Yogi Adityanath: ‘আমার তো কোনও অভিজ্ঞতাই ছিল না….’ সুশাসনের নেপথ্য রহস্য ফাঁস করলেন যোগী

Yogi Adityanath: যোগী আদিত্যনাথ আরও জানান, বিরোধীদের হাজারো প্রচার-প্রচেষ্টা সত্ত্বেও প্রধানমন্ত্রী মোদীর 'সবকা সাথ, সবকা বিকাশ'-র মন্ত্রই সাধারণ মানুষের উপরে প্রভাব ফেলেছে।

Yogi Adityanath: 'আমার তো কোনও অভিজ্ঞতাই ছিল না....' সুশাসনের নেপথ্য রহস্য ফাঁস করলেন যোগী
যোগী আদিত্য়নাথ। ছবি:PTI
TV9 Bangla Digital

| Edited By: ঈপ্সা চ্যাটার্জী

Mar 25, 2022 | 8:41 AM

লখনউ: নির্বাচনের আগেই ঠিক হয়ে গিয়েছিল মুখ্যমন্ত্রীর নাম। সকলেরই জানা ছিল যদি উত্তর প্রদেশ বিধানসভা নির্বাচনে (Uttar Pradesh Assembly Election 2022) বিজেপি(BJP)-ই জয়ী হয়, তবে পুনরায় মুখ্যমন্ত্রী হবেন যোগী আদিত্য়নাথ(Yogi Adityanath)-ই। ১০ মার্চ নির্বাচনের ফল প্রকাশ হতেই স্পষ্ট হয়ে গিয়েছিল দ্বিতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রী হতে চলেছেন যোগী আদিত্যনাথ। বৃহস্পতিবার উত্তর প্রদেশ বিজেপির বিধান পরিষদের নেতা হিসাবে নির্বাচন করা হয়। আজ শুক্রবার তিনি মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে শপথ গ্রহণ করবেন। দ্বিতীয়বারের জন্য মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব গ্রহণ করার আগেই তাঁর সাফল্যের রহস্য ফাঁস করলেন যোগী আদিত্যনাথ।

বৃহস্পতিবারই লখনউয়ের লোক ভবনে নবনির্বাচিত বিধায়করা দেখা করেন। সেখানেই প্রবীণ নেতা সুরেশ কুমার খান্না দলনেতা হিসাবে যোগী আদিত্যনাথের নাম প্রস্তাব করেন। সমস্ত নেতারাও সেই প্রস্তাবে সম্মতি জানান। উল্লেখ্য, যোগী আদিত্যনাথই প্রথম মুখ্যমন্ত্রী যিনি পাঁচ বছর ক্ষমতায় থাকার পরও, পুনরায় মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

এদিন নবনির্বাচিত বিধায়কদের উদ্দেশ্যে যোগী আদিত্যনাথ জানান, উত্তর প্রদেশের সুশাসন প্রতিষ্ঠিত করতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীই পথ দেখিয়েছেন। তিনি বলেন, “২০১৭ সালে আমি যখন মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব গ্রহণ করি, তখন প্রশাসক হিসাবে আমার কোনও অভিজ্ঞতাই ছিল না। উত্তর প্রদেশে কীভাবে সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে হবে, তার জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীই সবর্দা আমায় পথ দেখিয়েছেন।”

যোগী আদিত্যনাথ আরও জানান, বিরোধীদের হাজারো প্রচার-প্রচেষ্টা সত্ত্বেও প্রধানমন্ত্রী মোদীর ‘সবকা সাথ, সবকা বিকাশ’-র মন্ত্রই সাধারণ মানুষের উপরে প্রভাব ফেলেছে। এখন উত্তর প্রদেশে কোনও উৎসব পালনে বাধা নেই, সকলেই খোলামনে যে কোনও উৎসব উদযাপন করতে পারেন।

বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল নিয়েও মুখ খোলেন হবু মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, “সাধারণ মানুষ জাতি-বর্ণ ভেদাভেদ টপকে উঠে এসেছেন এবং জাতীয়তাবাদ, উন্নয়ন ও সুশাসনের সপক্ষেই নিজেদের সমর্থন উজাড় করে দিয়েছেন। আগে রাজ্যে কেন্দ্রীয় প্রকল্প কার্যকর করতে যে সমস্যা হত, তা বিগত পাঁচ বছরে দূর হয়েছে। সাধারণ মানুষ এই প্রথম বুঝতে পেরেছেন যে গরিব মানুষদেরও বাড়িঘর হতে পারে। এই প্রথম মানুষ বুঝতে পেরেছেন যে গরিব মানুষদের অ্যাকাউন্টেও সরাসরি টাকা পাঠানো যায়।”

আরও পড়ুন: S Jaishankar on India-China Relations: হঠাৎ হাজির চিনা বিদেশমন্ত্রী, ভারত-চিন সম্পর্ক নিয়ে কী বললেন জয়শঙ্কর? 

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla