Mamata Banerjee Narendra Modi Meeting: আজ দিল্লিতে মোদী-মমতা বৈঠক, বিএসএফের এলাকা বৃদ্ধি-সহ একাধিক ইস্যুতে কথা

Mamata Banerjee Narendra Modi Meeting: রাজ্যের সীমান্তবর্তী এলাকায় বিএসএফ-এর এলাকা বৃদ্ধির প্রসঙ্গ নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলবেন মুখ্যমন্ত্রী। দিল্লি যাওয়ার আগেই সে কথা জানিয়ে গিয়েছিলেন তিনি।

Mamata Banerjee Narendra Modi Meeting: আজ দিল্লিতে মোদী-মমতা বৈঠক, বিএসএফের এলাকা বৃদ্ধি-সহ একাধিক ইস্যুতে কথা
ছবি: ফাইল চিত্র

নয়া দিল্লি: আজ, বুধবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে সাক্ষাত্ করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আজ বিকাল ৫টায় মোদী-মমতা সাক্ষাত্। দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রীর দফতরে হবে বৈঠক। একাধিক বিষয় নিয়ে এদিন আলোচনার সম্ভাবনা রয়েছে।

রাজ্যের সীমান্তবর্তী এলাকায় বিএসএফ-এর এলাকা বৃদ্ধির প্রসঙ্গ নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলবেন মুখ্যমন্ত্রী। দিল্লি যাওয়ার আগেই সে কথা জানিয়ে গিয়েছিলেন তিনি। ২০২০-২১ আর্থিক বছরে জিএসটি বাবদ ২০০০ কোটি টাকা প্রাপ্য বাংলার। পাশাপাশি আমফান, ইয়াস ইত্যাদি মোকাবিলা বাবদ ৩২ হাজার কোটি টাকা পাওনা রয়েছে। এছাড়াও আবাস যোজনা, সড়ক যোজনা, ন্যাশনাল হেলথ মিশন, জল জীবন মিশন-সহ একগুচ্ছ প্রকল্পের টাকা বকেয়া রয়েছে রাজ্যের‌। সেই টাকা মেটানোর জন্যও প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন করতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী।

বিরোধী জোটের জমি তৈরি করার সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকও রয়েছে তাঁর দিল্লির সফর সূচিতে। আসন্ন শীতকালীন অধিবেশনে কোন পথে এগোনো হবে, তা নিয়েও দলের সাংসদদের সঙ্গে আলোচনা করবেন তৃণমূলনেত্রী। এবং সেখানে বড় হয়ে উঠতে চলেছে ত্রিপুরা ইস্যু।

এদিকে, মুখ্যমন্ত্রীর রাজধানী সফরের মধ্যেই দিল্লিতে বিদ্যুত্‍ বিভ্রাট। মমতা দিল্লি গেলে থাকেন সাউথ অভিনিউয়ে অভিষেকের বাংলোয়। গতকাল সন্ধ্যা পৌনে সাতটা নাগাদ গোটা সাউথ অ্যাভিনিউয়ে বিদ্যুত্‍ বিপর্যয় হয়। বাড়িতে আলো না থাকায় বেশ কিছু ক্ষণ অন্ধকারেই থাকতে হয় বাংলার মুখ্যমন্ত্রীকে। এই সাউথ অ্যাভিনিউয়েই থাকেন হেভিওয়েট নেতা, মন্ত্রী, সাংসদেরা। ঢিল ছোঁড়া দূরে রাষ্ট্রপতি ভবন। বিদ্যুত্‍ বিপর্যয়ে দুর্ভোগ বাড়ে এলাকার বাসিন্দাদের। দিল্লি প্রশাসন সূত্রের খবর, আচমকাই যান্ত্রিক ত্রুটির কারণেই লোডশেডিং হয়েছিল গতকাল।বেশ কিছু ক্ষণ বিদ্যুৎহীন থাকার পর আলো আসে।

প্রসঙ্গত, এই বছরই জুলাইয়ে মুখ্যমন্ত্রী দিল্লি সফরে গিয়েছিলেন। রাজ্যে তৃতীয়বার সরকার গঠনের পর সেটাই ছিল তাঁর প্রথম দিল্লি সফর। সেবারও তিনি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছিলেন।

একুশের বিধানসভা ভোটের ফলাফল সর্বভারতীয় রাজনীতিতে বিশেষ তাৎপর্যের বাতাবরণ তৈরি করে। বিশেষ করে ২০২৪ সালে লোকসভা ভোটের আগে বিজেপি বিরোধী যে ‘জোট’, তাতে গুরুত্বপূর্ণ মুখ হিসাবে উঠে আসার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা সবসময়ই বলেন, রাজনীতিক মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সব থেকে বড় শক্তি হল, তিনি খুব সহজে এক ছাতার তলায় মানুষকে এনে ফেলতে পারেন। একুশের বিধানসভার ভোটে বিজেপি সর্বশক্তি দিয়ে ঝাঁপিয়েও তাই ঘাসফুলকে উপড়াতে পারেনি। সেক্ষেত্রে জাতীয় রাজনীতিতেও মমতার উপর ভরসা রাখছে বিভিন্ন আঞ্চলিক ও সর্বভারতীয় দলগুলি। এদিনের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর বৈঠকও রাজনৈতিক দিক থেকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

আরও পড়ুন: মধ্যরাতে বিস্ফোরণ, ছড়িয়ে পড়তে থাকে আগুন! উল্টোডাঙার আরিফ রোডের ডালের গুদাম ভস্মীভূত

আরও পড়ুন: পৌরুষ দেখাতে অন্যকে হিজড়ের সঙ্গে তুলনা, সংবিধানকেই অপমান করছেন না তো দিলীপ-কুণালরা? প্রশ্ন বৃহন্নলাদের

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla