সন্তানদের সামনেই স্ত্রী ও শাশুড়িকে কুপিয়ে খুন, পাশের ঘরে গিয়ে বিষ খেলেন অভিযুক্ত

পশ্চিম ত্রিপুরার হাপানিয়ার বাসিন্দা ওই ব্যক্তির সঙ্গে তাঁর স্ত্রীর বিবাহ বিচ্ছেদের কথা চলছিল। পারিবারিক ঝামেলার কারণেই বিগত চার মাস ধরে ওই মহিলা দুই সন্তানকে নিয়ে বাপের বাড়িতেই থাকছিলেন তিনি। সোমবার আচমকাই সেখানে উপস্থিত হন ওই ব্যক্তি।

সন্তানদের সামনেই স্ত্রী ও শাশুড়িকে কুপিয়ে খুন, পাশের ঘরে গিয়ে বিষ খেলেন অভিযুক্ত
প্রতীকী চিত্র।

গুয়াহাটি: তারস্বরে কাঁদছে দুই শিশু, তাঁদের সামনেই মা ও দিদাকে কুপিয়ে খুন করছে বাবা। এমনই এক অমানবিক ঘটনার সাক্ষী থাকল ত্রিপুরা (Tripura)। তবে খুন করেই বিরত থাকেননি ওই ব্যক্তি, সন্তানদের সামনেই স্ত্রী ও শাশুড়ির দেহ টুকরো টুকরো করেন তিনি। এরপর পাশের ঘরে গিয়ে নিজের মুখে ঢেলে দেন এক শিশি বিষ।

পুলিস জানায়, স্থানীয় বাসিন্দা খবর দিলে তাঁরা ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখেন রক্তে ভাসছে গোটা ঘর। তারমধ্যে পড়ে রয়েছে দুটি মৃতদেহ। ঘরের এক কোণে বসে ভয়ে কাঁদছে দুটি শিশু। পাশের ঘর থেকেই অভিযুক্ত ব্যক্তিকে অচৈতন্য অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।

জানা গিয়েছে, পশ্চিম ত্রিপুরার হাপানিয়ার বাসিন্দা ওই ব্যক্তির সঙ্গে তাঁর স্ত্রীর বিবাহ বিচ্ছেদের কথা চলছিল। পারিবারিক ঝামেলার কারণেই বিগত চার মাস ধরে ওই মহিলা দুই সন্তানকে নিয়ে বাপের বাড়িতেই থাকছিলেন তিনি। সোমবার আচমকাই সেখানে উপস্থিত হন ওই ব্যক্তি। তারপরই এই নৃশংস ঘটনা ঘটান।

আরও পড়ুন: কৃষক আন্দোলনে অভিনব সমর্থন, জালিকাট্টু দেখতে তামিলনাড়ু যাচ্ছেন রাহুল গান্ধী

তদন্তকারী পুলিস অফিসার বলেন, “অভিযুক্ত ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে আগরতলার জিবিপি হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছে। পরীক্ষা করে তাঁর দেহে বিষের অস্তিত্ব মিলেছে, তবে বর্তমানে তিনি বিপদমুক্ত। এখনও জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করতে না পারায় খুনের পিছনে আসল উদ্দেশ্য জানা যায়নি। সুস্থ হয়ে উঠলে তাঁকে স্থানীয় আদালতে পেশ করা হবে।”

ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হওয়া শিশু দুটিকে ধলাই শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের অফিসারের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। ঘটনায় উত্তেজনা ছড়িয়েছে স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে। তাঁরা অভিযুক্ত ব্যক্তিকে তাঁদের হাতে তুলে দেওয়ার দাবি জানান। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে মোতায়েন করা হয় ত্রিপুরা পুলিসকে।

আরও পড়ুন: ‘টিকা পেলেও করোনা বিধি মেনে চলুন’, করজোড়ে আবেদন কেন্দ্রের

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla