লক্ষ্য এলাকার উন্নয়ন, তাই হিসাব কষেই কমিটিতে থাকতে চান জুন

নারী ও শিশুকল্যাণের পাশাপাশি আইএনসিএ-তেও থাকতে চান জুন মালিয়া (MLA June Maliya)।

লক্ষ্য এলাকার উন্নয়ন, তাই হিসাব কষেই কমিটিতে থাকতে চান জুন
ফাইল চিত্র।

কলকাতা: বিধানসভায় ৪১টি কমিটি রয়েছে। সরকার-বিরোধী দু’পক্ষের সদস্যরাই ভাগাভাগি করে এই কমিটিগুলিতে থাকেন। দলের তরফে যাঁকে যে কমিটির জন্য ভাবা হয়, তাঁর সেই কমিটিতে জায়গা হয়। এ নিয়ে বিধায়করা খুব বেশি ভাবিত, এমনটা বলা যায় না। কিন্তু এই প্রথমবার কোনও বিধায়ককে দেখা যাচ্ছে, যিনি নিজের কেন্দ্রের উন্নয়নের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত কমিটির সদস্য হতে চাইছেন। তিনি মেদিনীপুরের বিধায়ক জুন মালিয়া।

টিভি নাইন বাংলাকে জুন মালিয়া জানান, “মেদিনীপুরকে ঢেলে সাজানোর পরিকল্পনা রয়েছে। সেখানকার মানুষ আমাদের ভোট দিয়েছেন। এলাকার যুবদের সংস্কৃতি, স্কুল-কলেজের শিক্ষা, সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্যকে আরও উন্নত করতে হবে। আমি মনে করি এমন কমিটিতেই থাকা দরকার যেখান থেকে আমি আমার এলাকার উন্নয়ন করতে পারব। আমি সেই চেষ্টাই করছি। নারী ও শিশুকল্যাণের পাশাপাশি তথ্য সংস্কৃতি সংক্রান্ত কমিটি আইএনসিএ-তেও থাকতে চাই। কারণ তার মধ্যে ক্রীড়া ও যুবও থাকে। আমার এলাকায় দেখেছি, আদিবাসী ভাইবোনরা কোনও প্রশিক্ষণ ছাড়াও খেলাধূলায় কতটা ভাল। আরও সহযোগিতা পেলে আরও এগিয়ে যাবে।”

আরও পড়ুন: ‘গ্রেফতার না করলে দেশে ফিরব’, আইনজীবী মারফৎ আদালতকে বার্তা লালার ‘সঙ্গী’ বিনয় মিশ্রের

মেদিনীপুরের গাঁ ঘেষেই সবুজ সুন্দরী জঙ্গলমহল। যে জঙ্গলমহল নিয়ে বারবার শাসকদলকে কাঠগড়ায় তুলেছে বিজেপি। ভোট প্রচারে এসে জঙ্গলমহলের বঞ্চনার অভিযোগ তুলেছেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতারাও। এখনও সে সুর শোনা যায়। কিন্তু সেই অভিযোগকে নস্যাৎ করে এদিন জুন মালিয়া বলেন, “এই কথার কোনও ভিত্তিই নেই। মানুষের প্রাথমিক চাহিদাগুলিকে গুরুত্ব দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেইমতো রাস্তা, পানীয় জল, স্বাস্থ্যকেন্দ্র সবই দিয়েছেন। আরও উন্নতি করতে হবে। আমি জানি এই কর্মযজ্ঞে দিদির পুরোপুরি সমর্থন পাব। এখানকার উন্নয়ন নিয়ে প্রশ্ন তোলার তো জায়গাই রাখেননি মেদিনীপুরের মানুষ। ভোটের ফলাফল তো বুঝিয়েই দিয়েছে।”

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla