Alipurduar: বর্ষা এল না, তার আগেই ডেঙ্গির বাড়বাড়ন্ত ভাবাচ্ছে স্বাস্থ্য দফতরকে

Alipurduar: আলিপুরদুয়ারের জেলাশাসক আর বিমলা বলেন,"আলিপুরদুয়ারে আক্রান্তের সংখ্যা ৭২ জন। তার মধ্যে বেশি কালচিনিতে। এখানে ৫৭ জন আক্রান্ত হয়েছেন। চাবাগান,গ্রামপঞ্চায়েত,জেলা পরিষদকে সঙ্গে নিয়ে ডেঙ্গু মোকাবিলায় নামা হচ্ছে।

Alipurduar: বর্ষা এল না, তার আগেই ডেঙ্গির বাড়বাড়ন্ত ভাবাচ্ছে স্বাস্থ্য দফতরকে
বর্ষা আসতে এখনও অনেক দেরি রয়েছে। কিন্তু, প্রচণ্ড দাবদাহের মধ্যেই অনেক জায়গায় বেড়েছে মশার উপদ্রপ। যার ফলে ফের ডেঙ্গি আক্রান্তের খবর আসতে শুরু করেছে
Follow Us:
| Edited By: | Updated on: May 20, 2024 | 6:57 PM

আলিপুরদুয়ার: কেরলে বর্ষা এসেছে। কিন্তু এখনও ঢোকেনি রাজ্যে। আর বর্ষাকাল এলেই মশাবাহিত রোগের হিড়িক বাড়ে। বিশেষ করে ম্যালেরিয়া ও ডেঙ্গি। কিন্তু এবারের ছবিটা যেন ভিন্ন। রাজ্যের আলিপুরদুয়ার জেলায় ক্রমাগত বাড়ছে ডেঙ্গি আক্রান্তের সংখ্য়া। উদ্বেগ বাড়চ্ছে জেলা প্রশাসনের। স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে খবর, প্রায় ৭২ জন আক্রান্ত ডেঙ্গিতে। সোমবার ডুয়ার্সকন্যায় চাবাগানের ম্যানেজমেন্ট, স্বাস্থ্য আধিকারিকদের নিয়ে একটি গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে বসেন আলিপুরদুয়ারের জেলাশাসক আর বিমলা। জেলাশাসক জানিয়েছেন, আলিপুরদুয়ারে জেলায় ডেঙ্গি আক্রান্তের সংখ্যা ৭২ জন। তার মধ্যে ডুয়ার্সের চা বলয় কালচিনিতে ৫৭ জন। গত বছরের থেকে এবার আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় উদ্বেগে স্বাস্থ্য দফতরে।

আলিপুরদুয়ারের জেলাশাসক আর বিমলা বলেন,”আলিপুরদুয়ারে আক্রান্তের সংখ্যা ৭২ জন। তার মধ্যে বেশি কালচিনিতে। এখানে ৫৭ জন আক্রান্ত হয়েছেন। চাবাগান, গ্রামপঞ্চায়েত, জেলা পরিষদকে সঙ্গে নিয়ে ডেঙ্গি মোকাবিলায় নামা হচ্ছে। সমস্যা রয়েছে কালচিনিতে।” তিনি এও বলেছেন, “এলাকার ড্রেনে জল জমে আছে। সেই জঞ্জাল দ্রুত পরিস্কার করে কালচিনি সলিড ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্টে রাখা হবে। চাবাগান নিজেরাই সব কিছু মনিটরিং করছে। যাতে জমা জল না থাকে সেজন্য সবাইকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে।” একই সঙ্গে তিনি বলেন, “এই আক্রান্তের মধ্যে বাইরে থেকে আসা লোকজন ও রয়েছেন।”

অপরদিকে, জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক সুমিত গঙ্গোপাধ্যায় বলেন,”বাড়িতে রেখেই চিকিৎসা হচ্ছে। প্রতি সপ্তাহে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। ফালাকাটা,আলিপুরদুয়ার শহরে ও আক্রান্ত রয়েছেন।”