CM Mamata Banerjee: ‘আর্নিং নেই, শুধুই বার্নিং’, টাকার জন্য বিধায়কদের ম্যাজিশিয়ান আনার পরামর্শ মমতার

Mamata Banerjee in Administrative Meeting: "যতই দাও শুধু চাই চাই। জিতে গিয়েছেন। ভাল করে কাজ করুন। শুধু দাও দাও করলে হবে? কোথা থেকে আসবে একবারও ভেবেছেন? জানেন লক্ষ্মীর ভাণ্ডারে কত টাকা খরচ হয়েছে? সেই টাকা আমাদের তো জোগাড় করতে হচ্ছে। ২ বছর এখন কিচ্ছু চাইবেন না।''

CM Mamata Banerjee: 'আর্নিং নেই, শুধুই বার্নিং', টাকার জন্য বিধায়কদের ম্যাজিশিয়ান আনার পরামর্শ মমতার
অলংকরণ: অভীক দেবনাথ

উত্তর দিনাজপুর: সরকারি প্রকল্পের জন্য হাজার হাজার কোটি টাকা খরচ হচ্ছে। তাই টাকা চাইবেন না। বিধায়কদের উদ্দেশে এমনই বার্তা বারবার দিচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (CM Mamata Banerjee)। কিন্তু তবু বারংবার নানা দাবি শোনা যাচ্ছে জনপ্রতিনিধিদের মুখ থেকে। কেউ চাইলেন পৃথক জেলা, কেউ আবার হাসপাতাল, কেউবা নতুন প্রকল্প। মঙ্গলবারও প্রশাসনিক বৈঠকে এমনই সব দাবি শুনে মেজাজ হারালেন মুখ্যমন্ত্রী। আবার রাগত স্বরে জানিয়ে দিলেন কীভাবে মিলবে টাকা।

কার্শিয়াং থেকে মধ্যমগ্রাম। পাহাড় থেকে সমতল। বিভিন্ন জায়গার প্রশাসনিক বৈঠকে তৃণমূলের জনপ্রতিনিধিরা পরিকাঠামো থেকে পরিষেবা, বিভিন্ন ক্ষেত্রে দাবিদাওয়া তুলে ধরেছেন। সব জায়গাতেই মুখ্যমন্ত্রীর একটাই জবাব যে বিভিন্ন জনমুখী প্রকল্পে কোটি কোটি টাকা খরচ হচ্ছে। তার পর যেন জনপ্রতিনিধিরা আর কোনও নতুন দাবি না করেন। যা পেয়েছেন তা দিয়ে যেন মানুষের কাছে পৌঁছতে পারেন তাঁরা।

তবু বিধায়কদের আবদার থামে না। মঙ্গলবার কর্ণজোড়ায় উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুরের প্রশাসনিক বৈঠকে কলেজ তৈরির দাবি তুললেন করণদিঘির বিধায়ক গৌতম পাল। আর তা শুনেই ক্রুদ্ধ হলেন মুখ্যমন্ত্রী। লক্ষ্মীর ভাণ্ডার, স্বাস্থ্যসাথী, কৃষকবন্ধু, স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড। এমন বহু জনমুখী প্রকল্প চালাতে রাজ্যের হাজার হাজার কোটি টাকা খরচ হচ্ছে। সেজন্য বিধায়কদের আর আলাদা করে দাবি না তোলার পরামর্শ দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। এ দিনও তাই বলেছেন। তার সঙ্গে শ্লেষের সুরে টাকা জোগাড়ের বিকল্প উপায়ও বাতলে দেন তিনি।

মমতার কথায়, “যতই দাও শুধু চাই চাই। জিতে গিয়েছেন। ভাল করে কাজ করুন। শুধু দাও দাও করলে হবে? কোথা থেকে আসবে একবারও ভেবেছেন? জানেন লক্ষ্মীর ভাণ্ডারে কত টাকা খরচ হয়েছে? সেই টাকা আমাদের তো জোগাড় করতে হচ্ছে। ২ বছর এখন কিচ্ছু চাইবেন না।”

তাতেও বিধায়কদের দাবি-দাওয়া থামে না। এবার চটে যান মমতা। বলেন, “তোমরা ম্যাজিশিয়ন তৈরি করো। সে তোমাদের টাকা দেবে।” তিনি যোগ করেন, “লক্ষ্মীর ভাণ্ডারে আমার কোটি কোটি টাকা যাচ্ছে। কেন্দ্র একটা টাকা দেয় না। করোনায় সব শেষ। আর্নিং নেই, শুধুই বার্নিং। আগামী ২ বছর কিচ্ছু চাইবেন না। এখন ভাল করে কাজ করুন। সব দাবি মানা সম্ভব নয়।”

বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী জানান গতবারের দুয়ারে সরকার প্রকল্পে তিন কোটিরও বেশি মানুষ সুবিধা পেয়েছেন। করোনা পরিস্থিতির কারণে দুয়ারে সরকার প্রকল্প বড় মাঠে আয়োজন করার কথা বলেন তিনি। এদিন তুলাইপঞ্জি চালের চাষ নিয়েও খবররাখবর নেন। বিধায়কদের উদ্দেশ্য়ে তাঁর বার্তা, ‘আমার বিধানসভা বললে হবে না। ২৯৪ টা বিধানসভা দেখতে হবে।’ এদিন আবার এক বিডিওকে মুখ্যমন্ত্রী প্রশ্ন করেন সরকারি রেভিনিউ ঠিকঠাক পাচ্ছেন কিনা। তিনি হ্যাঁ বলার পর মুখ্যমন্ত্রীর মন্তব্য, “আর ইউ সিওর? নাকি সব খেয়ে নিচ্ছে? ক্রস চেক করে নিচ্ছেন?”

আরও পড়ুন: Mamata Banerjee: ‘এর পর বলবেন ঘরের মধ্যেও একটা জেলা চাই’, বিধায়কের আবদার শুনে খাপ্পা মুখ্যমন্ত্রী 

Click on your DTH Provider to Add TV9 Bangla