নতুন করে কাউকে নোটিস পাঠানো হবে কি না।