সাইবার জালিয়াতের খপ্পড় থেকে বাদ পড়ছে না পুলিশও, নিজের অভিজ্ঞতা শোনালেন বিষ্ণুপুরের ওসি

Cyber Crime: জেলার পুলিশ আধিকারিকদের কাছে সাইবার ক্রাইমের অভিযোগ আসে। কিন্তু এবার একেবারে পুলিশ আধিকারিককেও ঘোল খাওয়ানোর চেষ্টা চালিয়েছিল হ্যাকাররা।

সাইবার জালিয়াতের খপ্পড় থেকে বাদ পড়ছে না পুলিশও, নিজের অভিজ্ঞতা শোনালেন বিষ্ণুপুরের ওসি
নিজস্ব চিত্র।

দক্ষিণ ২৪ পরগনা: করোনাকালে অনলাইন নির্ভরতা বেড়েছে মানুষের। কেনাকাটা থেকে লেখাপড়া এমনকী ক্যাবিনেট মিটিং পর্যন্ত হয়ে যাচ্ছে ভার্চুয়ালি। কিন্তু সব ভালরই একটা ফাঁক থাকে। অনলাইন নির্ভরতাতেও আছে। সেই ফাঁক গলেই ঢুকে পড়ছে আন্তর্জাল জালিয়াতরা। একের পর এক সাইবার জালিয়াতির অভিযোগ পাচ্ছে থানাগুলো। তবে এবার জালিয়াতদের পাল্লায় পুলিশ আধিকারিকই। ওসির নামে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রোফাইল খুলে টাকা হাতানোর চক্রের খোঁজ মিলল। দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিষ্ণুপুরের ঘটনা।

জেলার বিষ্ণুপুর থানা, জয়নগর থানা-সহ অন্যান্য থানা ও জেলার পুলিশ আধিকারিকদের কাছে সাইবার ক্রাইমের অভিযোগ আসে। কিন্তু এবার একেবারে পুলিশ আধিকারিককেও ঘোল খাওয়ানোর চেষ্টা চালিয়েছিল হ্যাকাররা। যদিও সফল হয়নি। বিষ্ণুপুর থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক মৈনাক বন্দ্যোপাধ্যায় শুক্রবার জানান, গত ২৯ মে তাঁর সঙ্গেই এমন ঘটনা ঘটেছে। তাঁর এক বন্ধু ফোন করে জানতে চান তার কেমন আছেন মৈনাক। তাঁর আর্থিক পরিস্থিতিই বা কেমন। প্রথমটা বুঝতে পারেননি ওই পুলিশ আধিকারিক। পরে কথা কথায় সেই বন্ধু জানান, মৈনাকের নাম নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় টাকা চাওয়া হচ্ছে।

আরও পড়ুন: ফের সাইবার প্রতারণা! বিমানের টিকিট বাতিল করতে গিয়ে ৬৬ হাজার টাকা খোয়ালেন তরুণী

পরে মৈনাক সোশ্যাল মিডিয়ায় সার্চ করে দেখেন, তাঁর নামে ভুয়ো অ্যাকাউন্ট খুলেছে হ্যাকাররা। তাঁরই নামে তাঁরই ছবি দিয়ে ফেক অ্যাকাউন্ট খুলে চলছে টাকা তোলার চক্র। ডায়মন্ড হারবার জেলা পুলিশের আওতাধীন সাইবার ক্রাইম সেলে অভিযোগও জানান। এরপর ঘণ্টা তিনেকের মধ্যে ওই ফেক অ্যাকাউন্টটি বন্ধও হয়ে যায়। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ভিন রাজ্যের কোনও চক্র এ ঘটনা ঘটিয়েছে।

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla