Good Samaritan Scheme: পথদুর্ঘটনায় আহতকে বাঁচালেই দেওয়া হবে ৫ হাজার টাকা

Road Accident: কেন্দ্রীয় পরিবহণ মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী, ২০২০ সালে ভারতে ৩৬৬,১৩৮টি পথদুর্ঘটনা ঘটেছে। পথদুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা ১৩১,৭১৪।

Good Samaritan Scheme: পথদুর্ঘটনায় আহতকে বাঁচালেই দেওয়া হবে ৫ হাজার টাকা
দুর্ঘটনায় মৃত্যু পনেরো জনের প্রতীকী চিত্র

মধ্য প্রদেশ: পথদুর্ঘটনায় (Road Accident) মৃত্যুর হার কমাতে কেন্দ্রের তরফে বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ‘গুড সামারিটান স্কিম’ নামে এই প্রকল্পের আওতায় পথদুর্ঘটনায় আহতদের যথা সময়ের মধ্যে হাসপাতালে পৌঁছে দিলে দেওয়া হবে উপযুক্ত পারিতোষিক, আগেই জানিয়েছিল কেন্দ্র। এবার মধ্য প্রদেশ (Madhya Pradesh Government) সরকার সেই প্রকল্প চালু করল। এর ফলে কেউ যদি দুর্ঘটনাগ্রস্তকে ‘গোল্ডেন আওয়ার’-এর মধ্যে হাসপাতালে নিয়ে যান, তা হলে ওই মহৎ ব্যক্তিকে ৫ হাজার টাকা দেবে সরকার।

মধ্য প্রদেশের ট্রাফিক অ্যান্ড রোড সেফটি অ্যাডিশনাল ডিরেক্টর জেনারেল অব পুলিশ জি জনার্দন সংবাদসংস্থা পিটিআইকে জানান, ‘গুড সামারিটান স্কিমের ক্ষেত্রে আহত ব্যক্তিকে এক ঘণ্টা অর্থাৎ গোল্ডেন পিরিয়ডের মধ্যে যদি হাসপাতাল বা ট্রমা সেন্টারে নিয়ে যান কেউ, তিনি পাঁচ হাজার টাকা পুরস্কার পাবেন। ১৫ অক্টোবর অর্থাৎ দশহরা থেকেই মধ্য প্রদেশে এই স্কিম চালু হয়ে গিয়েছে।’

মোটর ভেহিক্যাল অ্যামেন্ডমেন্ট অ্যাক্ট ২০১৯-এর ১৩৪এ ধারায় পথচারীদের (Good Samaritan) জন্য একটি নিয়ম যুক্ত হয় ২০২০ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর। কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহন মন্ত্রক মনে করছে, এবার সেই সমস্ত ‘গুড সামারিটান’দের আরও উৎসাহিত করা প্রয়োজন। তাঁরা যাতে আরও বেশি করে বিপদে সহযাত্রীর পাশে দাঁড়ান। সে কারণেই একেবারে নগদ পুরস্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র।

কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহন মন্ত্রকের গাইডলাইন অনুযায়ী, একজন পথচারী বছরে সর্বাধিক পাঁচবার পুরস্কৃত হবেন। সব থেকে বেশি যিনি এই পুরস্কার পাবেন, তার জন্য জাতীয় স্তরেও সম্মাননা অপেক্ষা করে থাকবে। কেন্দ্র সেই সম্মান দেবে। তা নগদ ১ লক্ষ টাকা পর্যন্তও হতে পারে। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, এই কর্মসূচিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য প্রাথমিক ভাবে ৫ লক্ষ টাকার অনুমোদন দিয়েছে পরিবহণ মন্ত্রক। দেশের বিভিন্ন রাজ্যের পাশাপাশি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিতেও এই পুরস্কার দেওয়া হবে।

গাইডলাইনে বলা হয়েছে, দুর্ঘটনা সম্পর্কে পুলিশকে অবগত করবেন ওই মহৎ পথচারী। সব রকম তথ্য প্রমাণ দেখে পুলিশ তাঁকে একটি অনুমোদনপত্র (Acknowledgement) দেবে। সেই অনুমোদনটিই জেলাস্তরে যে অ্যাপ্রাইজাল কমিটি তৈরি করা হবে তার কাছে যাবে। জেলাশাসক এই কমিটির শীর্ষে থাকবেন। তিনি পুলিশের সহযোগিতায় গোটা বিষয়টি খুঁটিয়ে দেখবেন। এরপরই সেই অনুমোদনটিতে ‘গুড সামারিটান’-এর সিলমোহর পড়বে। একই সঙ্গে ওই পথচারী সরাসরি দুর্ঘটনাগ্রস্তকে হাসপাতালে নিয়ে যেতে পারেন। তার পরও পুলিশকে গোটা বিষয়টি জানাতে পারেন।

কিছুদিন আগে রাজস্থান সরকার এরকম একটি প্রকল্পের কথা ঘোষণা করেছে। দুর্ঘটনায় মুমুর্ষু কোনও ব্যক্তিকে রাস্তা থেকে তুলে চিকিৎসাকেন্দ্রে হাসপাতালে পৌঁছে দিলেই নগদ ৫ হাজার টাকা পুরস্কার। মুখ্যমন্ত্রী চিরঞ্জীবী জীবন রক্ষক যোজনায় এই পুরস্কার দেওয়া হয়।

কেন্দ্রীয় পরিবহণ মন্ত্রকের তথ্য অনুযায়ী, ২০২০ সালে ভারতে ৩৬৬,১৩৮টি পথদুর্ঘটনা ঘটেছে। পথদুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা ১৩১,৭১৪। কেন্দ্রের এই ধরনের পুরস্কার ঘোষণার ফলে মানুষ যে মানুষের বিপদে আরও বেশি করে ঝাঁপিয়ে পড়বে, সে বিশ্বাসও রাখছে কেন্দ্র।

গোল্ডেন আওয়ার কী

কোনও ব্যক্তির গুরুতর চোট লাগার পরের এক ঘণ্টা সময় গোল্ডেন আওয়ার। এই এক ঘণ্টা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এই সময়ের মধ্যে চিকিৎসা করানো গেলে মৃত্যুর মুখ থেকেও আহতকে ফিরিয়ে আনার সম্ভাবনা থেকে যায়।

আরও পড়ুন: Corona Update: দৈনিক সংক্রমণ কিছুটা কম, তবু চিন্তা জিইয়ে রাখছে পজিটিভিটি রেট

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla