Covid Test in Bengal: নমুনা পরীক্ষা কেন কমছে রাজ্যে? করোনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে চিঠি কেন্দ্রের

Letter from Centre to WB: গত কয়েক দিনে করোনায় দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা কমেছে। কেন্দ্রের অভিযোগ, নমুনা পরীক্ষাও কমছে বাংলায়।

Covid Test in Bengal: নমুনা পরীক্ষা কেন কমছে রাজ্যে? করোনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে চিঠি কেন্দ্রের
আজও ৭০০- পার করোনার দৈনিক সংক্রমণ


কলকাতা: করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আসেনি এখনও। গোটা দেশের পাশাপাশি বাংলাতেও ওঠা-নামা করছে করোনার গ্রাফ। গত কয়েকদিনে সংক্রমণ কিছুটা কমেছে, তবে কেন্দ্রের দাবি, আদতে নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা কমেছে রাজ্যে। সেই কারণেই দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা কমেছে। এই নিয়ে আজ রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরকে চিঠি দিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিব রাজেশ ভূষণ। একধাক্কায় অনেকটাই কমেছে নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা, পরিসংখ্যান তুলে ধরে সেই দাবি করেছে কেন্দ্র। পর্যবেক্ষণের অভাবে অদূর ভবিষ্যতে সংক্রমণের ঢেউ আরও ভয়ঙ্কর হতে পারে বলেও উল্লেখ করা হয়েছে।

কেন্দ্রের তরফে বলা হয়েছে, ২২ নভেম্বরের হিসেব অনুযায়ী, গত এক সপ্তাহে নমুনা পরীক্ষার দৈনিক গড় ৩৮ হাজার ৬০০। আগের থেকে যা অনেকটাই কম। ৩১ মে থেকে ৬ জুন পর্যন্ত এক সপ্তাহে সেই গড় ছিল ৬৭ হাজার ৬৪৪। সেই সঙ্গে এ রাজ্যের পজিটিভিটি রেট নিয়েও আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে। শেষ এক সপ্তাহের বুলেটিন অনুযায়ী, পজিটিভিটি রেট থাকছে ২-এর পাশেপাশে। চিঠিতে বলা হয়েছে, ২২ নভেম্বর পর্যন্ত এক সপ্তাহে পজিটিভিটি রেট ২.১ শতাংশ। গত ৪ সপ্তাহ ধরে এই পজিটিভিটি রেট একই আছে বলে দাবি করা হয়েছে চিঠিতে।

শুধু তাই নয়, কোন কোন জেলায় নমুনা পরীক্ষার হার কমেছে, তার উল্লেখও রয়েছে। সেই তালিকায় রয়েছে কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার, হুগলি, মেদিনীপুর। এ ছাড়া কোন কোন জেলায় পজিটিভিটি রেট বেশি, তার উল্লেখও রয়েছে চিঠিতে। সেই তালিকায় রয়েছে কলকাতাও। কলকাতা, দুই ২৪ পরগনা, জলপাইগুড়ি, দার্জিলিং, হাওড়া, দক্ষিণ দিনাজপুরে সপ্তাহ খানেক ধরে পজিটিভিটি রেট ২-এর বেশি। এক দিকে ক্রমশ সচল হচ্ছে সবকিছু, ফলে মানুষের যাতায়াত বাড়ছে। পাশাপাশি বাড়ছে শীত। তাই এই পরিস্থিতিতে রাজ্যকে আগাম সতর্ক হতে বলেছে কেন্দ্র।

গত মাসেই করোনা নিয়ে রাজ্যকে কেন্দ্রের তরফে চিঠি দেওয়া হয়। গোটা রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি নিয়েই উদ্বেগ প্রকাশ করা হয় সেই চিঠিতেও। সেখানে বিশেষভাবে উল্লেখ করা হয়েছিল কলকাতার কথা। চিঠিতে স্পষ্ট লেখা হয়, কলকাতা উদ্বেগের অন্যতম কারণ। পরিসংখ্যান দিয়ে বোঝানো হয়, উদ্বেগের কারণটা ঠিক কেন। নজিরবিহীনভাবে সেই চিঠিতে দেওয়া হয়েছিল রেখচিত্র। সেখানে বোঝানো হয়, গত এক মাস ধরে কী ভাবে এ রাজ্যে বেড়েছে সংক্রমণ।

মঙ্গলবারের বুলেটিন অনুযায়ী, করোনা আক্রান্তের সংখ্য়া ফের ৭০০ পার করেছে। ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয় ৭২০ জন। মৃতের সংখ্যা কিছুটা কমেছে সোমবারের তুলনায়। রাজ্যে করোনা আক্রান্ত হয়ে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে এক দিনে। এ দিনও পজিটিভিটি রেট ছিল ২ শতাংশ। আদতে পুজোর পর থেকেই রাজ্যে নতুন করে চোখ রাঙাতে শুরু করেছে করোনা সংক্রমণ।

আরও পড়ুন: ‘দূষণ কমলেও মামলা বন্ধ হবে না’, আমলাদের নিষ্ক্রিয় ভূমিকায় ক্ষুব্ধ সুপ্রিম কোর্ট

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla