ভোট বড় বালাই! কোদাল হাতে খাল পরিষ্কারে নামলেন তৃণমূল বিধায়ক

ঋদ্ধীশ দত্ত

ঋদ্ধীশ দত্ত |

Updated on: Jan 19, 2021 | 3:48 PM

জনতার মন পেতে সকাল সকাল কোদাল হাতে খাল পরিষ্কারে নামে পড়লেন তৃণমূল বিধায়ক অসিত মজুমদার। যা দেখে বিজেপির কটাক্ষ মিশ্রিত প্রশ্ন, 'এতদিন কি উনি ঘুমিয়ে ছিলেন!'

ভোট বড় বালাই! কোদাল হাতে খাল পরিষ্কারে নামলেন তৃণমূল বিধায়ক
কোদাল হাতে খাল পরিষ্কার করছেন তৃণমূল বিধায়ক- নিজস্ব চিত্র

হুগলি: বিধানসভা নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে, পাল্লা দিয়ে রাজনৈতিক সক্রিয়তা বৃদ্ধি পাচ্ছে ভোট কারবারিদের। ভোট কত বড় বালাই, তা চুঁচুড়ার বিধায়ককে (MLA) দেখে আরও একবার পরিষ্কার হয়ে গেল। জনতার মন পেতে সকাল সকাল কোদাল হাতে খাল পরিষ্কারে নামে পড়লেন তৃণমূল (TMC) বিধায়ক অসিত মজুমদার। যা দেখে বিজেপির কটাক্ষ মিশ্রিত প্রশ্ন, ‘এতদিন কি উনি ঘুমিয়ে ছিলেন!’

দু’দিন আগে চুঁচু্ড়া জোড়াঘাটে গঙ্গাপুজো করে গঙ্গা দূষণ রুখতে ব্যবস্থা নেবেন বলে জানিয়েছিলেন চুঁচু্ড়ার বিধায়ক। সেদিন তাঁর ফুলের মালা জলে ভাসিয়ে দূষণ রোধের বার্তা দেওয়ায় সমালোচনা করেছিল বিরোধীরা। মঙ্গলবার সকালে বিধায়ক হাজির হলেন ব্যান্ডেল চার্চ সংলগ্ন রসভরা খালে। কোদাল হাতে তা নিজেই সাফ করতে নেমে পড়লেন।

চুঁচুড়া পুরসভার চার, পাঁচ, ছয় নম্বর-সহ বেশ কয়েকটি ওয়ার্ড ও ব্যান্ডেল পঞ্চায়েতের কিছু এলাকার নিকাশি ব্যান্ডেলের রসভরা খাল দিয়ে হয়। দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে সেই নিকাশি খালের অবস্থা শোচনীয়। শোনা যায়, একটা সময় গঙ্গার খাড়ি হিসেবে পরিচিত এই খালে নৌকা চলত। আজ অবশ্য তা অতীত। এখন পাঁক আর নোংরা আবর্জনায় ভরে থাকা খাল এলাকার মানুষের সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। পরিষ্কার না হওয়ায় দুর্গন্ধ আর মাছি মশার আঁতুড়ঘরে পরিণত হয়েছে। আজ বিধায়ক সেই খালের পাশে জমে থাকা আবর্জনা পরিষ্কারে হাত লাগান।

তিনি বলেন, “দুদিন আগে বলেছিলাম গঙ্গা দূষণ হচ্ছে। গতকাল খবরের কাগজে দেখলাম, রসভরা খাল থেকে গঙ্গা দূষণ হচ্ছে। তাই পুরসভার প্রতিনিধিদের নিয়ে দেখতে এলাম। প্রচুর পাঁক জমে আছে খালে। যা মেশিন ছাড়া তোলা সম্ভব হবে না। পুর প্রশাসক গৌরিকান্ত মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে কথা হয়েছে। সাত দিনের মধ্যে মেশিন নিয়ে এনে খাল পরিষ্কার করা হবে।” খালের পাশে গঙ্গার পাড়ে খোলা মাঠে অনেকে পিকনিক করে শীতকালে। তাঁরা থার্মোকলের থালা বাটি আবর্জনা ফেলে নোংরা করে। সেসবও পরিষ্কার করা হয়। যারা পিকনিক করে এলাকা অপরিচ্ছন্ন করছে তাদের জন্য প্রচার করা শুরু হবে বলেন অসিতবাবু।

আরও পড়ুন: ‘দাঙ্গাবাজ, লুটেরাবাজ বিজেপি ভোটের আগে বঙ্গাল বঙ্গাল করে’: মমতা

এ নিয়ে বিধায়ককে কটাক্ষ করতে ছাড়েনি বিজেপি। হুগলি সাংগঠনিক বিজেপি যুব মোর্চা সভাপতি সুরেশ সাউ বলেন, “রসভরা খালের অবস্থা কাগজে দেখে বিধায়ক মশাইকে কোদাল হাতে নামতে হচ্ছে। উনি যে প্রকৃত কাজ করেননি সেটা আজকের এই কোদাল হাতে নিয়ে দেখেই আমরা বুঝতে পারছি। শুধু আমরা নয় চুঁচুড়া বিধানসভার সকল মানুষই বুঝতে পারছে। সব কিছুই বিধায়কের দল চালাচ্ছে যখন তারা এতদিন করেনি কেন? সারা বছর যদি কাজই করতো তাহলে এত ময়লার স্তুপ তৈরি হত না।”

বিজেপির আরও অভিযোগ, “শুধু রসভরা খাল নয়, এরকম বহু খাল আছে। এই সমস্যা তো একদিনের নয়। ভোটের সময় এদের ঘুম ভেঙেছে, তাই কাজ দেখাতে বেরিয়ে পড়েছেন বিধায়ক। তাতে অবশ্য কোনও লাভ হবে না।”

আরও পড়ুন: ‘এখানে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড চলবে না’, মৃতের পরিবারকে জানাল পুর-হাসপাতাল

Latest News Updates

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla