নিতম্বের ব্রণ থেকে মুক্তি পাবেন কী কী উপায়ে? জেনে নিন…

ব্রণ ত্বকের একটি সাধারণ সমস্যা। ঘরোয়া কিছু টোটকার মাধ্যমে সেরে যেতে পারে নিতম্বের ব্রণ। তবে তার আগে রোজকার কিছু বাজে অভ্যেস পালটাতে হবে আপনাকে।

  • Updated On - 12:09 pm, Mon, 17 May 21
নিতম্বের ব্রণ থেকে মুক্তি পাবেন কী কী উপায়ে? জেনে নিন...
ছবিটি প্রতীকী।

ব্রণের সমস্যা শুধু মুখেই সীমাবদ্ধ তা কিন্তু মোটেই নয়। শরীরের যে কোনও অংশেই ব্রণ হয়ে থাকে। তার মধ্যে নিতম্বে ব্রণ হওয়া অস্বাভাবিক কিছু নয়। চুলকানি, অসহ্য জ্বালা ভাবের কারণে অতিষ্ঠ হয়ে ওঠা কোনও বিরল ঘটনাও নয়। এমনকি জনসম্মুখে বিভিন্ন সময় অত্যন্ত লজ্জাকর ও অস্বস্তিকর বোধও তৈরি হয়। নিতম্বে ক্রমাগত ব্রণের সংখ্যা বাড়তে থাকলে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া জরুরি। তবে এক্ষেত্রে ঘরোয়া পদ্ধতিতেও সেরে যেতে পারে কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই।

নিতম্বে ব্রণ কেন হয়?

ঘামে ভিজে যাওয়া পোশাক ও অসহ্য গরম থেকে শরীরের বিভিন্ন অংশে ব্রণ তৈরি হয়। গ্রীষ্মকালে এর প্রবণতা সবচেয়ে বেশি দেখা যায়। মুখে তো বটেই, বুকে, নিতম্বে, হাঁটুর উপরের অংশে ব্রণ হয়ে থাকে। এই প্যাচপ্যাচে গরমের মধ্যে যদি বাটনে (Buttne)র সমস্যা নাজেহাল হন, তাহলে রোজকার অভ্যেসে কিছু বদল আনা প্রয়োজন

আরও পড়ুন: চটজলদি ব্রণ হঠাতে টুথপেস্ট ব্যবহার করেন, জানেন কী ভুল করছেন?

রোজকার অন্তর্বাস বদলান

বিকেলের দিক যদি ওয়ার্কআউট করেন, তাহলে তারপর অবশ্যই অন্তর্বাস বদলান। দিনে একবার এক্সারসাইজ বা যে কোন কাজের পরই আন্ডারওয়্যার বদলানোর চেষ্টা করুন। ঘামে জমে থাকা ব্যাকটেরিয়া দূর করার জন্য ভাল করে স্নান সেরে ফেলুন। যদি তাতেও নিতম্বে ব্রণ হওয়ার প্রবণতা না কমে, তাহলে ওয়ার্কআউটের পোশাক যাতে আরও আরামদায়ক হয় তার দিকে খেয়াল রাখুন।

শাওয়ার জেল বদলান

নিয়মিত ও পছন্দের শাওয়ার জেল বদলের প্রয়োজন হয়ে পড়েছে। বাজারজাত ব্রণ নির্মূল করার বডিওয়াশ পাওয়া যায়, তা ব্যবহার করতে পারেন। তেমন হলে, নারকেল তেল, লেবুর রস ব্যবহার করে স্নান সারতে পারেন।

অস্বস্তি হলেও জোর করে ব্রণ হঠাতে যাবেন না

প্রতিদিন সাবান দিয়ে ভাল করে পরিস্কার করুন। অস্বস্তি হলেও ব্রণ নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে যাবেন না। এতে হিতে বিপরীত হতে পারে। হাতের গ্লাভস পরে বডি স্ক্রাব দিয়ে নিতম্ব পরিষ্কার করতে পারেন।

আরও পড়ুন: ‘ম্যাজিক’ টোটকা! ত্বক ও চুলের যত্নে ব্যবহার করুন ভাতের ফ্যান

ক্যালামাইন লোশন ব্যবহার করুন

যদি ক্রমশ ব্রণের সংখ্যা বাড়তে থাকে, ব্রণের জায়গাগুলিতে ক্যালামাইন লোশন লাগান। এতে রয়েছে জিঙ্ক ওক্সাইড। যা অতিরিক্ত তৈলাক্তভাব নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে। কোনও রকম চুলকানি ও অস্বস্তি ছাড়াই ব্রণের সমস্যা নির্মূল করতে পারে।

ঘরোয়া টোটকা

নিতম্বের ব্রণের ক্ষেত্রে অ্যালোবেরা, বেকিং সোডা, বরফ, দই-হলুদের মিশ্রণ, চালের গুঁড়ো-দই-মধুর মিশ্রণ, লেবুর রস, নারকেল তেল বেশ কার্যকরী।