Protest against ED-CBI: ইডি-সিবিআইয়ের তদন্ত হোক নিরপেক্ষ, বিজেপি কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভে ‘তৃণমূল সোশ্যাল মিডিয়া ওয়ার্কার’

TMC: শুক্রবার তৃণমূল কংগ্রেসের ছাত্র-যুব সংগঠনের সদস্যরা ময়দানে নেমে প্রতিবাদ দেখায়। শনিবার তৃণমূলের পতাকা হাতে দেখা গেল সোশ্যাল মিডিয়া সেলের সদস্যদের।

Protest against ED-CBI: ইডি-সিবিআইয়ের তদন্ত হোক নিরপেক্ষ, বিজেপি কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভে 'তৃণমূল সোশ্যাল মিডিয়া ওয়ার্কার'
সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউয়ে বিক্ষোভ। নিজস্ব চিত্র।
TV9 Bangla Digital

| Edited By: সায়নী জোয়ারদার

Aug 13, 2022 | 3:25 PM

কলকাতা: ইডি-সিবিআই ইস্যুতে শনিবার ফের ময়দানে তৃণমূল কংগ্রেস। মূলত দলের ছাত্র যুবরা ময়দানে নেমে নানা কর্মসূচি পালন করছে শুক্রবার ও শনিবার। তাঁদের বক্তব্য, ইডি-সিবিআই তদন্ত করুক। কিন্তু ভূমিকা যেন নিরপেক্ষ হয়। তাঁদের অভিযোগ, কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাগুলি যা করছে, তা কার্যত বিজেপির অঙ্গুলিহেলনে হচ্ছে। এরই প্রতিবাদে সরব হয়ে ময়দানে নেমেছেন তাঁরা। শনিবারই মুরলীধর সেন স্ট্রিটে বঙ্গ বিজেপির সদর দফতর ঘেরাও অভিযানের ডাক দেয় তৃণমূল সোশ্যাল মিডিয়া ওয়ার্কার নামে সংগঠন।

শুক্রবার তৃণমূল কংগ্রেসের ছাত্র-যুব সংগঠনের সদস্যরা ময়দানে নেমে প্রতিবাদ দেখায়। শনিবার তৃণমূলের পতাকা হাতে দেখা গেল সোশ্যাল মিডিয়া সেলের সদস্যদের। বঙ্গ বিজেপির সদর দফতর থেকে বেশ কিছুটা দূরে সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউয়ের উপর বসে পড়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন তাঁরা। সেই প্রতিবাদ বিক্ষোভ থেকে স্লোগান ওঠে, ‘বিজেপির দুই ভাই, ইডি আর সিবিআই’।

সঙ্গে কারও হাতে লেবু লঙ্কা, কারও হাতে খাঁচা, তাতে লেখা ইডি সিবিআই। তাঁদের অভিযোগ, ইডি সিবিআই খাঁচাবন্দি তোতাপাখির ভূমিকায় বর্তমানে অবতীর্ণ হয়েছে। শুধু তাই নয়, বিক্ষোভকারীদের হাতে অনুব্রত মণ্ডলের ‘দাওয়াই’ গুড় বাতাসা, নকুলদানা ভরা থালাও ছিল। এই বিক্ষোভকারীদের বক্তব্য, দুর্নীতির অভিযোগে যদি শাসকদলের নেতাদের ধরা হয়, তা হলে সারদাকর্তা নাম করে বলার পরও কেন একবারও অন্তত জিজ্ঞাসাবাদটুকুও করা হল না বিজেপি বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারীকে? এ নিয়ে আগামিদিনে বৃহত্তর আন্দোলনে নামার হুঁশিয়ারিও দেন তাঁরা।

যদিও এই আন্দোলনকারীদের সঙ্গে তৃণমূলের পতাকা থাকলেও বা তাঁরা তৃণমূলের সোশ্যাল মিডিয়া কর্মী হিসাবে নিজেদের দাবি করলেও, এদিন সকালেই তৃণমূলের তরফে জানানো হয়েছে, তাঁদের ‘মাদার’ সংগঠনের এ নিয়ে কোনও কর্মসূচি নেই। তবে শাখা সংগঠনগুলি পথে নেমে নানা কর্মসূচিই শুক্রবার থেকে পালন করছে। এদিন যেখানে বসে এই অবস্থান চলে, সেই জায়গা থেকে বিজেপির দলীয় কার্যালয় ২০-৩০ মিটার দূরে। কারণ, বিজেপির সদর দফতর অবধি যাওয়ার কোনও পুলিশি অনুমতি তারা পায়নি।

আরও পড়ুন: 19,867.8 MHz স্পেকট্রাম অধিগ্রহণ করে ভারতীয়দের জন্য 5G বিপ্লব ঘটাতে চলেছে এয়ারটেল

এই খবরটিও পড়ুন

Follow us on

Related Stories

Most Read Stories

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla