বিজেপির উত্তরকন্যা অভিযান: মৃত্যু এক বিজেপি কর্মীর, আগামিকাল ১২ ঘণ্টার উত্তরবঙ্গ বনধ

মৃত্যু হল এক বিজেপি কর্মীর। বিজেপির দাবি, পুলিসের লাঠি ও কাঁদানে গ্যাসের জেরেই মৃত্যু হয়েছে ওই বিজেপি কর্মীর। মৃত কর্মীর নাম উলেন রায় বলে জানিয়েছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

বিজেপির উত্তরকন্যা অভিযান: মৃত্যু এক বিজেপি কর্মীর, আগামিকাল ১২ ঘণ্টার উত্তরবঙ্গ বনধ

শিলিগুড়ি: আজ বিজেপির উত্তরকন্যা অভিযান(BJP’s Uttarkanya Abhijan)। ‘বঞ্চনার শিকার উত্তরবঙ্গ’ আর ‘আর নয় অন্যায়’ স্লোগানকে সামনে রেখে বিজেপির উত্তরকন্যা অভিযান কর্মসূচি।

** আগামিকাল ১২ ঘণ্টার উত্তরবঙ্গ বনধ ডাকল বিজেপি। এ দিন উত্তরকন্যা অভিযান কর্মসূচিতে পুলিসের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের কার্যত খণ্ডযুদ্ধ তৈরি হয়। তাদের এক কর্মীর মৃত্যু হয় বলে বিজেপি দাবি করে। কর্মীর মৃত্যু এবং পুলিসি অত্যাচারের অভিযোগে মঙ্গলবার উত্তরবঙ্গ বনধ ডাকল বিজেপি।

*রাজ্য পুলিসের দাবি, তাঁদের পক্ষ থেকে কোনও গুলি চালানো হয়নি।

*তৃণমূলের পক্ষ থেকে সৌগত রায় দাবি করেন, ‘সরকারি কোনও তথ্য নেই। পুলিসও জানে না কিছু।’ পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেব বলেন, ‘এই বিশৃঙ্খলার তীব্র ভাষায় নিন্দা করি। গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে বিজেপির গুণ্ডামির জবাব দেব।’ সৌরভ চক্রবর্তীর দাবি, ‘সরকারি তথ্য নেই। বরং বিজেপির লোকেরাই মিছিলে বোমা নিয়ে এসেছিল। বিজেপির মঙ্গলগ্রহ থেকে সেনা নিয়ে এলেও এ রাজ্যে বিজেপি আসতে পারবে না। আজ স্বাস্থ্যসাথী কার্ড বিলির দিন ছিল।’

* দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘বিজেপির মিছিল শান্তিপূর্ণ ছিল। বহু কর্মী আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি। যুব মোর্চা সভাপতি আহত হয়েছেন। পুলিশ গুলি চালিয়েছে। খুনের রাজনীতি করছে। দূর দূরান্ত থেকে লোকেরা এসেছিল।’ কৈলাস বিজয়বর্গীয়র কথায়, ‘আমি বেঁচে গেছি। টিয়ার গ্যাসে আমার চোখ জ্বলে যাচ্ছে। টিএমসির গুণ্ডা পুলিশের সঙ্গে দাঁড়িয়ে দেশি বোমা ছুঁড়েছে। আমাদের কাছে তার ভিডিয়ো আছে। রাবণের ক্ষমতা গেছে, মমতাদি বা তার ভাইপোর গুণ্ডাগিরিও বেশিদিন চলবে না।’

*বিজেপির দাবি, পুলিসের লাঠি ও কাঁদানে গ্যাসের জেরেই মৃত্যু হয়েছে ওই বিজেপি কর্মীর।

*মৃত কর্মীর নাম উলেন রায় বলে জানিয়েছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। মৃত কর্মীর বয়স ৫০ বছর বলে জানান তিনি।

*মৃত বিজেপি কর্মী গজলডোবার বাসিন্দা বলে খবর। কৈলাস বিজয়বর্গীয় বলেছেন, পুলিসের রবার বুলেট লেগেছিল ওই বিজেপি কর্মীর। হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা করা হলেও তাঁকে বাঁচানো যায়নি।

*ধুন্ধুমার উত্তরবঙ্গে। উত্তরকন্যা অভিযান ঘিরে পুলিসের সঙ্গে ধস্তাধস্তির জের। মৃত্যু হল এক বিজেপি কর্মীর। যদিও পুলিসের পক্ষ থেকে এখনও এই বিষয়ে খোলসা করে কিছু জানানো হয়নি।

 

dead bjp

মৃত বিজেপি কর্মী উলেন রায়

* দুপুর ৩.১০: মাঝেমধ্যে এখনও কাঁদানে গ্যাসের সেল ফাটাচ্ছে পুলিস।

* গোটা এলাকা কাঁদানে গ্যাসের ধোঁয়ায় অন্ধকার। পুলিস নিয়ন্ত্রণে আনতে পেরেছে পরিস্থিতি।

* বিভিন্ন জায়গায় বাঁশের ব্যারিকেডে আগুন ধরাচ্ছেন বিজেপি কর্মীরা।

* পুলিসকে লক্ষ্য করে চলছে ইটবৃষ্টি, কাচের বোতলও ছুড়ছেন কর্মীরা।

bjp worker

আহত বিজেপি কর্মী

* পুলিস রঙিন জল ছোড়া শুরু করেছে।

* কেন্দ্রীয় নেতৃত্বরা গাড়ি নিয়ে তিনবাত্তি মোড় থেকে বেরিয়ে গেলেন।

* কাঁদানে গ্যাসের সেলে অসুস্থ হয়ে পড়লেন তেজস্বী সূর্য। তাঁকে গাড়িতে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

* এবার এগিয়ে আসছে পিছন থেকে আসা মিছিল। এগিয়ে চলেছেন তেজস্বী সূর্য, নিশীথ প্রামাণিক, কৈলাস বিজয়বর্গীয়রা।

* অসুস্থ হয়ে পড়েন সৌমিত্র খাঁ। নিজেকে সামলে ব্যারিকেড ভেঙে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা।

* কাঁদানে গ্যাসের সেল ফাটায় কিছুটা পিছু হটতে বাধ্য হন বিজেপি কর্মীরা।

জল কামান সত্ত্বেও ব্যারিকেড ভাঙার চেষ্টা

* তিনবাত্তি মোড়ে বিজেপি কর্মীদের আটকাতে জলকামান।

* উত্তরকন্যার দেড় কিলোমিটার আগেই দিলীপ ঘোষকে আটকে দিল পুলিস

* ফুলবাড়ি মোড়ে দিলীপ ঘোষকে বাধা পুলিসের।  উত্তপ্ত এলাকা। ছত্রভঙ্গ করতে ফাটছে কাঁদানে গ্যাসের সেল ফাটানো হচ্ছে। পাল্টা ইট ছুড়ছেন বিজেপি কর্মীরা।

* দিলীপ ঘোষের নেতৃত্বে শুরু মিছিল। পুলিস বাধা দিলে শুরু হয় ধস্তাধস্তি।

* ফুলবাড়িতে প্রথম ব্যারিকেড ভাঙলেন বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। নেতৃত্বে কোচবিহার বিজেপি জেলা সভানেত্রী মালতি রাভা।

ফুলবাড়িতে ব্যারিকেড ভাঙলেন বিজেপি কর্মীরা

* ” বাংলায় পরিবর্তন দেখা যাচ্ছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় উন্নয়ন, বিকাশের বদলে বাংলায় কেবল বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীদের ঢুকিয়েছেন।” উত্তরকন্যা অভিযানের মঞ্চে বললেন তেজস্বী সূর্য।

মঞ্চে কৈলাস-তেজস্বী

 

মঞ্চে উপস্থিত মুকুল রায়

* মঞ্চে উপস্থিত রয়েছেন মুকুল রায়।

* শিলিগুড়ির তিনবাত্তি মোড়ে বিজেপি কর্মীদের আটকে দেয় পুলিস।

* শিলিগুড়িতে পৌঁছেছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। শিলিগুড়ির উত্তরকন্যার কাছেই NHPC বাংলোতে ঢোকার চেষ্টা করেন দিলীপ ঘোষ। ব্যারিকেডে দিয়ে তাঁকে আটকে দেওয়া হয় চতুর্দিক থেকে। পুলিসের সঙ্গে তর্কাতর্কি হয় দিলীপের। তিনি জানান, কিছুক্ষণের জন্য বিশ্রাম নিতেই তিনি অতিথিনিবাসে যাচ্ছেন। পরে পুলিস তাঁকে ছেড়ে দেয়।  শেষে হেঁটেই বাংলোতে ঢোকেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি।

পুলিসি বাধার মুখে দিলীপ ঘোষ

* সৌমিত্র খাঁ বলেন, “পুলিস তৃণমূলের সৈনিক। পুলিস তৃণমূল কংগ্রেসের দলদাসে পরিণত হয়েছে। এটা আমাদের রাজনৈতিক আন্দোলন।” বিমল গুরুঙ্গের নাম না করে ‘দুষ্কৃতী’ বলে কটাক্ষ করেন তিনি। বলেন,  “যে দুষ্কৃতী পুলিসকেই হত্যা করেছে, তাকেই পাহারা দিয়ে নিয়ে গিয়ে সভা করাচ্ছে পুলিস আর রাজনৈতিক নেতাদের আটকাচ্ছে। তবে আমাদের অভিযান সফল হবে।”

কর্মসূচিতে যোগ দিতে যাচ্ছেন সৌমিত্র খাঁ

* সোমবার সকালে নাগরাকাটা ভানু মোড় এলাকায় সংসদ জন বার্লা ও নেতা কর্মীদের আটকান মালবাজারের সিআই আশিস থাপা। সেই ছবি সাংবাদিকরা তুলতে গেলে, তাঁদের সঙ্গেও দুর্ব্যবহার করার অভিযোগ ওঠে পুলিসকর্তার বিরুদ্ধে। এরপর বিজেপির যুব মোর্চার কর্মীদের বিক্ষোভের মুখে পড়ে তাঁদের ছেড়ে দিতে বাধ্য হন পুলিসকর্তা।

শিলিগুড়িতে প্রস্তুত পুলিস

 

সূত্রের খবর, বিজেপির পরিকল্পনা রয়েছে, এদিন দুটি পয়েন্ট থেকে ঘিরে ফেলা হবে উত্তরকন্যাকে।  শিলিগুড়ি, জলপাইগুড়ি থেকে মিছিলের নেতৃত্বে রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। মিছিলে রয়েছেন যুব মোর্চার সর্বভারতীয় সভাপতি তেজস্বী সূর্য, রাজ্য যুব মোর্চার সভাপতি সৌমিত্র খাঁ। অন্যদিকে, জলপাইগুড়ির ফুলবাড়ি মোড় থেকে আরও একটি মিছিল রওনা দিয়েছে। তাতে সামনের সারিতে রয়েছেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়, অরবিন্দ মেনন, মুকুল রায়রা।

আরও পড়ুন: মেদিনীপুরে মমতা ঢুকতেই শুভেন্দুর ছবিতে ছয়লাপ

বিজেপির উত্তরকন্যা অভিযান ঘিরে তত্পর রাজ্য সরকারও। ইতিমধ্যেই জলপাইগুড়ি ও আলিপুরদুয়ারের বিভিন্ন রাস্তায় পুলিস মোতায়েন রয়েছে। এর আগে বিজেপির নবান্ন অভিযান ঘিরে তুলকালাম হয়েছিল। এবার সেরকম কিছু সম্ভাবনা এড়াতেই কড়া প্রহরায় পুলিস। শিলিগুড়ির তিনবাত্তি মোড়ে জলকামান, ব্যারিকেড, কাঁদানে গ্যাস নিয়ে তৈরি কয়েকশো পুলিস কর্মী।