রাজ্যকে না জানিয়ে জল ছাড়া হয় না, মুখ্যমন্ত্রীর ‘ম্যান মেড’ দাবির পালটা জবাব ডিভিসি-র

Bengal Flood: দামোদর ভ্যালি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে পালটা জানানো হয়েছে, পলি জমে নদীগুলির নব্যতা কমে যাওয়ার কারণে অতিরিক্ত জল ধরে রাখা সম্ভব হচ্ছে না।

রাজ্যকে না জানিয়ে জল ছাড়া হয় না, মুখ্যমন্ত্রীর 'ম্যান মেড' দাবির পালটা জবাব ডিভিসি-র
প্রতীকী ছবি

কলকাতা: বাঁধের চাপ ধরে রাখতে পারছে না ডিভিসি। জল ছাড়তে হচ্ছে প্রচুর পরিমাণে। আর সেই কারণেই পশ্চিমবঙ্গের একাধিক জেলায় বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে রাজ্যে। এই অবস্থায় বুধবার রাজ্যের সেচ দফতরের পক্ষ থেকে ডিভিসিকে একটি চিঠি দিয়ে আগামী ৩-৪ দিন জল ছাড়া বন্ধ রাখার আবেদন জানানো হয়। যদিও দামোদর ভ্যালি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে পালটা জানানো হয়েছে, পলি জমে নদীগুলির নব্যতা কমে যাওয়ার কারণে অতিরিক্ত জল ধরে রাখা সম্ভব হচ্ছে না। তাই জল ছাড়তেই হচ্ছে ডিভিসিকে।

ডিভিসির তরফে সাফ জানানো হয়েছে, রাজ্য সরকারকে না জানিয়ে একটুও জল ছাড়ছে না তারা। জল ছাড়ার পুরো বিষয়টিই রাজ্যের গোচরে রয়েছে। ডিভিসি-র এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর সত্যব্রত বন্দ্যোপাধ্যায় TV9 বাংলাকে জানান, “জল ছাড়ার আগে রাজ্য সরকারের অনুমতি নেওয়া হয়। রাজ্য যখন আমাদের সম্মতি দেয় যে আপনারা ৫০ হাজার কিউসেক জল ছাড়তে পারেন তখন আমরা সেরকমই জল ছাড়ি। যখন ১ লক্ষ কিউসেক ছাড়ার সম্মতি দেয় তখন ১ লক্ষ ছাড়া হয়। প্রত্যেকবার জল ছাড়ার আগে রাজ্য সরকারের অনুমতি নেওয়া হয়েছে। সেই অনুমতি নেওয়ার নথিও আমাদের কাছে রয়েছে। সেচ দফতরের থেকে এই অনুমতি নেওয়া হয়।”

দামোদর ভ্যালি কর্পোরেশনের সাফ দাবি, কেন্দ্র-রাজ্য নজরদারিতেই জল ছাড়ার প্রক্রিয়া চলছে। কিন্তু পলি পড়ে যেভাবে নদীগুলির নব্যতা কমেছে, তাতে কোনও ভাবেই জলাধারগুলি জল ধরে রাখতে পারছে না। তাই অতিরিক্ত জল ছাড়তেই হচ্ছে। যদিও রাজ্যের বন্যা পরিস্থিতির জন্য এই প্রথমবার ডিভিসি-কে কাঠগড়ায় তোলা হয়েছে এমনটা নয়। এর আগেও যখনই রাজ্যে বন্যা পরিস্থিতি দেখা গিয়েছে, তখনই সরকারের অভিযোগের তির ঘুরেছে ডিভিসি-র দিকেই। যদিও প্রত্যেকবারই ডিভিসি-র পক্ষ থেকেও একটা বিষয় সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, রাজ্যকে না জানিয়ে কখনই তারা জল ছাড়ে না। ছাড়তে পারেও না। আরও পড়ুন: অন্তত ৩-৪ দিন জল ছাড়া বন্ধ রাখা হোক, ডিভিসিকে চিঠি দিয়ে আবেদন রাজ্যের

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla