Sovan Chatterjee: ফের লেগে গেল! বাড়ি ছাড়বেন না রত্না; কী ভাবে বের করতে হয় দেখিয়ে ছাড়বেন বৈশাখীও

Ratna Chatterjee VS Baisakhi Banerjee: রত্না চট্টোপাধ্যায়ের তরফে জানানো হয়েছে, তাঁকে অফিশিয়ালি কোনও নোটিস পাঠানো হয়নি। তিনি সাফ জানিয়ে দেন, এই বাড়ি থেকে কেউ তাঁকে উৎখাত করতে পারবে না।

Sovan Chatterjee: ফের লেগে গেল! বাড়ি ছাড়বেন না রত্না; কী ভাবে বের করতে হয় দেখিয়ে ছাড়বেন বৈশাখীও
বেহালার বাড়ি বিক্রি নিয়ে এবার নতুন করে সংঘাতে জড়ালেন রত্না চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল চিত্র।

কলকাতা: বেহালার বাড়ি বিক্রি নিয়ে এবার নতুন করে সংঘাতে জড়ালেন রত্না চট্টোপাধ্যায় (Ratna Chatterjee) ও শোভন চট্টোপাধ্যায় (Sovan Chatterjee)। সূত্রের খবর, পর্ণশ্রীর বাড়িটি এক কোটি টাকায় বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে (Baisakhi Banerjee) বিক্রি করে দেন শোভন। যা নিয়ে ক্ষোভে ফেটে পড়েন শোভনের স্ত্রী রত্না। বৈশাখীকে কাগজপত্র দেখানোর চ্যালেঞ্জ করেন রত্না।

পর্ণশ্রীর ১৩৯ ডি/৪ যে বাড়িটি তা শোভন চট্টোপাধ্যায়ের। সূত্রের খবর সেই বাড়িটি বিক্রি করা হয়েছে। বাড়িটি কিনেছেন শোভনের বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। ১ কোটি টাকার বিনিময়ে এই বাড়িটি বিক্রি হয়েছে বলে খবর। এমনও অভিযোগ, শোভন চট্টোপাধ্যায়ের আর্থিক অবস্থা অত্যন্ত খারাপ হওয়ায় এই বাড়িটি তিনি বিক্রি করে দিয়েছেন। এদিকে যে বাড়িটি বিক্রি করা হয়েছে, সেখানেই সন্তানদের নিয়ে রত্না চট্টোপাধ্যায় থাকেন।

রত্না চট্টোপাধ্যায়ের তরফে জানানো হয়েছে, তাঁকে অফিশিয়ালি কোনও নোটিস পাঠানো হয়নি। তিনি সাফ জানিয়ে দেন, এই বাড়ি থেকে কেউ তাঁকে উৎখাত করতে পারবে না। রত্নার বক্তব্য, আইনসম্মত ভাবে এই বাড়ির মালিকানায় তাঁর অধিকার রয়েছে। কারণ, তাঁদের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়নি। এখনও তিনিই শোভন চট্টোপাধ্যায়ের আইনসম্মত স্ত্রী। তাই কোনও ভাবেই স্ত্রী-সন্তানকে বাড়ি থেকে বের করা যাবে না। প্রয়োজনে আইনের সাহায্য নেবেন তিনি।

রত্না চট্টোপাধ্যায় বলেন, “যদি বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় শোভন চট্টোপাধ্যায়ের কাছ থেকে এই বাড়ি কোটি টাকায় কিনে থাকেন, তা হলে এ বাড়ির মালিক এখন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। তার প্রমাণ আমাকে দেখাতে হবে। কাগজপত্র দেখাতে হবে। কী ভাবে কেনা হয়েছে তা আমাকে জানাতে হবে। সে সব অবশ্য আইনই বলবে। আইনের পথে গোটা বিষয়টা চলবে। বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের ক্ষমতা থাকলে আমাকে এবং আমার ছেলে মেয়েকে এই বাড়ি থেকে বের করে তার পজিশন নিক।”

পাল্টা বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “জনপ্রতিনিধি হিসাবে, যাঁরা আইন প্রণয়ন করেন, তাঁরাই যদি আইন ভাঙার কথা বলেন, সেটা খুবই দুঃখজনক। এখন উনি হুঁশিয়ারি দেন যদি, সেটা তো একজন ক্ষমতাবান মানুষ হিসাবে উনি দিতেই পারেন। ওনার পেশিশক্তি ব্যবহার করে যদি ওই বাড়িটা দখল করে থাকেন সেটা ওনার রুচি। কিন্তু উনি তো ইলেকশন ডিক্লেয়ারেশনে বলেছেন ৪২টি সম্পত্তির মালিক, যিনি বলছেন তাঁর বাবা এত ধনী। তিনি একটা সম্পত্তি, যা আমি আমার কষ্ট করে উপার্জনের টাকায় কিনেছি সেটা যদি না ছাড়েন তাতে খুবই দুঃখজনক ব্যাপার। আমি নিশ্চয়ই প্রথমে ওনাকে ভদ্রভাবে বেরিয়ে যেতে বলব। আত্মসম্মান থাকলে নিশ্চয়ই উনি যাবেনও। কিন্তু তা সত্ত্বেও যদি উনি জোর করে আমার বাড়িতে থাকার চেষ্টা করেন আমিও আইনি পদক্ষেপ করব। আইন আছে। এখনও তো দেশ থেকে আইনকানুন উঠে যায়নি। আইনি প্রক্রিয়াতে যে ভাবে ওনাকে বের করতে হয় সেটাই করতে হবে।”

আরও পড়ুন: ভবানীপুরে ভোটের দিনও কি ভাসতে চলেছে কলকাতা? কী জানাল হাওয়া অফিস…

Read Full Article

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla