‘দিদি আপনি কেবল তৃণমূলের মুখ্যমন্ত্রী নন…পদক্ষেপ করুন’, কাতর অনুরোধ বিজেপি বুথ সভাপতির

যদিও বিজেপির এই অভিযোগ পুরোপুরি নস্যাৎ করে দিয়েছে শাসক শিবির (TMC)। বৈকন্ঠপুর ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূল সদস্য হেমন্ত খাঁ বলেন, "আমি শ্রীরামপুরে থাকি। যিনি অভিযোগ করেছেন তিনিও শ্রীরামপুরেই থাকেন। এই ঘটনার সাথে তৃণমূল কোনো ভাবেই জড়িত নয়।"

'দিদি আপনি কেবল তৃণমূলের মুখ্যমন্ত্রী নন...পদক্ষেপ করুন', কাতর অনুরোধ বিজেপি বুথ সভাপতির
আক্রান্ত বিজেপি বুথ সভাপতি, নিজস্ব চিত্র
tista roychowdhury

|

Jun 02, 2021 | 6:58 PM

পূর্ব বর্ধমান: ভোটের পরেও জারি রাজনৈতিক হিংসা। সাগর পণ্ডিত নামে এক বিজেপি (BJP) বুথ সভাপতিকে মারধরের অভিযোগ উঠল তৃণমূলের এক কর্মী সমর্থকের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে বৈকুন্ঠপুর পঞ্চায়েতের শ্রীরামপুর এলাকায়।

আক্রান্ত বুথ সভাপতি সাগর পণ্ডিতের অভিযোগ, নির্বাচনে তিনি বিজেপির পোলিং এজেন্ট হিসেবে কাজ করেছিলেন। ২মে ভোটের ফল ঘোষণার পর ‘রাজনৈতিক হিংসা’-র হাত থেকে বাঁচতে গ্রাম ছেড়ে চলে যান সাগরবাবু। কিছুদিন আগে স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব ও পুলিশের সহায়তায় গ্রামে ফেরেন তিনি। বুধবার, সাগরবাবু নিজের কাজে যাওয়ার সময়ে আচমকাই ছোট্টু ওরফে বিমান ঘোষ নামে তৃণমূলের এক কর্মী তাঁকে অনুসরণ করেন। শ্রীরামপুর থেকে পালা যাওয়ার পথে ডিবিসির সামনে তৃণমূলের (TMC) ওই কর্মী সাগরবাবুর পথ রোধ করে দাঁড়ান। তারপর, সাগরবাবুর মাথা থেকে হেলমেট খুলে নিয়ে মাথায় এলোপাথাড়ি মারতে থাকেন বলে অভিযোগ। ঘটনাস্থলেই অচৈতন্য হয়ে পড়েন সাগরবাবু। স্থানীয়রা তাঁকে উদ্ধার করে হাসপাতালে দিয়ে আসেন। পরে, বর্ধমান থানায় তৃণমূল কর্মীর বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ করেন আক্রান্ত বিজেপি কর্মী।

সাগরবাবু বলেন, “ছোট্টু আজ থেকে নয়, ২০১৬ সাল থেকে আমার পেছনে পড়ে রয়েছে। আমি তখন কোনও দল করতাম না। আমার বাবা বহু আগে সিপিএম (CPM) করতেন। আমি ভোটের তিন-চারমাস আগে বিজেপিতে যোগ দিই। ও অনেকদিন ধরেই আমার সঙ্গে শত্রুতা করে আসছে। এর আগেও নানা সমস্যা তৈরি করেছে। আমি বা আমার বাবা কেন তৃণমূল করেন না, তাই ওর রাগ। ওর জন্যেই আমি গ্রাম ছেড়েছিলাম। বেশ কিছুদিন হল ঘরে ফিরেছি। তারপরেই আমাকে এভাবে মেরেছে। এমনকী আমায় হুমকিও দিয়েছে, ওকে ‘বাবা’ বলে ডাকতে হবে কারণ, ও এই এলাকার ‘বাপ’। আমি তা মানিনি বলেই আমার উপর এত রাগ।” এখানেই থামেনননি বিজেপির বুথ সভাপতি। করজোড়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের (CM Mamata Banerjee) উদ্দেশে তিনি বলেন, “দিদি, আপনি কেবল তৃণমূলের মুখ্যমন্ত্রী নন। গোটা রাজ্যবাসীর মুখ্যমন্ত্রী। আপনার উপরেই রাজ্যবাসীর সুরক্ষা। আপনি দয়া করে এ বিষয়ে পদক্ষেপ করুন।” এই ঘটনায় বিস্তর অসন্তোষ প্রকাশ করেছে গেরুয়া শিবির। বিজেপির বর্ধমান সদর জেলা সম্পাদক শ্যামল রায় বলেন, “নির্বাচনের ফল ঘোষণা হবার পর থেকেই আমাদের কর্মীরা ঘরছাড়া ছিল। তবে প্রসাশনিক তৎপরতায় তাদের ঘরে ফেরানোর একটা প্রক্রিয়া চলছে। বাড়ি ফেরার পর তাদের যদি এভাবে মারধর করা হয়, তবে আমরা বৃহত্তর আন্দোলনের পথে হাঁটব।”

যদিও বিজেপির এই অভিযোগ পুরোপুরি নস্যাৎ করে দিয়েছে শাসক শিবির (TMC)। বৈকন্ঠপুর ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূল সদস্য হেমন্ত খাঁ বলেন, “আমি শ্রীরামপুরে থাকি। যিনি অভিযোগ করেছেন তিনিও শ্রীরামপুরেই থাকেন। এই ঘটনার সাথে তৃণমূল কোনো ভাবেই জড়িত নয়। ব্যক্তিগত কোনো কারণে কোথাও কিছু ঘটে থাকতে পারে। এই গ্রামে শান্তি বজায় আছে, গ্রামের কোথাও কোনো অশান্তি নেই। সম্পূর্ণ মিথ্যা অভিযোগ করা হয়েছে।”

আরও পড়ুন: ‘শুভেন্দু হলদি নদীর জলে কত হাজার কোটি ডুবিয়ে রেখেছে ও-ই জানে!’ প্রশংসিত আলাপন, ‘মদন’-বাণে বিদ্ধ অধিকারী পুত্র

Latest News Updates

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla