পুকুর বুজিয়ে ফেলছে মাটি মাফিয়ারা! ফাঁকি দেওয়া হচ্ছে সরকারি রাজস্বে

পশ্চিম মেদিনীপুরের (Paschim Medinipur) ক্ষীরপাই পৌরসভায় কয়েক মাস ধরে বিভিন্ন জায়গায় মাটি মাফিয়াদের রমরমা কারবার চলছে।

পুকুর বুজিয়ে ফেলছে মাটি মাফিয়ারা! ফাঁকি দেওয়া হচ্ছে সরকারি রাজস্বে
ফাইল চিত্র

পশ্চিম মেদিনীপুর: পশ্চিম মেদিনীপুরের (Paschim Medinipur) ক্ষীরপাই পৌরসভায় কয়েক মাস ধরে বিভিন্ন জায়গায় মাটি মাফিয়াদের রমরমা কারবার চলছে। পৌর এলাকায় একাধিক ছোট বড় পুকুর বুঝিয়ে ফেলা হচ্ছে। ফাঁকি দেওয়া হচ্ছে সরকারি রাজস্ব।

স্থানীয় মানুষদের অভিযোগ, বারবার পৌরসভার কাছে এই বিষয়টিকে নজরে আনা হলেও পুরো আইনানুগ কোনও ব্যবস্থাই নেয়নি পৌর প্রশাসক। উল্লেখ্য, কিছুদিন আগে খোদ পৌরসভা লাগোয়া একটি বড় পুকুর বুজিয়ে ফেলার অভিযোগ উঠেছিল পৌরসভার শহর তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতির বিরুদ্ধে।

এমনকি ক্ষীরপাই পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডে একটি বড় জলাশয় বেশ কয়েকদিন ধরেই বুজিয়ে ফেলা হচ্ছে বলে পৌরবাসীর অভিযোগ। আর বৃহস্পতিবার সেই খবর করতে গেলে রীতিমতো সাংবাদিকদের উপর চড়াও হয়ে হুমকি দেন অসিত মল্লিক নামে এক প্রমোটার। কিন্তু তিনি পুকুর বুজানোর কোন অনুমতি দেখাতে পারেনি।

এ বিষয়ে ভূমি দফতরের আধিকারিক-সহ পুলিশকে জানানো হলে দ্রুত পুলিশ প্রশাসন আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিলেও কাজের কাজ কিছুই হয়নি। জেসিবি সমেত চারটি মাটি বোঝায় ট্রাক্টর আটক করলেও রাতের অন্ধকারে তাদের জরিমানা করে ছেড়ে দেওয়া হয় কিন্তু কোন লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয় নি। বিজেপি নেতৃত্বের দাবি, শুধু একটাই না ক্ষীরপাই পৌর এলাকায় মাটি মাফিয়াদের স্বর্গরাজ্য হয়ে উঠেছে। ভূমি দফতরের কর্মী-সহ পৌর প্রশাসক এই কাজের সাথে যুক্ত।

একাধিক পুকুর ভরাটের অভিযোগ স্বীকার করো ক্ষীরপাই পৌরসভার প্রশাসক দূর্গাশংকর পানের দাবি, আমরা খবর পেলেই ব্যাবস্থা নিয়ে থাকি। কিন্তু বিএলআর কোনও কড়া ব্যাবস্থা নিচ্ছে না। ক্ষীরপাই পৌরসভার প্রশাসকের কথাতেই প্রশ্ন দেখা দিচ্ছে সংবাদমাধ্যমের কাছে খবর পাওয়ার পরেও কেন ক্ষীরপাই পৌর প্রশাসক ব্যবস্থা নিতে পারছেন না।

আরও পড়ুন: সবই কি পূর্ব পরিকল্পিত? গণনার ৪৮ ঘণ্টা আগেই বিশেষ ঘটনা সাড়া ফেলে দিল নন্দীগ্রামে!

বর্তমান রাজ্য সরকারের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জল ধরো জল ভরো প্রকল্পের উপর জোর দিচ্ছেন আর ক্ষীরপাই পৌর এলাকায় দেখা যাচ্ছে অন্য ছবি সেখানে জলাশয় বুঝিয়ে ফেলা হচ্ছে একের পর এক ভ্রুক্ষেপ নেই প্রশাসনের ।