COVID Vaccine: টিকাকরণে বড় সিদ্ধান্ত ভারতের, স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানালেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান

India to Resume Vaccine Export: একাধিক করোনা টিকা জরুরিভিত্তিতে প্রয়োগের অনুমোদন পাওয়ায় এবং দেশীয় টিকা কোভ্যাক্সিন ও কোভিশিল্ডের উৎপাদন বৃদ্ধি হওয়ায় মিটে গিয়েছে টিকা সঙ্কট। সেই কারণেই আগামী অক্টোবর মাস থেকে ভারত ফের কোভ্যাক্সের অধীনে টিকা সরবরাহ ও অনুদান শুরু করবে।

COVID Vaccine: টিকাকরণে বড় সিদ্ধান্ত ভারতের, স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানালেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান
প্রতীকী চিত্র।

নয়া দিল্লি: টিকাকরণে নজির গড়েছে দেশ। কাটিয়ে ওঠা গিয়েছে টিকা সঙ্কটও (Vaccine Crisis)। লক্ষ্যমাত্রার কাছাকাছি পৌঁছে যাওয়ায় এ বার বিদেশেও করোনা টিকা রফতানি (COVID Vaccine Export) শুরু করতে চলেছে ভারত। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফে পুনরায় রফতানি শুরুর ঘোষণা করার পরই   বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান টেড্রোস আধানম গেব্রিয়াসিস (Tedros Adhanom Ghebreyesus) ধন্যবাদ জানালেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডব্য(Mansukh Mandaviya)-কে।

চলতি বছরের শুরু থেকেই গণটিকাকরণ কর্মসূচি শুরু হয়েছে দেশে। তবে মার্চ মাস থেকেই একাধিক রাজ্যের তরফে টিকা সঙ্কটের অভিযোগ জানানো হয়। বিরোধীরাও বিদেশে রফতানি নিয়ে সরব হয়। বাধ্য হয়ে এপ্রিল মাস থেকে টিকা রফতানি ও অনুদান বন্ধ করে দেয় ভারত। তবে বছরের তৃতীয় ভাগের কাছাকাছি এসেই বদলে গিয়েছে গোটা টিকাকরণের চিত্র। একদিনেই আড়াই কোটি করোনা টিকা দিয়ে বিশ্ব রেকর্ড গড়েছে দেশ। এখনও অবধি দেশের মোট প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে ৮২ কোটিরও বেশি মানুষ করোনা টিকা পেয়েছেন।

অন্যদিকে, দেশে একাধিক করোনা টিকা জরুরিভিত্তিতে প্রয়োগের অনুমোদন পাওয়ায় এবং দেশীয় টিকা কোভ্যাক্সিন ও কোভিশিল্ডের উৎপাদন বৃদ্ধি হওয়ায় মিটে গিয়েছে টিকা সঙ্কটও। সেই কারণেই আগামী অক্টোবর মাস থেকে ভারত ফের কোভ্যাক্সের অধীনে টিকা সরবরাহ ও অনুদান শুরু করবে।

কেন্দ্রের এই ঘোষণার পরই বুধবার সকালে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান টেড্রস আধানম গেব্রিয়াসিস টুইট করে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডব্যকে ধন্যবাদ জানান। তিনি টুইটে লেখেন, “ভারত অক্টোবর মাস থেকেই কোভ্যাক্সে ফের টিকা রফতানি শুরু করছে, এই ঘোষণা করার জন্য স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডব্যকে অনেক ধন্যবাদ। বিশ্বের প্রতিটি দেশে বছর শেষের মধ্যে ৪০ শতাংশ টিকাকরণের লক্ষ্যমাত্রায় পৌঁছতে অনেক সাহায্য হবে এই সিদ্ধান্তের কারণে।”

উল্লেখ্য, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও GAVI মিলিত উদ্যোগে বিশ্বের প্রতিটি দেশে সুষ্ঠ পদ্ধতিতে টিকা আমদানি-রফতানি ও অনুদানের প্রক্রিয়াকে সচল রাখার জন্যই কোভ্যাক্স সংগঠন তৈরি করা হয়েছে। ভারত থেকে এপ্রিল মাসে টিকা রফতানি বন্ধ করে দেওয়ায় সমস্যায় পড়ে একাধিক দেশ।

মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর মার্কিন সফরের আগেই ফের একবার টিকা রফতানির অনুমতি দেওয়া হয়। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডব্য জানান, ভ্যাকসিন মৈত্রীর অধীনে প্রতিবেশী দেশ ও কোভ্যাক্সে টিকা সরবরাহেই সর্বাধিক গুরুত্ব দেওয়া হবে। কীভাবে দ্রুত দেশগুলিতে টিকা পৌঁছে দেওয়া যায়, তা নিয়ে ইতিমধ্যেই আলোচনা শুরু হয়ে গিয়েছে।

তিনি জানান, বায়োলজিক্যাল ই সহ একাধিক সংস্থার নতুন ভ্যাকসিনগুলিকেও ভারতে প্রয়োগের অনুমোদন দেওয়ায় আগামী তিন মাসের মধ্যে দেশে প্রতি মাসে ১০০ কোটি টিকা উৎপাদন সম্ভব। এই টিকা দিয়ে প্রতিবেশী দেশগুলিকেও সাহায্য করা হবে।

টিকা রফতানিতে স্থগিতাদেশ জারির আগে অবধি ভারতের তরফে প্রায় ১০০টি দেশে মোট ৬.৬ কোটি টিকা অনুদান ও বিক্রি করা হয়েছিল।

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla