এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাঙ্কের থেকে ২১০০ কোটি টাকার ঋণ নিচ্ছে বিপ্লব দেবের সরকার

এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাঙ্ক প্রাথমিকভাবে ৪০ কোটি টাকা দেবে প্রকল্পের রূপরেখা তৈরি করতে। প্রকল্পের পরিকল্পনা তৈরি হয়ে গেলে আগামী তিন বছরে ১৬০০ কোটি টাকা নগরোন্নয়নের জন্য ও ৫০০ কোটি টাকা পর্যটন শিল্প উন্নয়নে বিনিয়োগের জন্য ঋণ দেবে এই আন্তর্জাতিক ব্যাঙ্ক।

এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাঙ্কের থেকে ২১০০ কোটি টাকার ঋণ নিচ্ছে বিপ্লব দেবের সরকার
ফাইল চিত্র।

আগরতলা: নগরোন্নয়ন ও পর্যটন বৃদ্ধিতে ত্রিপুরা সরকারকে ২১০০ কোটি টাকার ঋণ দিতে চলেছে এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাঙ্ক (Asian Development Bank)। এরমধ্যে ১৬০০ কোটি টাকা শহরাঞ্চল উন্নয়নে (Urban Development) ও বাকি ৫০০ কোটি টাকা বাংলাদেশ সীমান্ত অঞ্চলে পর্যটন বৃদ্ধিতে (Tourism Development) ব্যয় করা হবে।

ত্রিপুরার নগরোন্নয়ন ও পর্যটন দপ্তরের সচিব কিরণকুমার দিনকাররাও (Kirankumar Dinkarrao) বলেন,”ঋণের চুক্তি অনুযায়ী, এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাঙ্ক প্রাথমিকভাবে ৪০ কোটি টাকা দেবে প্রকল্পের রূপরেখা তৈরি করতে। প্রকল্পের পরিকল্পনা তৈরি হয়ে গেলে আগামী তিন বছরে ১৬০০ কোটি টাকা নগরোন্নয়নের জন্য ও ৫০০ কোটি টাকা পর্যটন শিল্প উন্নয়নে বিনিয়োগের জন্য ঋণ দেবে এই আন্তর্জাতিক ব্যাঙ্ক।”

তিনি জানান, শুক্রবার ত্রিপুরা সরকার ওই ব্যাঙ্কের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। ত্রিপুরা সরকারের তরফে চৈতন্য মূর্তি ওই চুক্তি স্বাক্ষর করেন। অন্যদিকে ব্যাঙ্কের তরফে উপস্থিত ছিলেন ডিরেক্টর টাকেও কানিসি (Takeo Kanishi)। দিনকররাও বলেন, ” নগরোন্নয়ন প্রকল্পের অধীনে ত্রিপুরার ২০টি অঞ্চলের উন্নয়ন করা হবে। অন্যদিকে পর্যটন শিল্প উন্নয়নে যাবতীয় পর্যটন কেন্দ্র, সেখানে যাওয়ার রাস্তা ও বিভিন্ন পর্যটন পরিষেবা উন্নত করা হবে। আগামী ছয়-সাত মাসের মধ্যেই প্রকল্পের কর্মসূচি তৈরি হয়ে যাবে।”

আরও পড়ুন: উপত্যকায় চলছে ভোটগণনা, জম্মুতে এগিয়ে বিজেপি, কাশ্মীরে শীর্ষে গুপকর গোষ্ঠী

নগরোন্নয়ন প্রকল্প সম্পর্কে তিনি বিস্তারিত আলোচনা করে জানান, যেসব অঞ্চলে কোনও উন্নয়ন হয়নি, মূলত সেই অঞ্চলগুলির উন্নয়নেই এই অর্থ খরচ করা হবে। রাস্তা তৈরির পাশাপাশি জলের ব্যবস্থা, বিদ্যুৎ পরিষেবা ও অন্যান্য অত্যাবশ্যকীয় পরিষেবা প্রদান করাই এই প্রকল্পের মূল লক্ষ্য হবে।

অন্যদিকে, ত্রিপুরা পর্যটন বিভাগের এক আধিকারিক জানান, ঋণ ছাড়াও কেন্দ্রের “স্বদেশ দর্শন” প্রকল্পের আওতায় ত্রিপুরা ২০টি পর্যটন কেন্দ্রের উন্নয়নে দুই দফায় মোট ১৬৪ কোটি টাকা পেয়েছে। এছাড়াও সম্প্রতি ত্রিপুরা সরকার কেন্দ্রীয় পর্যটন মন্ত্রকে ৪০ কোটি টাকার একটি প্রকল্প অনুমোদনের দন্য আবেদন জানিয়েছে। প্রসাদ প্রকল্পের অধীনে ৫২০ বছর পুরনো ত্রিপুরা সুন্দরী মন্দিরের উন্নয়নের জন্যই এই আর্থিক অনুদানের আবেদন জানানো হয়েছে।

২০১৮ সালে ত্রিপুরা দখলের পর বিজেপি সরকার ‘মাতা ত্রিপুরা সুন্দরী উন্নয়ন কমিটি’র পরিবর্তে ‘মাতা ত্রিপুরা সুন্দরী ট্রাস্ট’ স্থাপন করে। ১০ সদস্যের এই ট্রাস্টের অধ্যক্ষ হলেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব (Biplab Deb)।

আরও পড়ুন: বিজেপি-তে অন্তর্দ্বন্দ্ব, মুখ্যমন্ত্রী পদে বহাল থাকা নিয়ে গণরায়ের প্রস্তাব বিপ্লব দেবের

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla