গণেশ পুজোয় মত্ত গৃহস্থরা, আলমারি থেকে ফাঁকা হয়ে গেল ১২ লক্ষ টাকার সামগ্রী!

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, সৈয়দকরিম অত্যন্ত শান্তিপূর্ণ গ্রাম। এই এলাকায় এই ধরনের চুরির ঘটনা আগে ঘটেনি। গ্রামবাসীদের অনুমান, বাইরের কোনও লোক চুরি করেনি। যে বা যারা চুরি (Stolen) করেছে তারা সকলেই গৃহস্থদের পরিচিত। নয়তো, চুরি করা সম্ভব হত না। তবে, চুরির ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত করা হোক। প্রয়োজনে নাইট গার্ডের ব্যবস্থা করা হোক এমনটাই দাবি করেছেন এলাকাবাসী।

গণেশ পুজোয় মত্ত গৃহস্থরা, আলমারি থেকে ফাঁকা হয়ে গেল ১২ লক্ষ টাকার সামগ্রী!
এই আলমারি থেকেই চুরি হয়েছে গয়না ও নগদ টাকা, নিজস্ব চিত্র

পশ্চিম মেদিনীপুর: নববর্ষের রেশ কাটেনি। বর্ষবরণের জেরে শুক্রবার সন্ধ্যায় গণেশ পুজো দেখতে ঘরেদোরে তালা দিয়ে চলে গিয়েছিলেন লক্ষ্মীকান্ত জানা ও প্রশান্ত প্রামাণিক। সঙ্গে ছিল পরিবার। কিন্তু সেই পুজো দেখতে যাওয়াই যে তাঁদের কাল হবে, তা স্বপ্নেও কল্পনা করেননি কেউ। পুজো সেরে বাড়ি ফিরে এসে দেখলেন দুজনের বাড়িতেই তালা ভেঙে ঘরে ঢুকেছে চোর। আলমারি থেকে উধাও হয়ে গিয়েছে নগদ টাকা ও সোনার গয়না। চুরির (stolen) ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে দাসপুরের সৈয়দকরিম গ্রামে।

লক্ষ্মীকান্তের স্ত্রী কৃষ্ণা জানা বলেন,”অনেকদিন পর বাড়িতে মেয়ে-জামাই এসেছিল। ওদের নিয়ে তাই পুজো দেখতে গিয়েছিলাম। আলমারির মধ্যেই ছিল নগদ টাকা আর আমার গয়না। সব মিলিয়ে প্রায় ৮ লক্ষ টাকার জিনিস ছিল। চোর তালা ভেঙে ঘরে ঢুকে আলমারি থেকে সব নিয়ে চলে গিয়েছে (stolen)।”

প্রায় অনুরূপ অভিযোগ করেছেন লক্ষ্মীকান্তের প্রতিবেশী প্রশান্ত প্রামাণিক ও তাঁর পরিবার। প্রশান্তের স্ত্রী বাসন্তী দেবী বলেন, ”আলমারিতে নগদ ৮০ হাজার টাকা আর তিন মেয়ের গয়না ছিল। যার দাম প্রায় ৫ লক্ষ টাকা। কোনও কিছুই আর নেই (stolen)।”

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, সৈয়দকরিম অত্যন্ত শান্তিপূর্ণ গ্রাম। এই এলাকায় এই ধরনের চুরির ঘটনা আগে ঘটেনি। গ্রামবাসীদের অনুমান, বাইরের কোনও লোক চুরি করেনি। যে বা যারা চুরি (Stolen) করেছে তারা সকলেই গৃহস্থদের পরিচিত। নয়তো, চুরি করা সম্ভব হত না। তবে, চুরির ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত করা হোক। প্রয়োজনে নাইট গার্ডের ব্যবস্থা করা হোক এমনটাই দাবি করেছেন এলাকাবাসী।

ঘটনায় দাসপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন লক্ষ্মীকান্ত ও প্রশান্ত। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, সকলের বয়ান খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এক বা একাধিক ব্যক্তি এর সঙ্গে জড়িত কি না তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এক পুলিশ অধিকর্তা জানিয়েছেন, বাড়িতে এইভাবে নগদ টাকা ও গয়না রেখে ঘর ফাঁকা করে চলে যাওয়া উচিত নয়। মানুষকে আরও সচেতন হতে হবে।

আরও পড়ুন: গাছ ঝুলছে বৃদ্ধ দম্পতির দেহ, প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে শিউরে উঠলেন এলাকাবাসী!