Tathagata Roy: বিজেপিতে রয়েছে পিকের মাইনে দেওয়া কর্মী! তাই…, ফের তথাগতর বোমা

Tathagata Roy again tweeted: কিছুদিন আগেই বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষের সঙ্গেও বিরোধ বাধে বর্ষীয়ান পদ্ম নেতার। ইকোপার্কে প্রাতঃভ্রমণে গিয়ে দিলীপ মন্তব্য করেন, তথাগত চাইলে দল ছাড়তে পারেন। তারপরেই তথাগত স্পষ্ট জানিয়ে দেন তিনি দল ছাড়ছেন না। দল ছাড়লে অনেকের গুপ্তকথা ফাঁস করে দিতেও পারেন তিনি।

Tathagata Roy: বিজেপিতে রয়েছে পিকের মাইনে দেওয়া কর্মী! তাই..., ফের তথাগতর বোমা
ফের টুইট বিজেপি নেতা তথাগত রায়ের।

কলকাতা: ফের টুইটে বিস্ফোরণ তথাগত রায়ের। এ বার বিজেপির এক কর্মীর কথা উদ্ধৃত করে বর্ষীয়ান পদ্ম নেতার দাবি, বিজেপি-র অন্দরে কাজ করছে  ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোরের মাইনে করা লোক। মঙ্গলবার পরপর দুটি টুইট করেন তথাগত (Tathagata Roy)।

এদিন সকালের প্রথম টুইটে তথাগত লেখেন, ‘এক জন একনিষ্ঠ বিজেপি সমর্থকের কাছ থেকে পাওয়া। ‘স্যার আপনি আমার কথা বিশ্বাস করবেন কি না জানি না, আমাদের আমাদের পাশের গ্রামে এক জন আমাকে বলছিল ২০২১-এর বিধানসভা ভোটের আগে পিকে-র টিম থেকে অনেকেই ফোন করছিল। আমাদের এখানকার এক জন শিক্ষিত যুবককে ফোন করেছিল…’।’

তারপরেই তাঁর দ্বিতীয় টুইট, “তাকে ফোন করে বলছিল ১৩ হাজার টাকা করে মাইনে দেবে বিজেপি-তে যোগ দিয়ে তৃণমূলের হয়ে কাজ করার জন্য। তাই আমার মনে হয়, বিজেপি-তে এখনও নীচের তলায় এ রকম অনেক পিকে-র মাইনে দেওয়া কর্মী আছে। যত দিন না এদের চিহ্নিত করা যাবে, বিজেপি-কে জেতানো অসম্ভব’।’

তথাগতর ফের টুইট-বোমায় বিজেপির মুখপাত্র জয়প্রকাশ মজুমদার বলেন, “তথাগতবাবু বর্ষীয়ান নেতা। অত্যন্ত দুঃখজনক ওঁর মন্তব্য। বরাবরই তৃণমূলের প্রতি ওঁ মৃদুভাষী। আগে দলের নেতাদের উপর কথা বলছিলেন, এখন দলের নিচু তলার কর্মী যাঁরা সংগঠনকে এগিয়ে নিয়ে যান তাঁদেরকেও নিশানা করে কথা বলছেন। তথাগতবাবুকে আর সত্যিই কিছু বলার নেই।”

বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির পরাজয়ের পর থেকেই বিভিন্ন সময়ে দলের বিরুদ্ধেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তথাগত। তাঁর নিশানায়, দিলীপ ঘোষ, কৈলাস বিজয়বর্গীয় থেকে শুরু করে কেন্দ্রীয় নেতারা সকলেই রয়েছেন। তথাগতর এমন ‘চাঁচাছোলা’ মন্তব্যে কার্যত বারবারই অস্বস্তিতে পড়েছে গেরুয়া শিবির।

কিছুদিন আগেই বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষের সঙ্গেও বিরোধ বাধে বর্ষীয়ান পদ্ম নেতার। ইকোপার্কে প্রাতঃভ্রমণে গিয়ে দিলীপ মন্তব্য করেন, তথাগত চাইলে দল ছাড়তে পারেন। তারপরেই তথাগত স্পষ্ট জানিয়ে দেন তিনি দল ছাড়ছেন না। দল ছাড়লে অনেকের গুপ্তকথা ফাঁস করে দিতেও পারেন তিনি। সেইসময়ে নিজের ফেসবুক হ্যান্ডেলে তথাগত লেখেন, “সকলকে আশ্বস্ত করছি এই বলে যে, আমি স্বেচ্ছায় দল ছাড়ছি না। আমি আপাতত এখন সাধারণ সদস্য। এই অবস্থাতেই যাত্রার বিবেকের ভূমিকা পালন করে যাব।” তিনি আরও লেখেন, “দল ছাড়তে পারলে সব গুপ্তকথাই ফাঁস করতে পারতাম, কিন্তু এখনই তা হচ্ছে না।”

সেখানেই শেষ হয়নি সংঘাত। মেঘালয়ের প্রাক্তন রাজ্যপাল আরও দাবি করেন, “বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির টিকিট বিনিময়ের ক্ষেত্রে দলের একাংশ অর্থ এবং নারী চক্রের দ্বারা প্রভাবিত হয়।” টুইটে তথাগত লেখেন, “৩ থেকে ৭৭”(এখন ৭০) গোছের আবোলতাবোল বুলিতে পার্টি পিছোবে, এগোবে না। অর্থ এবং নারীর চক্র থেকে দলকে টেনে বার করা অত্যাবশ্যক। দলের নবনিযুক্ত সভাপতি ও বিরোধী দলনেতা – এঁরা দুজনে নেতৃত্ব দিন। পুরোনো চক্রে ফেঁসে থাকলে এখন যে পুরভোটের প্রার্থী পাওয়া যাচ্ছে না এরকম অবস্থাই চলবে।”

এরপরেই তথাগতর টুইটের বিষয়টি উল্লেখ করে হেয়ারস্ট্রিট থানায় গিয়ে  লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন আইনজীবী সায়ন বন্দ্যোপাধ্যায়। অভিযোগ পত্রের সঙ্গে তিনি তথাগত রায়ের সমস্ত টুইটের স্ক্রিনশট জমা দেন পুলিশের কাছে। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, অভিযোগ গ্রহণ করা হয়েছে সব দিক খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ফের মঙ্গলবার তথাগতর টুইটে নতুন করে অস্বস্তি বাড়ছে বিজেপির অন্দরে বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক মহলের একাংশ।

আরও পড়ুন: ভাইরাল অডিয়ো: কুণাল ঘোষের হাত থেকে উত্তরীয় পরা ‘দাদার অনুগামী’-কে দলে নিতে নিমরাজি তৃণমূল!

Published On - 2:48 pm, Tue, 30 November 21

Related News

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla