‘তৃণমূলকে ভোট না দিলে উচ্ছেদ করে দেব’, নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে হুমকি গৌতম দেবের

নির্বাচনী প্রচারে (West Bengal Assembly Election 2021) এসে রীতিমতো এক ব্যক্তিকে হুমকি দিলেন ডাবগ্রাম-ফুলবাড়ির তৃণমূল প্রার্থী গৌতম দেব (Gautam Deb)।

'তৃণমূলকে ভোট না দিলে উচ্ছেদ করে দেব', নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে হুমকি গৌতম দেবের
নিজস্ব চিত্র (বাঁ দিকে গেরুয়া বসনধারী ব্যক্তিকে গৌতমের 'হুমকি')

শিলিগুড়ি: “যদি আমাদের বিরোধিতা করেন, আমরা এখান থেকে আপনাদের উচ্ছেদ করে দেব।” নির্বাচনী প্রচারে (West Bengal Assembly Election 2021) এসে রীতিমতো এক ব্যক্তিকে হুমকি দিলেন ডাবগ্রাম-ফুলবাড়ির তৃণমূল প্রার্থী গৌতম দেব (Gautam Deb)।

বৃহস্পতিবার সকালে ঠাকুরনগর এলাকায় নির্বাচনী প্রচারে যান গৌতম দেব। ওই এলাকাতে একটি আশ্রমও রয়েছে। ওই এলাকায় পৌঁছতেই তাঁর কর্মী সমর্থকদের থেকে জানতে পারেন, ওখানে বিজেপির কয়েকজন সমর্থক রয়েছেন। এরপরই সামনে এগিয়ে আসা গেরুয়া বসনধারী এক ব্যক্তিকে রীতিমতো শাসাতে দেখা যায় গৌতম দেবকে। বিরোধিতা করলে সরকারি জমি থেকে উচ্ছেদ করে দেওয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন তিনি। এখানেই থামেননি।

রীতিমতো হুমকির সুরে তিনি বললেন, “আমি গৌতম দেব, যা বলি তাই করি…” প্রত্যুত্তরে ওই ব্যক্তিকে বলতে শোনা যায়, ‘আমি তো সন্ন্যাসী..’ তাঁর কথা শেষ হওয়ার আগেই গৌতম দেব আবার বলেন. “ওই সব সন্ন্যাসী টন্ন্যাসী আমি বুঝি না। আমি নিজেও সন্ন্যাসী। সন্ন্যাসী দেখাবেন না। বিজেপি করবেন না। ও মোদীর রাজ্যে হবে। বাংলায় হবে না। সব তৃণমূল করতে হবে। না হলে এই সব জায়গা থেকে উচ্ছেদ করে দেব। সব ভোট দিতে হবে।”

যে ব্যক্তিকে ‘হুমকি’ দিতে দেখা গিয়েছে, ওই ব্যক্তির বক্তব্য, “আমি কাজ করছিলাম। আমাকে ডেকে বললেন, এখানে বিজেপির লোক মিটিং করে। আমি ওঁকে বলেছি, এটা আশ্রম সবাই আসে। আমাকে বলল, তৃণমূলকে ভোটটা দিতে হবে, তা হলে উচ্ছেদ করে দেব।”

TV9 বাংলার ক্যামেরায় ধরা পড়ে গোটা বিষয়টি। একজন মন্ত্রী হয়েও কীভাবে এই ধরনের কথা বলতে পারেন গৌতম দেব, তা নিয়ে শোরগোল পড়ে যায়। যদিও এ বিষয়ে গৌতম দেবের বক্তব্য, ওই আশ্রমে বিজেপি. আরএসএস-এর কাজ হয়। আশ্রমটি সরকারি জমিতে তৈরি। সিপিএম মেতা তথা শিলিগুড়ির বিদায়ী বিধায়ক অশোক ভট্টাচার্য বলেন, “আমি তো বিশ্বাসই করতে পারছি না, একজন মন্ত্রী কীভাবে এই কথা বলতে পারেন। এসব কখনও বলা যায় নাকি। এটা বলা যায় না। এই রাজনৈতিক সংস্কৃতির আমরা বিরুদ্ধে। ওঁর উচিত বক্তব্য প্রত্যাহার করা।”

এ প্রসঙ্গে বিজেপি নেতা শমীক ভট্টাচার্য বলেন, “এটাই তৃণমূলের পদ্ধতি। এই কাজই তৃণমূল করে আসছে গত ৬ বছর ধরে। লোকসভা নির্বাচন, পঞ্চায়েত নির্বাচনেও এই ভাবেই কাজ করেছে। এটাও ওদের ভাষা, সংস্কৃতি।”

যদিও নিজের বক্তব্যে অনড় রয়েছেন গৌতম দেব। তাঁরও বক্তব্য, “একটা বড় জায়গা দখল করে তথাকথিত আশ্রম চালাচ্ছে। ওটা কোনও আশ্রম নয়, একজন লোক থাকে। ওখানে আরএসএস, বিজেপির ক্যাম্প মিটিং হয়। সরকারি একটা জায়গায় ওরকম হতে পারে না। সেটাই আমি বলেছি। পুরো ভিডিয়োটা দেখায়নি। আমি ওঁকে বলেছি, রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের মধ্যে থাকবেন না।”

আরও পড়ুন: ‘ক্ষমতায় এলে অ্যান্টি রোমিও স্কোয়াড’, রোমিও রুখতে বঙ্গ রাজনীতিতে সাড়া ফেলল যোগীর দাওয়াই

তাঁকে প্রশ্ন করা হয়, একজন প্রার্থী হিসাবে কীভাবে এমন কথা বলতে পারেন তিনি? প্রশ্ন শুনেই রীতিমতো মেজাজ হারান গৌতম দেব। তিনি বলেন, “আমি এবিষয়ে কিচ্ছু বলব না। আমি বলব না বললাম তো।” ঘটনায় ইতিমধ্যেই রিপোর্ট তলব করেছে নির্বাচন কমিশন।