Jalpaiguri: হাতির হানায় মৃত মহিলার দেহ আনতে এসে হুলস্থুল কাণ্ড, এলাকাবাসীর রোষে উল্টে গেল বন বিভাগের গাড়ি

Jalpaiguri: ঘটনার খবর গ্রামে চাউর হতেই উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় ভোরের আলো থানার পুলিশ ও বেলাকবার রেঞ্জের রেঞ্জ অফিসার চিরঞ্জিত পাল সহ বন দফতরের কর্মীরা। তাঁদের দেখে উত্তেজিত জনতা বন বিভাগের একটি গাড়ি উল্টে দেয়।

Jalpaiguri: হাতির হানায় মৃত মহিলার দেহ আনতে এসে হুলস্থুল কাণ্ড, এলাকাবাসীর রোষে উল্টে গেল বন বিভাগের গাড়ি
উত্তেজনা এলাকায় Image Credit source: TV-9 Bangla
Follow Us:
| Edited By: | Updated on: May 17, 2024 | 6:32 PM

জলপাইগুড়ি: হাতির হানায় মৃত মহিলার দেহ উদ্ধার করতে গিয়ে গ্রামবাসীদের রোষের মুখে বনকর্মীরা। অভিযোগ, গায়ে হাত দেওয়া হয় বনকর্মীদের। ভাঙচুর করা হয় বনদপ্তরের গাড়ি। ঘটনায় তুমুল উত্তেজনা বৈকন্ঠপুর বনবিভাগের অধীনে থাকা লোধাবাড়ি জঙ্গলে। শুক্রবার আনুমানিক বেলা ২ টো নাগাদ বৈকন্ঠপুর বনবিভাগের লোধাবাড়ি জঙ্গল থেকে জ্বালানি কাঠ আনতে গিয়ে হাতির হামলায় হয় মৃত্যু হয় এক মহিলার। মহিলার নাম বিউটি রায় (23)। স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে ওই এলাকার বাসিন্দা বিউটি রায় ওই জঙ্গলপথ ধরে জ্বালানি কাঠ আনতে গিয়েছিলেন। আচমকাই পিছন থেকে একটি বুনো হাতি এসে শুড় দিয়ে পেঁচিয়ে ধরে। এরপর টানতে টানতে জঙ্গলের মধ্যে নিয়ে যায়। তারপর পিষে মেরে ফেলে। 

ঘটনার খবর গ্রামে চাউর হতেই উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় ভোরের আলো থানার পুলিশ ও বেলাকবার রেঞ্জের রেঞ্জ অফিসার চিরঞ্জিত পাল সহ বন দফতরের কর্মীরা। তাঁদের দেখে উত্তেজিত জনতা বন বিভাগের একটি গাড়ি উল্টে দেয়। আরও কয়েকটি গাড়িতেও চলে ভাঙচুর। বন কর্মীদের সঙ্গে এলাকার বাসিন্দাদের ব্যাপক বচসাও হয়। 

খবর পেয়ে আরও পুলিশ নিয়ে উপস্থিত হন ADFO মঞ্জুলা তিরকি। তিনি এসে আলোচনার মাধ্যমে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। পরে দেহ উদ্ধার করে পুলিশ ও বনকর্মীরা। উদ্ধার হওয়া দেহ জলপাইগুড়ি মেডিক্যাল কলেজে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে পুলিশ। হাসপাতালে এসেছেন বন আধিকারিকেরা।

স্থানীয় বাসিন্দা মিঠুন রায় বলেন, এখানে মাঝেমধ্যেই হাতির হানা হয়। তবে এই প্রথম ভর দুপুরে হাতি কাউকে মেরে ফেল্লো। বনকর্মীরা ঠিক করে ডিউটি করে না। তাই এই জাতীয় ঘটনা ঘটছে।

যদিও ADFO মঞ্জুলা তিরকে বলেন, বৈকন্ঠপুর জঙ্গলে অনেক হাতি রয়েছে। এরা মাঝেমধ্যে ছোট ছোট দলে ভাগ হয়ে জঙ্গলে ছড়িয়ে ছিটিয়ে যায়। আমাদের কর্মীরা সারাক্ষণ নজরদারি করে। তার মধ্যেও কিছু অনভিপ্রেত ঘটনা ঘটে যায়। কিন্তু, বনকর্মীরা কাজ করে না এই অভিযোগ ঠিক নয়। বন দফতরের নিয়ম অনুযায়ী প্রাথমিক ক্ষতিপূরণ আমরা দিয়েছি। বাকিটাও দেওয়া হবে। আজ এখানে দেহ উদ্ধার করতে এসে আমাদের কর্মীরা আক্রান্ত হয়েছে। দফতরের গাড়ি ভাঙা হয়েছে। বিষয়টি আমরা উর্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে জানিয়েছি। নির্দেশ এলে অভিযোগ দায়ের করা হবে। অন্যদিকে রেঞ্জ অফিসার চিরঞ্জিত পাল বলেন হাতির হানায় এক মহিলা মারা গিয়েছে। খুব মর্মান্তিক ঘটনা। আমরা ওনার দেহ ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে এসেছি। সবটা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।