Delhi Terror Module: হামলার ছক ছিল উৎসবেই, ৩ রাজ্যে গ্রেফতার ৬ জঙ্গি! উঠে এল বাংলা-যোগও

Delhi Terror Module: পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, আসন্ন উৎসবের মরসুমে উত্তর প্রদেশ, মহারাষ্ট্রের মতো রাজ্যে জঙ্গি হামলার পরিকল্পনা ছিল এই জঙ্গিদের।

Delhi Terror Module: হামলার ছক ছিল উৎসবেই, ৩ রাজ্যে গ্রেফতার ৬ জঙ্গি! উঠে এল বাংলা-যোগও
গ্রেফতার হওয়া ৬ জঙ্গি।

নয়া দিল্লি: নাশকতার ছক ভেস্তে দিয়ে জঙ্গিদমনে (Terrosrist) বড় সাফল্য পেল দিল্লি পুলিশ (Delhi Police)। মঙ্গলবার বিকেলে ৬ জঙ্গিকে হাতেহাতে গ্রেফতার করে দিল্লি পুলিশের বিশেষ সেল। সূত্রের খবর, গ্রেফতার হওয়া ৬ জনের মধ্যে দু’জন সদ্যই পাকিস্তান থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে ফিরেছিল। পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, আসন্ন উৎসবের মরসুমে উত্তর প্রদেশ, মহারাষ্ট্রের মতো রাজ্যে জঙ্গি হামলার পরিকল্পনা ছিল এই জঙ্গিদের।

নানা গোয়েন্দা সংস্থা মারফৎ খবর পেয়ে দিল্লি, রাজস্থান ও উত্তর প্রদেশ জুড়ে জঙ্গিদের খোঁজে তল্লাশি চালাচ্ছিল পুলিশের বিশেষ সেল। গ্রেফতারির পর ওই সেলের বরিষ্ঠ আধিকারিক নীরজ ঠাকুর সংবাদ মাধ্যমকে জানান, ৬ জনের মধ্যে একজন সকাল বেলা তল্লাশি অভিযানে মহারাষ্ট্রের একজন জঙ্গি রাজস্থানের কোটা থেকে গ্রেফতার হয়। তিনজন উত্তর প্রদেশ এটিএসের সাহায্যে সেই রাজ্যে গ্রেফতার হয়। বাকি দু’জন ধরা পড়ে রাজধানী দিল্লিতেই।

ধৃত ৬ জঙ্গিকে জেরা করে পুলিশ জানতে পেরেছে, এদের মধ্যে দু’জন সম্প্রতি ওমানের মসকটে পালিয়ে যায়। সেখান থেকে বোটে করে তারা যায় পাকিস্তানে। পাকিস্তানে ওই দু’জন জঙ্গিকে ১৫ দিন একটি বাগানবাড়িতে রেখে অস্ত্র চালানোর প্রশিক্ষণ দেওয়া হয় এবং কী ভাবে জঙ্গি হয়ে যায় সেই শিক্ষাও দেওয়া হয়। এরপর প্রশিক্ষণ শেষ হলে ফের দুবাইয়ের পথ ধরেই ভারতে ফিরে আসে ওই দুজন।

তবে দিল্লি পুলিশের স্পেশাল সেলের বিশেষ কমিশনার অন্য একটি তথ্য প্রকাশ্যে এনেছেন যা অধিক পরিমাণ চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। তিনি জানান, ধৃতরা জানিয়েছে যে তাদের সঙ্গে আরও ১৪-১৫ এমন ছিল যারা বাংলা ভাষায় কথা বলত। তারাও একই ধরনের প্রশিক্ষণ শিবিরে যোগ দিয়েছিল। জঙ্গিরা ভারতে ঘাপটি মেরে বসে থাকলেও তাদের পরিচালনা সীমান্তের ওপার থেকেই করা হত বলে জানিয়েছেন পুলিশকর্তা।

পুলিশ সূত্রে খবর, ধৃতদের কাছে থেকে আগ্নেয়াস্ত্র এবং বিস্ফোরক উদ্ধার হয়েছে। আসন্ন উৎসবের মরসুমকেই তারা নিশানা করেছিল জঙ্গি হামলা চালানোর জন্য। প্রাথমিকভাবে অনুমান করা হচ্ছে, রামলীলা এবং নবরাত্রির মতো অনুষ্ঠানের সময় নাশকতার ছক কষেছিল জঙ্গিরা। ধৃতদের মধ্যে ইব্রাহিম নামক এক ব্যক্তি শামিল, যার কাজই ছিল তহবিল জোগান দেওয়া। এ বাদে আরেক ধৃত লালা আবার একজন আন্ডারওয়ার্ল্ড কানেক্টর। সে উত্তর প্রদেশ এবং মহারাষ্ট্রে বোমা বিস্ফোরণ করতে চেয়েছিল।

আরও পড়ুন: Coal Scam: কয়লা মামলায় তদন্তে বাধা দিচ্ছে রাজ্য! পুলিশের বিরুদ্ধে দিল্লি হাইকোর্টের দ্বারস্থ ইডি

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla