Vaccine Anthem: টিকাকরণে কেন্দ্রের নয়া উদ্যোগ, যাবতীয় দ্বিধা দূর করবে ভ্যাকসিন সঙ্গীত

Govt Launched Vaccine Anthem: দেশের টিকাকরণ কর্মসূচির কথা মনে করাতেই এই গানের নাম দেওয়া হয়েছে, "টিকা সে বাঁচা হ্যায় দেশ"। তিন মিনিটের দীর্ঘ এই গানটি গেয়েছেন পদ্মশ্রী প্রাপ্ত কৈলাশ খের।

Vaccine Anthem: টিকাকরণে কেন্দ্রের নয়া উদ্যোগ, যাবতীয় দ্বিধা দূর করবে ভ্যাকসিন সঙ্গীত
১০০ কোটি টিকাকরণের মাইলফলক পার। ফাইল ছবি: PTI

নয়া দিল্লি: টিকাকরণে (COVID Vaccination) দেশ ১০০ কোটির গণ্ডি পার করবে আর দু-একদিনের মধ্যেই। ডিসেম্বরের মধ্যেই দেশের ১০০ কোটি জনগণকে টিকা দেওয়ৈর যে লক্ষ্যমাত্রা স্থির করেছিল কেন্দ্র, তা পূরণ হতে চলায় কেন্দ্রের তরফে এক বিশেষ উপহার দেওয়া হল। প্রকাশিত হল ভ্যাকসিন সঙ্গীত (Vacvine Anthem)। এখনও যাদের মনে টিকাকরণ নিয়ে দ্বিধাবোধ রয়েছে, তাদের করোনা টিকা সংক্রান্ত যাবতীয় প্রশ্ন ও ভয় দূর করবে এই গান।

কৈলাশ খের(Kailash Kher)-র গলায় এই গানের উদ্বোধন করা হয় শনিবার। কেন্দ্রীয় পেট্রোলিয়াম মন্ত্রী হরদীপ সিং পুরী (Hardeep Singh Puri), প্রতিমন্ত্রী রামেশ্বর তেলি (Rameshwar Teli) ও কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডব্য (Mansukh Mandaviya)-র উপস্থিতিতে এই ভ্যাকসিন সঙ্গীতের উদ্বোধন করা হয়। অনলাইন মাধ্যমে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন গায়ক কৈলাশ খেরও।

দেশের টিকাকরণ কর্মসূচির কথা মনে করাতেই এই গানের নাম দেওয়া হয়েছে, “টিকা সে বাঁচা হ্যায় দেশ”। তিন মিনিটের দীর্ঘ এই গানে পদ্মশ্রী প্রাপ্ত কৈলাশ খেরের গলায় শোনা যায়, বর্তমান করোনা পরিস্থিতি থেকে রক্ষা পেতে সকলেই যেন টিকা নিয়ে যাবতীয় দ্বিধাবোধ দূরে সরিয়ে এগিয়ে আসেন। ভিডিয়োয় দেখা যায়, বিভিন্ন বয়সী মানুষেরা করোনা টিকা নিচ্ছেন।

অনুষ্ঠানেই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরদীপ সিং পুরী জানা, আগামী সপ্তাহেই ১০০ কোটি টিকার লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করবে দেশ। তিনি বলেন, “২০২০ সালের মার্চ মাসে যখন লকডাউন হয়, তখন ভারত পিপিই, ভেন্টিলেটর সহ অন্য়ান্য মে়ডিক্যাল সামগ্রীর জন্য বিদেশ থেকে আমদানির উপরই নির্ভরশীল ছিল। কিন্তু অল্প সময়ের মধ্যেই দেশেই এই প্রয়োজনীয় সামগ্রীগুলির উৎপাদন শুরু করে দেওয়া হয়। বর্তমানে আমরা তুলনামূলকভাবে অনেক বেশি প্রস্তুত কঠিন পরিস্থিতির সঙ্গে লড়াই করতে। এই সমস্ত কিছুই সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কল্পনাশক্তি ও তাঁর’ নেতৃত্বের অধীনে।”

বিরোধীদেরও খোঁচা দিয়ে তিনি বলেন, “যারা এই কর্মসূচি  নিয়ে ভুয়ো খবর বা গল্প ব্যাখ্যা করতে চেয়েছিল, তারা ব্যর্থ হয়েছে এবং করোনা টিকাকরকরণ জন কর্মসূচিতে পরিণত হয়েছে। এটি অত্যন্ত আনন্দের বিষয়। ভাইরাস শত্রুর বিরুদ্ধে লড়তে সকলে একে অপরের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন। এখনও যাদের মনে করোনা টিকা নিয়ে দ্বিধা বা ভ্রান্ত ধারণা রয়েছে, তা দূর করবে কৈলাশ খেরের এই গান।”

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডব্য জানান, এখনও অবধি মোট ৯৭ কোটিরও বেশি করোনা টিকা দেওয়া হয়েছে গোটা দেশে। সবকা বিকাশের যে মন্ত্র নিয়ে চলে দেশ, সেই কথা অনুযায়ীই দেশের গবেষক, চিকিৎসক, বৈজ্ঞানিকদের উপর উপর ভরসা করেছেন সাধারণ মানুষ, সেই কারণেই তাদের নিরন্তর প্রচেষ্টায় করোনা টিকা উৎপাদন করা সম্ভব হয়েছে। সবকা প্রয়াস- এই কথা মেনেই অতি অল্প সময়ের মধ্যেই দেশের প্রতিটি কোণায়, গলিতে পৌঁছে গিয়ে করোনা টিকাকরণের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: Good Samaritan Scheme: পথদুর্ঘটনায় আহতকে বাঁচালেই দেওয়া হবে ৫ হাজার টাকা 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla