Tokyo Olympics 2020: অলিম্পিকে ‘বিশেষ সম্মানে’ আপ্লুত মেরি-মনপ্রীত

দেশের অলিম্পিক কমিটির (IOA) প্রেসিডেন্ট নরিন্দর বাত্রার (Narinder Batra) ঘোষণার পরই উচ্ছ্বাসে ভেসে গিয়েছেন দুই তারকা।

Tokyo Olympics 2020: অলিম্পিকে 'বিশেষ সম্মানে' আপ্লুত মেরি-মনপ্রীত
Tokyo Olympics 2020: অলিম্পিকে 'বিশেষ সম্মানে' আপ্লুত মেরি-মনপ্রীত

নয়াদিল্লি: অলিম্পিকে (Olympics) হয়তো নামেন অনেকে, কিন্তু ক’জন আর দেশের পতাকাবাহক হন। ২৩ জুলাই টোকিওয় (Tokyo) উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মেরি কমই (Mary Kom) ভারতের মুখ হতে চলেছেন। তাঁর সঙ্গে হকি টিমের ক্যাপ্টেন মনপ্রীত সিংয়ের (Manpreet Singh) হাতেও থাকবে তেরঙা পতাকা।

দেশের অলিম্পিক কমিটির (IOA) প্রেসিডেন্ট নরিন্দর বাত্রার (Narinder Batra) ঘোষণার পরই উচ্ছ্বাসে ভেসে গিয়েছেন দুই তারকা। মেরি বলেছেন, ‘অলিম্পিকের আসরে দেশের পতাকা বহনের সুযোগ পাওয়ায় আমি উচ্ছ্বসিত। এর থেকে খুশির খবর আর কিছু হতে পারে না। সবাই এমন সুযোগ পায় না।’ আর মনপ্রীত বলেছেন, ‘মেরি কমের মতো অ্যাথলিটের পাশে আমিও দেশের পতাকাবাহক, ভাবলেই কথা হারিয়ে যাচ্ছে আমার।’

হকি থেকে এর আগেও অলিম্পিকের দেশের পতাকাবহন করেছেন কেউ কেউ। ১৯৩২ সালের অলিম্পিকে লাল শাহ বোখারি, ১৯৩৬ সালে ধ্যানচাঁদ উদ্বোধনে পতাকা নিয়ে হেঁটেছেন। তবে সবার থেকে এগিয়ে আছেন বলবীর সিং সিনিয়র। ১৯৫২ ও ১৯৫৬ সালের অলিম্পিকে পর পর দু’বার পতাকাবাহক ছিলেন দেশের। জাফর ইকবাল, পরগত সিংরাও এই কৃতিত্ব অর্জন করেছেন। সে দিক থেকে দেখলে ২৫ বছর পর হকি থেকে কেউ পতাকাবাহক নির্বাচিত হয়েছেন।

মেরি কম টোকিওতেই শেষবার নামবেন অলিম্পিকে। এই সম্মান আরও বেশি করে ছুঁয়ে যাচ্ছে তাঁকে। মেরি তাই আরও বেশি করে সাফল্য পেতে মরিয়া। মণিপুরী বক্সারের কথায়, ‘অলিম্পিকের মতো আসরে সব অ্যাথলিটের উপরেই একটা চাপ থাকে। সেটা নিয়েই সাফল্য পেতে হয়। এটা কী ভাবে সামলাতে হয়, আমি আগে জানতাম না। এখন শিখেছি। আশা করি সাফল্য পাব।’

আরও পড়ুন: Tokyo Olympics 2020: অলিম্পিকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভারতের পতাকাবাহক মেরি-মনপ্রীত

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla