Sujan Chakraborty: গঙ্গাসাগর যতই সুপারস্প্রেডার হোক, মাননীয়ার ভাবমূর্তি তৈরিতে মেলা হয়ত জরুরী!

Sonarpur: তিনি আরও বললেন, "অপদার্থ উত্তরপ্রদেশ সরকার তারা হরিদ্বারে সংক্রান্তি মেলা বন্ধ করছে আর 'ভেরি' পদার্থ পশ্চিমবঙ্গ সরকার তারা গঙ্গাসাগর মেলা করছে।"

Sujan Chakraborty: গঙ্গাসাগর যতই সুপারস্প্রেডার হোক, মাননীয়ার ভাবমূর্তি তৈরিতে মেলা হয়ত জরুরী!
সাংবাদিকদের মুখোমুখি সুজন চক্রবর্তী। (নিজস্ব চিত্র)

সোনারপুর: করোনা পরিস্থিতিতে গঙ্গাসাগর মেলা কেন করা হচ্ছে? তা, নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিরোধীরা। কিন্তু তারপরও মেলা হচ্ছে। আজও কংগ্রেস দলনেতা অধীর চৌধুরি গঙ্গাসাগর মেলার তীব্র নিন্দা করেন। একই রকম ভাবে মেলার নিন্দায় সরব হলেন সিপিআই(এম) নেতা সুজন চক্রবর্তী (Sujan Chakraborty)

আজ সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, “আজকে হাইকোর্ট গঙ্গাসাগর মেলা সংক্রান্ত বিষয়ে কমিটি বদল করে দিয়এছে। তবে এটি কতজনকে নিয়ে হবে তা বিবেচ্য বিষয় নয়। বিবেচ্য বিষয় হল, গঙ্গাসাগর যাওয়ার পথে দোকান বাজার সব পালা করে বন্ধ। কারণ করোনা সংক্রমণ ছড়াবে। অথচ গঙ্গাসাগর মেলাটা হবে। তাতে কোনও রকম সংক্রমণ ছড়াবে না। কী বলবেন একে?যে সকল পূণ্যার্থী বাইরে থেকে এসেছেন তাঁদের টেস্ট করে দেখা যাচ্ছে দশ শতাংশই করোনা আক্রান্ত। তাঁদের কি ফেরত পাঠানো হচ্ছে? না তাদের পাঠানো হচ্ছে না ফেরত। এইসব করে মানুষকে বিপদে ফেলা হচ্ছে। এত অপদার্থ উত্তরপ্রদেশ সরকার তারা হরিদ্বারে সংক্রান্তি মেলা বন্ধ করছে আর ভেরি পদার্থ পশ্চিমবঙ্গ সরকার তারা গঙ্গাসাগর মেলা করছে। মানুষ বিপদে পড়ে পড়ুক, গঙ্গাসাগর সুপারস্প্রেডার হয় হোক, মাননীয়া ইমেজ তৈরি করতে মেলা হচ্ছে।”

এরপর সুজনবাবু যোগ করে বলেন, “ভাইপো বলছেন সব খেলা নাকি বন্ধ করে দেবেন।২৫ শে ডিসেম্বর অ্যালেন পার্ক ছড়িয়ে দিল। বর্ষবরণ ছড়িয়ে দিল।তৃণমূলের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ছড়িয়ে দিল। এই সমস্ত সংক্রমণ ছড়ানোর পর অন্তত এখনও যদি বুঝত ভালো হত।কিন্তু এই সংক্রমণ বাড়ানোর মনোভাব আখেড়ে মানুষের ক্ষতি হচ্ছে।”

প্রসঙ্গত, গঙ্গাসাগর মেলা নিয়ে প্রথম যে অর্ডার দিয়েছিল হাইকোর্ট, তাতে বড়সড় বদল এল। গোটা গঙ্গাসাগর এলাকাটাই এখন ‘নোটিফায়েড এরিয়া’ অর্থাৎ যেখানে রাজ্যের বিধি কায়েম হতে পারে যে কোনও সময়ই।মঙ্গলবারের নির্দেশ হাইকোর্ট স্পষ্ট করে দিয়েছে যে গোটা গঙ্গাসাগর এলাকাটাই নোটিফায়েড এরিয়া। অর্থাৎ সেখানে রাজ্য সরকারের যে বিশেষ বিধিবদ্ধ নিয়ম রয়েছে, সেটা মান্যতা দিতে হবে। পাশাপাশি তিন সদস্যের যে কমিটির গঠন করা হয়েছিল, সেটা সম্পূর্ণ রূপে ভেঙে ফেলা হয়েছে। দুই সদস্যের কমিটি তৈরি করা হয়েছে। কমিটি থেকে বাদ পড়েছেন শুভেন্দু অধিকারীর নাম। কারণ মামলাকারীরা অনেকেই বলেছিলেন যে, শুভেন্দু অধিকারী বিরোধী দলনেতা। সেক্ষেত্রে এই মেলা ঘিরে টানাপোড়েনে লাগতে পারে রাজনৈতিক রঙও।

আরও পড়ুন: UP Elections: দলবদলের হিড়িকের মধ্যেই দিল্লিতে যোগী-শাহ-নাড্ডার বৈঠক, তৈরি হচ্ছে নীল নকশা

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla