Viral Video: যাত্রী সহ বিমানে আগুন লাগল মাঝ আকাশে! তারপর কী হল দেখুন ভাইরাল ভিডিয়োয়

যার ফলে আগুন লেগে যায় বিমানে। বাঁচার তাগিদে পাইলট থেকে শুরু করে যাত্রী, সবাই ঝাপ দেয় প্লেন থেকে। সেই বাঁচার লড়াইয়ের ভিডিয়োই ভাইরাল হয়ে গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

Viral Video: যাত্রী সহ বিমানে আগুন লাগল মাঝ আকাশে! তারপর কী হল দেখুন ভাইরাল ভিডিয়োয়
মাঝ আকাশে আগুন লাগল বিমানে

বিভিন্ন কারণে মাঝ আকাশে বিমানে আগুন লেগে যায়। সচেতনতার সত্ত্বেও নানা বিমান দুর্ঘটনা ঘটে থাকে। কিন্তু ঘটনাস্থলা কী ঘটেছিল তা আমরা ভিজ্যুয়ালে দেখতে পাই না। কিন্তু সম্প্রতি ট্যুইটারে ভাইরাল হয়েছে ২০১৩ সালের একটি ভিডিয়ো ক্লিপ, যা দেখে আপনার মন পুনরায় আতঙ্কিত হয়ে উঠতে পারে।

ভাইরাল হওয়া এই ভিডিয়োয় দেখা যায় মাঝ আকাশে দুটি স্কাইডাইভিং বিমানের মধ্যে সংঘর্ষ হয়ে যায়। যার ফলে আগুন লেগে যায় বিমানে। বাঁচার তাগিদে পাইলট থেকে শুরু করে যাত্রী, সবাই ঝাপ দেয় প্লেন থেকে। সেই বাঁচার লড়াইয়ের ভিডিয়োই ভাইরাল হয়ে গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

২০১৩ সালের নভেম্বর মাসে উইসকনসিনের লেক সুপিরিয়রের কাছে এই দুর্ঘটনা ঘটে। এই সংঘর্ষের কারণ হল যখন একটি বিমান মাটিতে ল্যান্ড করে, তখন অন্য প্লেনটি রানওয়েতে চলে যায় ওপর ওঠার জন্য। সেই সময়ের তথ্য অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, অলৌকিকভাবে এই দুর্ঘটনায় নয় জন যাত্রী এবং দুই পাইলটের কেউই গুরুতর ভাবে আহত হননি।

স্কাইডাইভিং প্রশিক্ষক মাইক রবিনসনের মতে, স্কাইডাইভারদের ঝাঁপিয়ে পড়ে বাধ্য হন সেই সময়। সেই সময় ওই দুটি বিমান এক সঙ্গে বেশ কাছাকাছি উড়ছিল। অগ্নিনির্বাপক ভার্ন জনসনের থেকে জানা গিয়েছিল যে, যিনি প্রধান পাইলট ছিলেন তাঁর উইন্ডশিল্ডটি ভেঙে গিয়েছিল এবং সেই পাইলট জানান যে তিনি লাফ দেওয়ার আগে একটি বিকট শব্দ শুনেছিলেন।

দেখুন সেই ভাইরাল ভিডিয়ো…

ভিডিয়োটিতে দেখা যায় যে, সংঘর্ষের ফলে ওই দুটি বিমানে ভয়ঙ্কর ভাবে আগুন লেগে যায়। বিমানটি মাঝ আকাশে ভেঙে যায়, কিন্তু ভাগ্যক্রমে এই বিমানে ছিলেন স্কাইডাইভাররা, যাঁরা শেষ অবধি নিরাপদে প্যারাশ্যুট খুলতে সক্ষম হয়েছিলেন এবং যার ফলে কেউ আহত হননি। এই ঘটনার প্রায় আট বছর পরে আবার ভিডিয়োটি ভাইরাল হল সোশ্যাল মিডিয়ায়।

৩৪ সেকেন্ডের এই ভিডিয়োটি মাত্র দু দিন আগেই পোস্ট করা হয়েছে ট্যুইটারে। তারই মধ্যে ৩.৫ মিলিয়ন মানুষের কাছে পৌঁছে গেছে ভিডিয়োটি। প্রায় ২ লক্ষ সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারী রিয়্যাক্ট করেছেন ভিডিয়োটিতে। তার সঙ্গে ৫৮ হাজারেরও বেশি মানুষ ভিডিয়োটিকে রিট্যুইট করে। ভিডিয়ো থিওরি নামক একটি ট্যুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে পোস্ট করা হয়েছে।

সেই সময় রবিনসন একটি সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জানিয়ে ছিলেন যে, তাঁরা সব সময় এই ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করেন। তিনি জানান যে, আমরা সেই সময় স্কাইডাইভ করা থেকে মাত্র কয়েক সেকেন্ড দূরে ছিলাম যখন ট্রেইল বিমানটি লিড বিমানের শীর্ষে আসে এবং এর ওপরে ধাক্কা লাগে। এটা থেকেই আগুন লেগে যায় এবং বিমানের ডানা দুটি ভেঙে পড়ে।

আরও পড়ুন: অতি বৃষ্টিতে অবলা জীবদের আশ্রয় দিলেন কলকাতার একজন ট্র্যাফিক গার্ড‌!

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla