Aljeria: ২৬ বছর ‘হারিয়ে যাওয়া কিশোরে’র পর খোঁজ মিলল প্রতিবেশির ঘরে

Algeria man missing for 26 years: ২০১৩ সালে মত্যু হয়েছিল তাঁর মায়ের। তারপর, ওমরানের খোঁজ করা বন্ধই করে দিয়েছিল পুলিশ। আসলে,ওমরানের পরিবার জানতই না, তাদের বাড়ির খুব কাছেই রয়েছে সে। সঠিকভাবে বললে ১০০ মিটারের মধ্যে।

Aljeria: ২৬ বছর 'হারিয়ে যাওয়া কিশোরে'র পর খোঁজ মিলল প্রতিবেশির ঘরে
ছোট্ট এক কুঠুরীতে ২৬ বছর ধরে আটকে ছিলেন ওমরান Image Credit source: Twitter
Follow Us:
| Updated on: May 16, 2024 | 6:29 PM

২৬ বছর আগে, ১৯৯৮ সালে স্কুলে যাবে বলে বেরিয়ে উধাও হয়ে গিয়েছিল ওমর বিন ওমরান। আলজেরিয়ার নাগরিক। সেই সময় তাঁর বয়স ছিল মাত্র ১৯ বছর। তারপর থেকে তাঁর পরিবার, তাঁকে অনেক খুঁজেছে। পরিবারের অনেকে মনে করেছিলেন, গত শতাব্দীর নয়ের দশকে এবং এই সহস্রাব্দের প্রথম দশকে আলডেরিয়া জুড়ে যে গৃহযুদ্ধ হয়েছিল. তাতেই হয়তো মৃত্যু হয়েছে ওমরানের। তবে, এই তত্ত্ব মানতে চান তাঁর মা। ছেলেকে খুঁজে বের করার জন্য সমস্ত রকম চেষ্টা করেছিলেন তিনি। কিন্তু, ২০১৩ সালে তাঁর মত্যু পর, ওমরানের খোঁজ বন্ধই করে দিয়েছিল পুলিশ। আসলে,ওমরানের পরিবার জানতই না, তাদের বাড়ির খুব কাছেই রয়েছে সে। সঠিকভাবে বললে ১০০ মিটারের মধ্যে। অবশেষে ২৬ বছর পর, গত রবিবার (১২ মে) আলজেরিয়ার জেলফা প্রদেশের পুলিশ, ওমরানদের এক প্রতিবেশির বাড়ি থেকে উদ্ধার করেছে ওমরানকে।

এখন, ওমরানের বয়স ৪৫ বছর। সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁকে উদ্ধারের মুহূর্তের একটি ভিডিয়ো ভাইরাল হয়েছে। সেই ভিডিয়োতে দেখা যাচ্ছে, ৪৫ বছরের ওমরানের গাল ভর্তি দাড়ি। তার গায়ে সোয়েটার পরা ছিল। মাটির নীচের এক ছোট্ট কুঠুরিতে, খডের গাদায় বসে ছিলেন তিনি। তার অপহরণকারীর একটি ভেড়ার খামার আছে। তারই নীচে ওই কুঠুরিতে এতদিন ধরে বন্দি রাখা হয়েছিল তাকে। তাকে দেখেই বোঝা যাচ্ছে, মানসিকভাবে তিনি স্থিতিশীল অবস্থায় নেই। উদ্ধারের সময় তাঁকে বারবার থরথর করে কেঁপে উঠতে দেখা গিয়েছে। উদ্ধারের পর, তাঁকে একটি মেডিকেল সেন্টারে নিয়ে গিয়ে শরীরিক ও মানসিক চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে জেলফা অ্যাটর্নি জেনারেলের কার্যালয়।

তারা আরও জানিয়েছে, ৬১ বছর বয়সী এক সরকারী কর্মচারীকে সন্দেহভাজন হিসেবে গ্রেফতার করা হয়েছে। ওই ব্যক্তিই ওই ভেড়ার খামারের মালিক। খামারে সে একাই থাকত। ২৬ বছর আগে এই ব্যক্তিই ওমরানকে অপহরণ করেছিল বলে অনুমান পুলিশের। অ্যাটর্নি জেনারেলের কার্যালয় থেকে আরও জানানো হয়েছে, পুলিশি অভিযানের সময় সন্দেহভাজন ব্যক্তি পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছিল। সেই সময়ই তাকে গ্রেফতার করা হয়। তাকে উপযুক্ত শাস্তি দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে অ্যাটর্নি জেনারেলের কার্যালয়।

কিন্তু কীভাবে ২৬ বছর পর ওমরানের সন্ধান পেল পুলিশ? পুলিশ জানিয়েছে, অপহরণের সময়ই ওই প্রতিবেশির উপর সন্দেহ হয়েছিল ওমরানের পরিবারের। তাদের একটি পোষ্য কুকুর ছিল। ওমরানের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ ছিল কুকুরটি। ওমরান নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার পর, প্রায় এক মাস ধরে কুকুরটি ওই প্রতিবেশীর বাড়ির সামনে বসে থাকত। কয়েকদিন পর, অবশ্য কুকুরটিকে তাদের বাড়ির সামনে মৃত অবস্থায় পেয়েছিল ওমরানের পরিবার। কুকুরটিকে বিষ প্রয়োগ করে মেরে ফেলা হয়েছিল। তাই, ওই ব্যক্তির উপর আগেই সন্দেহ ছিল তাদের। তবে কোনও প্রমাণ ছিল না।

নিখোঁজ হওয়ার সময় ওমরান এবং তাঁর কুকুর

সম্প্রতি, ওই ব্যক্তির সঙ্গে তার ভাইয়ের একটি জমি সংক্রান্ত বিষয়ে মনোমালিন্য হয়। তারপরই ওই ব্যক্তির ভাই, সোশ্যাল মিডিয়ায় ওমরানের অপহরণের বিষয়ে একটি পোস্ট করেছিলেন। তিনি দাবি করেন, এই অপহরণকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকতে পারে তার দাদা। ওই পোস্ট দেখে ফের পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিল ওমরানের পরিবার। এরপরই আলজেরিয়ার তদন্ত সংস্থা, ন্যাশনাল জেন্ডারমেরি, নিখোঁজের মামলাটি ফের চালু করেছিল। সন্দেহভাজন ব্যক্তির বাড়িতে হানা দেয় তদন্তকারীরা। খামারে তারা একটি গোপন দরজা খুঁজে পেয়েছিল। দরজাটি ছিল খড় দিয়ে ঢাকা। ওই দরজা খুলতেই তারা পৌঁছেছিল মাটির নীচের ওই কুঠুরিটিতে।

আলজেরিয়ার স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলির কাছে, ওমরান জানিয়েছেন, গত ২৬ বছরে অনেকবারই তিনি তাঁর পরিবারের সদস্যদের দেখেছেন। মাটির নীচের কুঠুরিটিতে একটি জানালা ছিল। ওই জানলা দিয়ে তিনি দেখতেন, তাঁর আত্মীয়রা রাস্তা দিয়ে যাওয়া আসা করছে। কিন্তু, কোনওদিন তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেনি ওমরান। তিনি বলেছেন, কোনও এক অদৃশ্য শক্তি যেন তাঁকে বাধা দিত। যেন এক ধরণের মন্ত্রের অধীনে ছিলেন তিনি।