‘রাহুমুক্ত হয়েছে বিজেপি,’ মুকুলকে তীব্র কটাক্ষ দিলীপের

"যাঁরা দলের অনুগত, তাঁরা দলে থাকবে। যাঁদের পোষাবে না তাঁরা চলে যাক। কোনও আপত্তি নেই।''

'রাহুমুক্ত হয়েছে বিজেপি,' মুকুলকে তীব্র কটাক্ষ দিলীপের
ফাইল চিত্র

বীরভূম: মুকুল রায় (Mukul Roy) ঘরওয়াপসি করে তৃণমূলে (TMC) চলে গিয়েছেন। তার পর জেলায় জেলায় বিজেপি নেতারা দল ছাড়ছেন। তবে মুকুল রায়কে একেবারে গুরুত্ব দিতে চাইছেন না বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)। বরং তাঁকে তীব্র ভাষায় বিঁধে এদিন দিলীপবাবুর মন্তব্য, ‘রাহুমুক্ত হয়েছে দল।’

সোমবার সিউড়ির দলীয় কার্যালয়ে বিজেপি-র রাজ্য সভাপতি জেলার বিজেপি-র নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে সদ্য তৃণমূলে যোগাদানকারী মকুল রায়ের বিরুদ্ধে কটাক্ষ ছুড়লেন। বলেন, বিজেপি-র সর্বভারতীয় সংগঠন। ভাল হয়েছে দল ত্যাগ করেছে মুকুল রায়। দল থেকে রাহুমুক্ত হয়েছে।

একই সঙ্গে বিজেপি-র ছেড়ে তৃণমূল যোগাদানকারী নেতাদের প্রসঙ্গে দিলীপের মত, “যাঁরা দলের অনুগত, তাঁরা দলে থাকবে। যাঁদের পোষাবে না তাঁরা চলে যাক। কোনও আপত্তি নেই।”

এদিন রাজ্যর ঘরছাড়া বিজেপি-র তালিকা তুলে ধরেন দিলীপ। বলেন, গোটা রাজ্য জুড়ে ঘরছাড়া বিজেপি কর্মী ৩ লক্ষ্য ২ হাজার ৩৪৫ জন। তাদের বাড়ি ফেরানোর নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। কিন্তু প্রশাসন নিষ্ক্রীয় ভূমিকা পালন করেছে। এদিকে বীরভূম জেলায় দলের পারফরমেন্সে তিনি খুশি বলেই জানালেন দিলীপ ঘোষ। বলেন, একটি মাত্র বিধানসভায় জয় হয়েছে। কিন্ত এক লক্ষ ব্যবধান আছে। পাশাপাশি তাঁর অভিযোগ, “তৃণমূল সেটিং করে ক্ষমতায় এসেছে। আমরা ব্যর্থ হলেও তৃণমূলের ভিত নড়াতে সক্ষম হয়েছি।”

আরও পড়ুন: ‘সন্ধির’ পথে শতাব্দী-অনুব্রত! ৩ বছর পর জেলা কমিটির বৈঠকে উপস্থিত দুই নেতৃত্ব 

তবে এই বৈঠকেও বিজেপি কর্মীসমর্থকরা রাজ্য সভাপতি উপর ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। কর্মী সমর্থকদের একাংশের দাবি, নির্বাচন পর আসা উচিত ছিল রাজ্য সভাপতির। যখন তৃণমূল কংগ্রেস কর্মীরা তাঁদের ওপর হামলা চালাচ্ছিল, তখন শীর্ষ নেতৃত্বকে পাশে পাননি বলে অভিযোগ। এ নিয়ে দিলীপ ঘোষের প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হলে তিনি অবশ্য কোনও উত্তর দিতে চাননি।

আরও পড়ুন: ‘গিনিপিগের মতো বেঁচে আছি,’ উত্তরবঙ্গ পৃথকে বার্লাকে সমর্থন কামতাপুর পিপলস পার্টির 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla