‘অচল-ভারতী’! উপাচার্যের ‘শাসনে’ ক্ষোভ অধ্যক্ষ-সহ অধ্যাপকদের,ইস্তফা একাধিকের

Visva Bharati University: শিক্ষাভবনের অধ্যক্ষ-সহ বিভাগীয় প্রধানরা আলোচনার মাধ্যমে পদত্যাগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে সুত্রের খবর। সেই চিঠি ইতিমধ্যেই কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হয়েছে।

'অচল-ভারতী'! উপাচার্যের 'শাসনে' ক্ষোভ অধ্যক্ষ-সহ অধ্যাপকদের,ইস্তফা একাধিকের
নিজস্ব চিত্র

বীরভূম: ফের বিতর্কে বিশ্বভারতী এবং উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী। সম্প্রতি, অধ্য়াপকদের সঙ্গে মান-বিতর্কে জড়িয়েছিলেন বিশ্বভারতীর (VBU) উপাচার্য। এ বার, তাঁর কঠোর ‘অনুশাসনের’ জেরে অধ্যাপনায় ইস্তফা দিলেন অধ্যক্ষ-সহ একাধিক বিভাগীয় প্রধানরা।

সূত্রের খবর, কিছুদিন আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের (VBU) শিক্ষাভবনের রসায়ন বিভাগে ছোটোখাটো চুরি হয়। সেই চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে রীতিমতো ‘ছুঁচো মারতে কামান দাগেন’ উপাচার্য এমনটাই অভিযোগ বেশ কিছু অধ্যাপকের। অভিযোগ, এই চুরির ঘটনায় থানায় কোনও লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়নি। কিন্তু, চুরির ঘটনায় চুপ করে বসে থাকেননি উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী। সমস্ত কিছু দেখার পর কর্তৃপক্ষের তরফে একটি নির্দেশ পাশ করা হয়। সেখানে বলা হয়, প্রত্যেক দিন যেকোনো বিভাগে ঢুকতে গেলে অধ্যাপক, অধ্যাপিকা ও পড়ুয়াদের বিভাগীয় প্রধানকে জানাতে হবে। বিভাগীয় প্রধান তা অধ্যক্ষকে জানাবেন। অনুমতি পেলেই তবেই বিভাগে প্রবেশ করতে পারবেন সকলে। নয়ত, বিভাগে প্রবেশের অনুমতি মিলবে না। কারা বিভাগে আসছে যাচ্ছে তার পূর্ণাঙ্গ তালিকা রোজ কর্তৃপক্ষকে চিঠি দিয়ে জানাতে হবে।

বিশ্বভারতীর (VBU) উপাচার্যের এ হেন ‘স্বৈরতান্ত্রিক’ সিদ্ধান্তে এ বার রীতিমতো ক্ষুব্ধ শিক্ষক মহল। শিক্ষাভবনের অধ্যক্ষ-সহ বিভাগীয় প্রধানরা আলোচনার মাধ্যমে পদত্যাগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে সুত্রের খবর। সেই চিঠি ইতিমধ্যেই কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হয়েছে। তবে, এই প্রথম নয়, সম্প্রতি, সংবাদমাধ্যমকে কটুক্তি করা থেকে শুরু বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপককে শো-কজ করা একাধিক বিতর্কে নাম জড়িয়েছিলেন বিদ্যুৎ চক্রবর্তী। ফের আবার তাঁর ‘শাসনের’ জেরে বিতর্কের মুখে গুরুদেবের শিক্ষাঙ্গন।

আরও পড়ুন: উপাচার্যের ‘রুষ্মা’! ছাত্রদের ‘মাওবাদী’ তকমা থেকে সংবাদমাধ্যমকে তোপ, ফাঁস একাধিক অডিয়ো, চর্চায় বিশ্বভারতী

 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla