6G Spectrum: ভারতে ২০২৩-এর শেষেই লঞ্চ হতে চলেছে ৬জি স্পেকট্রাম, জানানো হল কেন্দ্রের তরফ থেকে…

চলতি বছরে কেন্দ্র সরকারের তরফে ভাল ফল না করা টেলিকম সংস্থাগুলির জন্য একাধিক পদক্ষেপ নেওয়া হয়। তাদের জন্য আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়েছে। এতে মূলত সুবিধা পেয়েছে, ভোদাফোন ইন্ডিয়া, এয়ারটেলের মতো সংস্থাগুলি।

6G Spectrum: ভারতে ২০২৩-এর শেষেই লঞ্চ হতে চলেছে ৬জি স্পেকট্রাম, জানানো হল কেন্দ্রের তরফ থেকে...

২০২৩ সালের শেষে অথবা ২০২৪ সালের প্রথমে ভারতে লঞ্চ হতে চলেছে ৬জি প্রযুক্তি। গত মঙ্গলবার এবিষয়ে বিস্তারিত জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব। দুটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের তরফে একটি ওয়েবিনারের আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানেই এবিষয়ে বক্তব্য রাখেন তিনি। ৬জি পরিষেবা শুরু করা নিয়ে কী সিদ্ধান্ত হয়েছে সেই বিষয়েও জানান অশ্বিনী বৈষ্ণব। তাঁর কথায়, ইতিমধ্যে বিজ্ঞানী এবং প্রযুক্তিবিদদের এই বিষয়ে যাবতীয় অনুমতি দেওয়া হয়েছে। সেই মতো পরিকল্পনা অনুযায়ীই তাঁরা কাজ শুরু করেছেন।

ওই ওয়েবিনারে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জানিয়েছেন, ‘৬জি ডেভেলপমেন্টের কাজ ইতিমধ্যে শুরু করা হয়েছে। ২০২৪ সালের শুরুতে বা ২০২৩ সালের শেষের দিকে ৬জি বাস্তবায়িত হবে। এই প্রযুক্তি বাস্তবায়িত করার জন্য ভারতে তৈরি সমস্ত যন্ত্র আমরা ব্যবহার করব। এদের মধ্যে প্রতিটিই বিশ্বমানের যন্ত্র ব্যবহার করা হবে।’

তিনি আরও জানিয়েছেন, আগামী বছরের দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে ৫জি স্পেকট্রামের নিলাম ডাকা হবে। এর সঙ্গে তৃতীয় ত্রৈমাসিকের মধ্যে যাবতীয় সফটওয়্যার তৈরির কাজ শেষ করা হবে। এছাড়াও খুব তাড়াতাড়ি যে ৫জি স্পেকট্রাম নিলামের কাজও শুরু করা হবে সেই বিষয়েও বিস্তারিত মন্তব্য করেছেন তিনি।

6G in India

৬জির কথা ঘোষণা করলেন অশ্বিনী বৈষ্ণব

এবিষয়ে তিনি বলেন, ‘৫জি স্পেকট্রামের নিলামের বিষয়ে প্রস্তুতি নিয়েছে TRAI। তারা ইতিমধ্যে এই বিষয়ে আলোচনাও শুরু করেছে। আগামী বছরের ফেব্রুয়ারি ও মার্চ মাসের মধ্যে যাবতীয় প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে। আর তার পরই নিলামের কাজ শুরু করে দেওয়া হবে।’ তিনি ৬জি স্পেকট্রাম নিয়ে যে যথেষ্ট আশাবাদী সেই বিষয়ে আপাতদৃষ্টিতে কোনও সন্দেহ নেই।

এদিকে চলতি বছরে কেন্দ্র সরকারের তরফে ভাল ফল না করা টেলিকম সংস্থাগুলির জন্য একাধিক পদক্ষেপ নেওয়া হয়। তাদের জন্য আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়েছে। এতে মূলত সুবিধা পেয়েছে, ভোদাফোন ইন্ডিয়া, এয়ারটেলের মতো সংস্থাগুলি। ভিআই-এর মোট ঋণ ছিল ১.৯১ লক্ষ কোটি টাকা। এর মধ্যে এজিআর বকেয়া ছিল ৫৮,২৮৫ কোটি টাকা। তাদের তরফে এখনও পর্যন্ত ৭,৮৫৪ কোটি টাকা মেটানো হয়েছে। বিশ্লেষকদের আশঙ্কা ছিল ২০২২-২০২৩ অর্থবর্ষে যে পরিমাণ দেওয়ার কথা তার থেকে তারা প্রায় ২৩ হাজার কোটি টাকা কম দিতে পারবে। সেই কারণে সংস্থাটির সব কিছু হারিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা ছিল। কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকারের নতুন নীতির ফলে সেই সমস্যা অনেকটাই কেটে যায়।

আরও পড়ুন: Truecaller 12: ডিজাইনে চমক নিয়ে হাজির হল ট্রুকলার-এর নতুন ভার্সন, কল রেকর্ডিং, ঘোস্ট কল-সহ একাধিক জরুরি ফিচার

আরও পড়ুন: Windows 11 Latest Update: ফিক্স হল বাগ, নতুন ইমোজি দিয়ে উইন্ডোজ ১১ আপেডট করল মাইক্রোসফট

আরও পড়ুন: WhatsApp Custom Sticker Maker Feature: এবার আপনার নিজস্ব স্টিকার বানাতে পারবেন হোয়াটসঅ্যাপে, কী ভাবে, জেনে নিন

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla