Oats Pudding for Weight Loss: ছুটির দিনে মিষ্টিমুখ করতে গিয়ে ওজন নিয়ে টেনশন? ওটস দিয়ে বানান সুস্বাদু পুডিং

TV9 Bangla Digital

TV9 Bangla Digital | Edited By: megha

Updated on: Mar 19, 2023 | 9:30 AM

Dessert Recipe: ওজন কমাতে গিয়ে মিষ্টির প্রতি লোভ ছাড়তে হয়। কিন্তু কখনও কখনও ডেজার্ট‌ খেতেও ইচ্ছা যায়। আর সেক্ষেত্রে কাজে আসতে পারে ওটস ও স্ট্রবেরির পুডিং।

Oats Pudding for Weight Loss: ছুটির দিনে মিষ্টিমুখ করতে গিয়ে ওজন নিয়ে টেনশন? ওটস দিয়ে বানান সুস্বাদু পুডিং

স্বাস্থ্য সচেতন হতে গিয়ে খাবারের বৈচিত্র্য আনার কথা অনেকেই ভুলে যান। রোজ সেই একঘেঁয়ে ওটস খান টক দই দিয়ে। যদিও এই খাবার মোটেই অস্বাস্থ্যকর। বরং এই খাবার খেয়ে আপনি অনায়াসে ওজন কমাতে পারেন। কিন্তু খাবারেও সামান্য বদল আনা জরুরি। ওটসের বিকল্প খুঁজে পাওয়া কঠিন। ওটস হল এমন একটি খাবার যা ওজন কমায়, রক্তে শর্করার মাত্রা, খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখে। ওটসের মধ্যে ভরপুর পরিমাণে ফাইবার রয়েছে, যা আপনাকে বদহজমের সমস্যা থেকে দূরে রাখতে সাহায্য করে। কিন্তু রোজ রোজ একই উপায়ে ওটস খাওয়া যায় না। তাহলে উপায় কী?

স্বাদ বদলের জন্য ওটস ও স্ট্রবেরির পুডিং খেতে পারেন। ওজন কমাতে গিয়ে অনেকেই মিষ্টির প্রতি লোভ ছেড়ে দেন। কিন্তু কখনও কখনও মিষ্টি খাবার খেতেও ইচ্ছা যায়। আর সেক্ষেত্রে কাজে আসতে পারে এই ওটস ও স্ট্রবেরির পুডিং। যদিও স্ট্রবেরিও স্বাস্থ্যের জন্য দারুণ উপকারী। স্ট্রবেরির মধ্যে প্রয়োজনীয় ভিটামিন, মিনারেল ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে। এই ফলের মধ্যে ভিটামিন সি রয়েছে যা রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। সুতরাং, ওজনকে নিয়ন্ত্রণে রাখার পাশাপাশি স্ট্রবেরি ডায়াবেটিস, কোলেস্টেরলের রোগীদের জন্যও উপকারী। অর্থাৎ, এই ওটস ও স্ট্রবেরির পুডিং ডায়াবেটিসের রোগীরাও খেতে পারেন।

যে উপায়ে ওটস ও স্ট্রবেরির পুডিং তৈরি করবেন-

এই খবরটিও পড়ুন

১/২ কাপ ওটস নিন। আর ১/২ কাপ স্ট্রবেরির টুকরো নিন। প্রথমে শুকনো কড়াইতে ওটসটা নেড়ে নিন। পুডিং তৈরি করতে রোস্টেড ওটস ব্যবহার করুন। এবার একটি বড় কাচের বাটিতে রোস্টেড ওটস এবং কেটে রাখা স্ট্রবেরি নিন। এবার এতে ঠান্ডা আমন্ডের দুধ মিশিয়ে দিন। আমন্ডের দুধের বদলে আপনি সাধারণ দুধও ব্যবহার করতে পারেন। কিন্তু ফুল ফ্যাট দুধ ব্যবহার করবেন না। ওজন কমানোর ক্ষেত্রে আমন্ড দুধ দারুণ উপকারী। এবার উপকরণগুলো ভাল করে মিশিয়ে নেবেন। এবার এই মিশ্রণটা ৬ ঘণ্টা ফ্রিজে রেখে দিন। ব্যস তৈরি ওটস ও স্ট্রবেরির পুডিং। আপনি এই ওটস ও স্ট্রবেরির পুডিং আগের দিন রাতে তৈরি করে ফ্রিজে রেখে দিতে পারেন। পরদিন সকালে জলখাবারে খেতে পারেন এই পুডিং।

ওটস ও স্ট্রবেরির পুডিংয়ের উপকারিতা-

ওটস ও স্ট্রবেরির পুডিংয়ে কোনওরকম চিনি নেই। সুতরাং, শরীরে এটি কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ফেলে না। অন্যদিকে, এই পুডিংয়ের মধ্যে ভরপুর পরিমাণে ফাইবার রয়েছে। এই পুডিং খেলে দীর্ঘক্ষণ পেট ভর্তি মনে হবে। তাছাড়া এতে আপনার হজম স্বাস্থ্য উন্নত হবে। আমন্ডের দুধ ব্যবহার করায় এই খাবারে প্রোটিনেরও অভাব হবে না।

Latest News Updates

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla