বিজেপি বিধায়কদের জরুরি বৈঠকে তলব মন্ত্রীর, প্রকট হচ্ছে কি দলের ফাটল?

মুকুল রায়(Mukul Roy)-র তৃণমূলে প্রত্যাবর্তনের পর থেকেই ত্রিপুরা (Tripura)-তেও বিক্ষুব্ধ বিজেপি (BJP) নেতাদের তৃণমূলে যোগদান নিয়ে তুমুল জল্পনা শুরু হয়েছে।

বিজেপি বিধায়কদের জরুরি বৈঠকে তলব মন্ত্রীর, প্রকট হচ্ছে কি দলের ফাটল?
প্রতীকী চিত্র।

আগরতলা: বিধানসভা নির্বাচনে সময় রয়েছে এখনও, তারই মাঝে বঙ্গ রাজনীতিতে পালাবদলের প্রভাব পড়েছে ত্রিপুরা(Tripura)-তেও। এ দিন দুপুরে আচমকাই ত্রিপুরার সংসদীয় বিষয়ক মন্ত্রী রতন লাল নাথ (Ratan Lal Nath) দলের বিধায়কদের নিয়ে বিধানসভার হলঘরেই বৈঠকের ডাক দেন। তবে কী বিষয়ে আলোচনা করা হবে, সে বিষয়টি তিনি খোলসা করে বলতে চাননি।

এ দিন রাজ্য সরকারের চিফ হুইপ কল্যাণী রায় মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব (Biplab Deb) ও উপ-মুখ্যমন্ত্রী জিষ্ণু দেববর্মা (Jishnu Dev Varma) বাদে বাকি ৩৪ জন বিধায়ককে বৈঠকের জন্য ডাকেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বিধায়ক বলেন, “কী বিষয়ে আচমকা বৈঠক ডাকা হল, জানিনা। তবে মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের প্রতি সমর্থন জোগাড় করার জন্যই হয়তো এই জরুরি বৈঠক।” উল্লেখ্য, রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী রতন লাল নাথ মুখ্যমন্ত্রীর ঘনিষ্ঠ হিসাবেই পরিচিত।

মুকুল রায়ের তৃণমূলে প্রত্যাবর্তনের পর থেকেই ত্রিপুরাতেও বিক্ষুব্ধ বিজেপি নেতাদের তৃণমূলে যোগদান নিয়ে তুমুল জল্পনা শুরু হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে গত সপ্তাহেই বিজেপির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক বি এল সন্তোষ দুদিনের ত্রিপুরা সফরে আসেন। সেখানে দলীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে বৈঠক চলাকালীন ২৩ জন বিধায়কই মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেবের প্রতি অসন্তোষ প্রকাশ করেন। জোটসঙ্গী আইপিএফটিও জে পি নাড্ডার সঙ্গে বৈঠকে বিপ্লব দেবের রাজ্য পরিচালন নীতি ও সিদ্ধান্ত নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছিল। এই পরিস্থিতিতে আচমকা এই বৈঠক বিশেষ গুরুত্ব বহন করছে মনেই করছেন রাজনীতি বিশেষজ্ঞরা।

আরও পড়ুন: ক্ষমা চেয়েছিলেন ‘জৈব অস্ত্র’ মন্তব্যে, লক্ষদ্বীপের পরিচালককে অগ্রিম জামিন আদালতের

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla