পিকে দলের ভাল চাইছে নাকি বিভাজন! তোপ বৈশালীর

সায়নী জোয়ারদার

সায়নী জোয়ারদার |

Updated on: Dec 09, 2020 | 4:23 PM

বালির ১৬ জন বিদায়ী কাউন্সিলরকে নিয়ে বৈঠকে বসেছিল 'টিম পিকে'। অভিযোগ, সেখানে ডাকাই হয়নি বালির তৃণমূল বিধায়ক বৈশালী ডালমিয়াকে।

পিকে দলের ভাল চাইছে নাকি বিভাজন! তোপ বৈশালীর
ফাইল চিত্র।

হাওড়া: নির্বাচনের ময়দানে দলকে আরও সুসংহত করতে ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোরকে রাজ্যে এনেছিল তৃণমূল। অথচ প্রশান্ত কিশোর (পিকে)কে নিয়ে একের পর এক ‘বিদ্রোহ’ দলের অন্দরে। এবার প্রশান্ত কিশোরের ভূমিকায় সন্দেহ প্রকাশ করলেন হাওড়ার (Howrah) বালির তৃণমূল বিধায়ক বৈশালী ডালমিয়া। বৈশালীর কথায়, পিকে দলের ভাল চাইছে নাকি বিভাজন চাইছে সেটাই তো পরিষ্কার হচ্ছে না।

ঘটনার সূত্রপাত বালি বিধানসভা এলাকায় ‘বঙ্গজননী’ কর্মসূচি ঘিরে। অভিযোগ, বুধবার বালির ১৬ জন বিদায়ী কাউন্সিলরকে নিয়ে বৈঠকে বসেছিল ‘টিম পিকে’। কিন্তু সেখানে বৈশালী ছিলেন না। বৈঠক যখন শেষের মুখে, সেখানে হাজির হন বালির প্রাক্তন মহিলা সভাপতি বিজয়লক্ষ্মী রাও। তিনি প্রশ্ন তোলেন, বিধায়ককে বাদ দিয়ে কেন বৈঠক করা হচ্ছে। কেন বৈঠক নিয়ে বিধায়ককে কিছু জানানো হল না। এ নিয়ে বৈঠকে উপস্থিত জনপ্রতিনিধি ও টিম পিকের বিরুদ্ধে সরব হন এলাকায় বৈশালী ঘনিষ্ঠ হিসাবে পরিচিত বিজয়লক্ষ্মী।

আরও পড়ুন: অভিমানী মমতা: সবকিছু করুন, আমাকে দু:খ দেবেন না

এরপরই দু’পক্ষের মধ্যে শুরু হয় বচসা। হাতাহাতি হওয়ার উপক্রম তৈরি হয় বলে অভিযোগ। কয়েকজন জনপ্রতিনিধির উদ্যোগেই তা সামাল দেওয়া যায়। এই ঘটনা প্রসঙ্গে বৈশালী ডালমিয়া জানান, পিকের টিমের এই ভূমিকায় তিনি হতবাক। পিকের টিম দলটার ভাল করতে চাইছে নাকি বিভাজন করতে চাইছে, সেটাই তাঁর কাছে স্পষ্ট নয়।

আরও পড়ুন: ‘উন্নয়নে অনেক কিছু করেছি, আমি কথা দিয়ে কথা রাখি’, মতুয়াদের মাঝে মমতা

সম্প্রতি বৈশালীর বিরুদ্ধে ‘বিরোধী’ সুর শোনা গিয়েছে বালি তৃণমূলের একাংশের মধ্যে। তা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় সরবও হয়েছেন এই তৃণমূল বিধায়ক। বলেছেন, “পরিবারের প্রধান প্রধানমন্ত্রীকেই বহিরাগত বলা হয়, আমি তো তুচ্ছ।” এ নিয়ে রাজনৈতিক জল্পনাও হয়েছে। এরইমধ্যে এদিনের ঘটনা ঘিরে নতুন করে চাপানউতোর হাওড়া তৃণমূলে।

Latest News Updates

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla