ত্রিপুরায় মিলছে না সাংবাদিক বৈঠকের অনুমতি, বুথ-স্তরে শিকড় শক্ত করার কাজ শুরু করল ঘাসফুল

তৃণমূল সূত্রে খবর, আগামিকাল, শনিবার বেলা ১২ টায় দলের ৯ সাংসদ ও এক মন্ত্রীর সাংবাদিক বৈঠক করার কথা রয়েছে।

ত্রিপুরায় মিলছে না সাংবাদিক বৈঠকের অনুমতি, বুথ-স্তরে শিকড় শক্ত করার কাজ শুরু করল ঘাসফুল
নিজস্ব চিত্র

প্রদীপ্তকান্তি ঘোষ: মিশন ত্রিপুরায় নেমে শুরু থেকেই নানাভাবে বাধার সম্মুখীন হতে হচ্ছে তৃণমূলকে। সামনের পথটা যে মোটেই সহজ হবে না, সেটাও ক্রমশ টের পাওয়াচ্ছে বিপ্লব দেব সরকার। এ বার ত্রিপুরায় তৃণমূলকে সাংবাদিক বৈঠক করতেও বাধা দেওয়ার অভিযোগ উঠল প্রশাসনের বিরুদ্ধে। তৃণমূল সূত্রে খবর, আগামিকাল, শনিবার বেলা ১২ টায় দলের ৯ সাংসদ ও এক মন্ত্রীর সাংবাদিক বৈঠক করার কথা রয়েছে। কিন্তু যে হোটেলে বৈঠক হওয়ার কথা, সেখানে এখনও পর্যন্ত প্রশাসনিক অনুমতি দেয়নি পুলিশ।

তবে অনুমতি না পেলেও তৃণমূলের সাংসদ-মন্ত্রীরা দমে যেতে নারাজ। বাংলার শাসকদলের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, যদি আগামিকাল দুপুর পর্যন্ত অনুমতি না মেলে, সেক্ষেত্রে বিকল্প ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কী সেই বিকল্প ব্যবস্থা? তৃণমূল সূত্রে খবর, প্রয়োজন হলে হোটেলের বাইরেই সাংবাদিক বৈঠক করবেন তৃণমূল নেতারা।

রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসুর পাশাপাশি ইতিমধ্যেই ত্রিপুরায় পৌঁছে গিয়েছেন তৃণমূলের একাধিক সাংসদ। ১৬ অগস্ট ‘খেলা হবে’ দিবস বেশ বড় করে পালন করবে বলে ঠিক করেছেন তৃণমূল নেতৃত্ব। তার আগে শুক্রবার রাজ্যসভার সাংসদ শান্তনু সেন তৃণমূলের রাজ্য কমিটির সদস্যদের নিয়ে একটি বৈঠক করেন। যেখানে একাধিক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

তৃণমূল সূত্রে খবর, আগামী ডিসেম্বর মাসের মধ্যে ৬০ বিধানসভা আসনের এই রাজ্যে প্রত্যেকটি বিধানসভার প্রতিটি বুথে পৃথক কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। প্রতিটি বুথ কমিটিতে ১০ জন করে সদস্য থাকবেন। তাঁদের প্রধান দায়িত্ব হবে, বাংলায় কী কী ভাবে উন্নয়ন হচ্ছে, কী কী প্রকল্প হয়েছে, সেই সব বার্তা ত্রিপুরার সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়া। দুই লোকসভা আসনের এই রাজ্যে মোট ৩ হাজার ৩২৮ টি বুথ রয়েছে। যেখানে নিজের শিকড় মজবুত করতে চাইছে ঘাসফুল। আরও পড়ুন: ত্রিপুরায় ‘সিঁদ কাটতে’ চাইছে তৃণমূল, সংগঠনের রাশ নিজের হাতে নিতে উদ্যোগী শাহ-নাড্ডা

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla